আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ২৬ মে ২০২২ ● ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ২৬ মে ২০২২

https://www.facebook.com/Safeandsaverestaurant

শতবর্ষে মাতলো ‘রংপুর হাই স্কুল’

বুধবার, ২০ জুন ২০১৮, বিকাল ০৬:৪৭

ফরহাদুজ্জামান ফারুক: ঈদের আনন্দের সাথে বিদ্যাঙ্গনের শতবর্ষ উদযাপন করেছে রংপুরের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ‘রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়’ এর প্রবীণ-নবীন শিক্ষার্থী-শিক্ষক ও অভিভাবকরা। দুইদিন ব্যাপী জমকালো সাংস্কৃতিক পরিবেশনা আর স্মৃতিচারণ, কৃতি মানুষদের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়াসহ বিচিত্র আনন্দ আয়োজনে ভরা ছিলো শতবর্ষ উদযাপনের প্রতিটি মুহূর্ত। ঈদের দ্বিতীয় দিন রোববার সকাল থেকে শুরু হওয়া শতবর্ষ উদযাপনের আয়োজন শেষ হয় পরের দিন সোমবার রাতে। এরআগে রোববার সকালে আনন্দ আয়োজনের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি এবং রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। ঢাক-ঢোল আর বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে উদ্বোধনী শোভাযাত্রা শেষে নীল রঙের টি-শার্টে রঙিন হয়ে উঠে রংপুর উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। ১৯৪৯ ব্যাচ থেকে শুরু করে ২০১৮ ব্যাচের প্রাক্তন ও নবীন শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের পদচারণায় দু’দিন মুখরিত হয়ে এই উৎসব। গান, গল্প, ফান আর নৃত্যের ছন্দে আনন্দে উল্লসিত শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা ক্ষণে ক্ষণে তুলে ধরে ফেলে আসা স্মৃতিময় দিনগুলোর কথা। সম্মাননা স্মারক দিয়ে সংবর্ধিত করা হয় ভাষা ভাষা সৈনিক, মুক্তিযোদ্ধা, কৃতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের। এসময় প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা ঐতিহ্যবাহী রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়কে সরকারীকরণের দাবী জানান। সমাপনী দিনে শেষ দিনের আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি। শতবর্ষ উদযাপন কমিটির আহŸায়ক রেজাউল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. রেজাউল করিম রাজু। বক্তব্য রাখেন, সংবর্ধনা কমিটির আহŸায়ক এ্যাড. এএএম মুনীর চৌধুরী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল মুযন আযাদ, সহকারী প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ভাষা সৈনিক আব্দুল গণি সরকার, ফজলার রহমান, মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান বীর বিক্রম, মুক্তিযোদ্ধা নুরুর রসুল চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফাসহ ২৮ জন মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। এছাড়া সমাজসেবায় ১৯৭৪ ব্যাচের মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, সাহিত্যে ১৯৬৯ ব্যাচের ডাঃ মফিজুল ইসলা মান্টু, ক্রীড়ায় ১৯৬৫ ব্যাচে এ এ লতিফুর রহমান খান, ১৯৭৮ ব্যাচের হারুন-অর-রশিদ, শিক্ষায় ১৯৭৬ ব্যাচের টি এমএম নুরুল ইসলাম মোদ্দাসের চৌধুরী, ১৯৯২ ব্যাচের শাইখ ইমতিয়াজ, ২০০০ ব্যাচের ড. মোঃ জিহাদ মিয়া, চিকিৎসায় ১৯৮০ ব্যাচের ডাঃ আতাউর রহমান, ২০০০ ব্যাচের ডাঃ আনোয়ারুল আলম চৌধুরী, শিল্পকলায় ১৯৮৩ ব্যাচের জিয়াউল কবির, সঙ্গীতে ১৯৮৩ ব্যাচের রফিকুল ইসলাম রইচ, নাটকে ১৯৬৫ ব্যাচের মাধব চন্দ্র সরকার, সংগঠকে ১৯৮৩ ব্যাচের রেজাউল ইসলাম মিলন, সাংবাদিকতায় ১৯৭৪ ব্যাচের নজরুল মৃধা, ১৯৮৩ ব্যাচের জাভেদ ইকবাল, আইন পেশায় ১৯৭০ ব্যাচের বিনয় ভ‚ষন রায়, প্রশাসনে ১৯৮৩ ব্যাচের লুৎফুল হাসান রুমী, ১৯৭৮ ব্যাচের মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ব্যবসায় ১৯৭৫ ব্যাচের মঞ্জুর আহমেদ আজাদ, স্কুল শিক্ষকদের মধ্যে শিক্ষকতায় মোঃ সেকেন্দার আলী, স্কাউটিং এ শিক্ষক মোঃ মাহবুবুল আলম প্রামাণিক, অভিভাবকে আব্দুল গণি, স্বমহিমায় জীবনের সাফল্যে আরোহন এ বিশেষ ক্যাটাগরিতে সম্মাননা স্মারক দেয়া হয় শাহার আলীকে। সমাপণী দিনের সাংস্কৃতিক আয়োজনে চ্যানেল আই সেরা কন্ঠের দোলা, ক্লোজআপ তারকা বাপ্পী, স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র সংগীত পরিচালক আল আমিনসহ জাতীয় ও স্থানীয় শিল্পীদের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনায় মেতে উঠে অনুষ্ঠান স্থল। পরে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

মন্তব্য করুন


Link copied