Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ::৯ আশ্বিন ১৪২৮ :: সময়- ৬ : ১১ অপরাহ্ন
Home / নীলফামারী / নীলফামারী জেলা জাপা নতুন আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে কোন্দল

নীলফামারী জেলা জাপা নতুন আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে কোন্দল

স্টাফ রিপোর্টার,নীলফামারী॥ নীলফামারীতে সৈয়দপুরের পর এবার গৃহদাহের দিকে এগুচ্ছে জেলা জাপা (জাতীয় পাটি)। সম্প্রতি কেন্দ্র ঘোষিত আহবায়ক কমিটিতে সদস্য সচিব হিসেবে সাজ্জাদ পারভেজের নাম আসায় ওই গৃহদাহের আলামত দেখা দিয়েছে। বিষয়টি অসাংগঠনিক এবং অগণতান্ত্রিক দাবি করে ওই নাম প্রত্যাহার চেয়ে দলের বড় একটি অংশের নেতাকর্মীরা গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করেছে ইতিমধ্যে। আগামী ১৭ জুলায়ের মধ্যে তার নাম প্রত্যাহার না হলে গণপদত্যাগের ঘোষণাও দিয়েছেন বিক্ষুদ্ধরা।
আজ বুধবার(৭ জুলাই/২০২১) দুপুরে জেলা শহরের বাস টার্মিনালে সড়ক পরিবহণ মালিক গ্রুপের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন দলের বিক্ষুদ্ধরা। ওই সংবাদ সম্মেলনে বক্তৃতা দেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সদস্য সচিব শাহজাহান আলী চৌধুরী।
তিনি বলেন, ২০১৯ সালের ১৮ মে নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমানকে আহ্বায়ক এবং আমাকে সদস্য সচিব করে ৭৭ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষিত হয়। এরপর থেকে আমরা জেলার ছয় উপজেলা ও ইউনিয়ন ওয়ার্ড কমিটি গঠন করে জেলা সম্মেলনের প্রস্তুতি গ্রহন করে আহবায়ককে বারবার তাগিদ দেয়া হলেও তিনি কর্ণপাত করেননি। এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের আপত্তির মুখে জেলা শহরের বাইরে সৈয়দপুর উপজেলায় ওই সম্মেলন অনুষ্ঠানের ইচ্ছা প্রকাশ করেন। এর বিরুদ্ধে আমার অবস্থান ছিল। এরপর থেকে করোনার সংক্রমণ শুরু হলে সম্মেলণ অনুষ্ঠান সম্বভ হয়নি। শেষে আহ্বায়কের ওই ইচ্ছার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার ষড়যন্ত্রে আমাকে বাদ দিয়ে নতুন করে আহবায়ক কমিটি করা হয়। তিনি বলেন, যদি আমি ব্যর্থ হই তাহলে সাংগঠনিকভাবে জেলা আহবায়কও ব্যর্থ। কিন্তু তিনি তো বাদ গেলেন না।
শাহজাহান চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, জাতীয় পাটিকে শুণ্যের কোঠায় নিয়ে গেছেন এই সাজ্জাদ পারভেজ। তার কোনো সাংগঠনিক ভিত্তি নেই। গত চার বছরে একবারও তিনি দলীয় কার্যালয়ে আসেননি। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচনে লাঙলের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন তিনি। অথচ তাকে সদস্য সচিব করা হলো। আমরা চাই তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে দায়িত্ব দেয়া হোক। তাতে যে আসবে আমরা তাকেই মেনে নিব।
ওই সংবাদ সম্মেলনে একাত্বতা প্রকাশ করে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা দেন, সদর জাপার উপজেলার আহবায়ক আতাউর রহমান, সদস্য সচিব হারুন উর রশিদ, জেলা শ্রমিক পার্টির সভাপতি বজলার রহমান, জেলা যুব সংহতির সভাপতি মামুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান, জেলা ছাত্র সমাজের আহবায়ক মাহমুদ হাসান অয়ন প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যরা বলেন, দলের গতিশীলতা বাড়াতে আমরা কাজ করছি। এখন ঢাকায় বসে কমিটি দেয়া হচ্ছে, তাহলে জেলা উপজেলা সম্মেলন কেন ? যে কমিটি করা হয়েছে তা অগণতান্ত্রিক ও অরাজনৈতিক। ওই কমিটিতে একজন অসাংগঠনিক ব্যক্তি সাজ্জাদ পারভেজকে সদস্য সচিব করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ ও ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় জাপাসহ সকল অঙ্গসংগঠনে গণ পদত্যাগের কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।
এ বিষয়ে নবগঠিত কমিটির সদস্য সচিব সাজ্জাদ পারভেজ সাংবাদিকদের বলেন, পূর্বের আহবায়ক কমিটির মেয়াদ উত্তির্ণ হওয়ায় গত ২ জুলাই ঢাকা থেকে নতুন আহবায়ক কমিটি দেওয়া হয়েছে। ওই কমিটিতে নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমানকে আহবায়ক এবং নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অব.) রানা মোহাম্মদ সোহেলকে যুগ্ম আহবায়ক রেখে আমাকে সদস্য সচিব করা হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সঠিক নয়। আমি সৈয়দপুর পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি তার কোনো প্রমান তারা দেখাতে পারবেন না।
এ বিষয়ে জেলা জাপার আহবায়ক ও নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমানের সাথে মুঠোফেনে কথা হলে তিনি বলেন, সফলতা বা বর্থ্যতার জন্য নয়। কমিটির মেয়াদ উত্তির্ণ হওয়ায় পার্টির চেয়ারম্যান আবার নতুন করে আহবায়ক কমিটি দিয়েছেন। নতুন কমিটিতে তিন জন যুগ্ম আহবায়ক রয়েছেন। সেখানে শাহজাহান আলী চৌধুরীও আছেন।
উল্লেখ্য, এর আগে গত ফেব্রুয়ারী মাসে সৈয়দপুর পৌরসভার নির্বাচনের পর সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমানের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা এবং অগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় দল পরিচালনার অভিযোগ তুলে উপজেলা জাপার আহ্বায়ক সিদ্দিকুল আলমসহ উপজেলাও পৌর জাপা এবং অঙ্গসংগঠনের ২২ জন নেতা প্রদত্যাগ করলে সেখানে দেখা দেয় গ্রহদাহ।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful