Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ::৯ আশ্বিন ১৪২৮ :: সময়- ৬ : ৫০ অপরাহ্ন
Home / দিনাজপুর / দিনাজপুরে করোনায় ৮ দিনে ৪৫ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে করোনায় ৮ দিনে ৪৫ জনের মৃত্যু

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর থেকেঃ উত্তরের সীমান্ত ঘেষা জেলা দিনাজপুরে ক্রমশঃ ্লাশের মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে। প্রতিদিনই করোনা আক্রান্ত হয়ে লাশের মিছিলে যোগ দিচ্ছেন, কেউ না কেউ। করোনা ও উপসর্গ নিয়ে গত ৮ দিনে ৪৫ ব্যক্তি মৃত্যুবরণ করেছেন। এর মধ্যে নিশ্চিত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৬ জনের। আর করোনা উপস্বর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ২৯ জন। এই ৮ দিনে করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ১৮০ জন। আর গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ও উপস্বর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে এবং নতুন আক্রান্ত হয়েছে ২২৬ জন। দিনাজপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের দেয়া নিয়মিত ব্রিফিংয়ে প্রাপ্ত সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
গত জুন মাসের পুরো ৩০ দিনে মারা যায় ৪৩ জন। অথচ এই জুলাই মাসের মাত্র ৮ দিনেই তা অতিক্রম করে এ পর্যন্ত ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে একজন ও উপস্বর্গ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে আরও ৩ জনসহ মোট ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ২২৬ জন। গতকাল সবচেয়ে বেশী ৪৫ জন আক্রান্ত হয়েছে পার্বতীপুর উপজেলায়। আর সবচেয়ে কম ৪ জন আক্রান্ত হয়েছে বিরামপুর উপজেলায়। আর ১৩ উপজেলার মধ্যে ঘোড়াঘাট ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় একজনও আক্রান্ত হয়নি।
এদিকে মৃত্যুর মিছিল ক্রমাগত বাড়লেও মানুষের মাঝে লকডাউন মানার কোন প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। গতকাল বৃহস্পতিবার পুরো দিনাজপুরের চিত্র ছিল একেবারে স্বাভাবিক। দিনাজপুরে যে লকডাউন চলমান তা সকালের চিত্র দেখে বোঝার কোন উপায় ছিল না। এ অবস্থায় বেগতিক পরিস্থিতি দেখে দুপুরের পর সেনা সদস্যদের কয়েকটি গাড়ী শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান নিয়ে লোকজনকে বাড়ীতে পাঠানোর চেষ্টা করে। ফলে শহর ধীরে ধীরে কিছুটা ফাঁকা হয়ে পড়ে। দীর্ঘ সময় পর্যন্ত সেনা সদস্যরা রাস্তায় দাঁড়িয়ে মানুষকে বাড়ী যাবার জন্য অনুরোধ করে। কাউকে শক্তভাবে আবার কাউকে শান্তভাবে বুঝিয়ে তারা মানুষকে বাড়ীতে ফেরায়। সেনা সদস্যদের এ উদ্যোগ উপস্থিত মানুষের মাঝে প্রশংসা কুড়ায়। অনেকেই মনে করেন- এভাবে প্রতিদিন সকালে শহরের স্টেশন রোড, বাহাদুর বাজার, লিলিমোড়, মডার্ণ মোড়, নিমতলা, মুন্সীপাড়া, সুইহারী, রামনগর মোড়, নিউটাউন বাজারসহ কয়েকটি পয়েন্টে অবস্থান নিলেই লকডাউন সফল করা সম্ভব হবে। তবে কিছুটা সময় নিয়ে অবস্থান না করলে চোর-পুলিশ খেলার মত অবস্থা হচ্ছে। সেনা সদস্যদের উপস্থিতিতে সবাই লুকােেচ্ছ, আর চলে গেলেই সবাই বেরিয়ে পড়ছে। এমনটাই মনে করছেন.শহরের অধিকাংশ এলাকার সাধারণ মানুষ।
পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে খারাপের দিকে গেলেও কেন মানুষ সচেতন হচ্ছে না? এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃআব্দুল কুদ্দুস জানান, আমরা আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। মানুষকে সচেতন করার জন্য সব ধরণের পদ্ধতি প্রয়োগ করছি। তবে দিনাজপুরের পরিস্থিতি ভালো না। এ অবস্থায় মানুষের সচেতনতা ছাড়া মুক্তির কোন পথ নেই।জেঁকে বসেছে,করোনা। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে একমাত্র সচেতরনা প্রয়োজন। প্রয়োজন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং মাস্ক পরিধান করা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful