Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ৬ মে, ২০২১ ::২৩ বৈশাখ ১৪২৮ :: সময়- ৭ : ৪৪ পুর্বাহ্ন
Home / নীলফামারী / জলঢাকা উপজেলা চেয়ারম্যান লাঞ্চিত (ভিডিও)

জলঢাকা উপজেলা চেয়ারম্যান লাঞ্চিত (ভিডিও)

https://fb.watch/5fLyhTH33E/

বিশেষ প্রতিনিধি॥ একটি বেসরকারী স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা কমিটি গঠনে মতবিনিময় সভায় অভিভাবকদের সঙ্গে বচসা ও ক্ষিপ্ত হয়ে চড়াও হতে গিয়ে লাঞ্চিত হয়েছে নীলফামারী জলঢাকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর।
আজ সোমবার(০৩-মে-২০২১) দুপুরে ঘটনাটি ঘটে উপজেলার খুটামারা ইউনিয়নের হরিশচন্দ্রপাঠ স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে। এ ঘটনায় পুলিশ দুইজন অভিভাবককে আটক করেছে।
এলাকাবাসী জানায়, আজ সোমবার হরিশচন্দ্রপাঠ স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা কমিটি গঠনের জন্য এলাকার অভিভাবকদের নিয়ে এক মতবিনিময় সভায় আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নীলফামারী ৩ (জলঢাকা) আসনের জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মেজর(অবঃ) রানা মহম্মদ সোহেল।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব হাসান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জলঢাকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর, জলঢাকা পৌর মেযর ইলিয়াস হোসেন বাবলু, উপজেলা মাধ্যমিক শিা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল জাপা নেতা অধ্যাপক মমিনুল ইসলাম মঞ্জু ও উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক আব্দুল আজিজ শাহ ও অন্যান্য শিক্ষক এবং অভিভাবক ও এলাকাবাসী।
এলাকাবাসী জানায়, মতবিনিময় সভায় প্রথমে মতবিনিময় আয়োজনের দুইটি পৃথক ব্যানার সাঠানো নিয়ে তর্ক শুরু হয়। এরপর দুইটি ব্যানার সরিয়ে মতবিনিময় সভা শুরু হলে প্রথমে সংসদ সদস্য মাইক হাতে নিয়ে দুইটি ব্যানার নিয়ে উপস্থিত অভিভাবক সদস্য ও এলাকাবাসীর ওপর ক্ষিপ্ত হন। এলাকাবাসী গ্রামের শিক্ষিত ও আস্তাভাজন এমন ব্যাক্তিকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য সভাপতি দাবি করে। কিন্তু সংসদ সদস্য মেজর(অবঃ) রানা মহম্মদ সোহেল, মঞ্জুরুল আলম সিয়ামকে সভাপতি নির্বাচিত করে ডিও লেটার প্রদান করেন। যা এলাকাবাসী ও অভিভাবকরা মানতে নারাজ। এ অবস্থায় মতবিনিময় সভায় উপস্থিত অভিভাবকরা মতবিনিময় সভা ছেড়ে সকলে চলে যেতে থাকেন। এ নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশকে খবর দেয়া হয়।
এলাকার ওসমান মিয়া নামের এক ব্যাক্তি জানান, সে সময় মঞ্চে থাকা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর মঞ্চ থেকে নেমে এসে অভিভাবকদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে চলে যাওয়ার জন্য চড়াও হয়ে উচ্চস্বরে কথা বলেন। এ সময় এলাকাবাসী ও অভিভাবকদের সঙ্গে উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার সমর্থকদের মধ্যে বচনা সৃস্টি হয়। বচসার এক পর্যায়ে শুরু হয় হাতাহাতি। বাঁশের লাঠি নিয়ে পিটাপিটি। এ সময় লাঞ্চিত হন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর। এতে বাহাদুরের সমর্থকরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওই এলাকার আনিছুর রহমানের দোকানটি ভাংচুর করে। ইতোমধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর সার্কেল) এ,এস,এম মুক্তারুজ্জমান, জলঢাকা থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এ সময় জলঢাকা উপজেলা চেয়ারম্যানকে লাঞ্চিত করার ঘটনায় পুলিশ আনিছুর রহমান(৪৫) ও লোকমান হোসেন(৫০) দুই অভিভাবকে আটক করে।
পরে লাঞ্চিত হওয়া উপজেলা চেয়ারম্যানকে জলঢাকা হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করানো হয়।
এ ব্যাপারে জলঢাকা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক জানান, ঘটনাস্থলে খানিকটা উত্তেজনা পরিস্থিতি ছিল। তবে তা শান্ত হবার পর সংসদ সদস্য মেজর(অবঃ) রানা মহম্মদ সোহেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক ও অভিভাবকদের মতামত নিয়ে উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসাবে মঞ্জুরুল আলম সিয়ামের নাম ঘোষনা করেন।
এদিকে বিকাল সাড়ে ৫টায় হরিশচন্দ্র পাঠ গ্রামের মানুষজন আটক দুইজনকে ছেড়ে দেয়া দাবি ও নবগঠিত কমিটি বাতিলের জন্য বিক্ষোভ মিছিল করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful