Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ::৯ আশ্বিন ১৪২৮ :: সময়- ৬ : ৩৭ অপরাহ্ন
Home / আলোচিত / `সুস্থ ও স্বাভাবিক নয়’ এমন শিশুর ঘোষণায় রাজনৈতিক দল সৃষ্টি হতে পারে না

`সুস্থ ও স্বাভাবিক নয়’ এমন শিশুর ঘোষণায় রাজনৈতিক দল সৃষ্টি হতে পারে না

ডেস্ক: ‘সুস্থ’ ও ‘স্বাভাবিক নয়’ এমন শিশুর ঘোষণায় একটি রাজনৈতিক দল সৃষ্টি হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জাকির হোসেন সড়কে দুস্থদের মধ্যে খাদ্যপণ্য বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, ‘সুস্থ্য ও স্বাভাবিক নয় এমন এক শিশুর ঘোষণায় একটি রাজনৈতিক দল সৃষ্টি হতে পারে না। একটি রাজনৈতিক দল গঠন করতে আইন ও বিভিন্ন নীতিমালা রয়েছে। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক বেগম রওশান এরশাদের সাথে কথা না বলেই তাকে চেয়ারম্যান ঘোষণা, এমন সংবাদ গণমাধ্যমে প্রকাশ ও প্রচার করা কতটা যুক্তিযুক্ত হয়েছে তা বিবেচনা করা উচিত ছিল।’

এ সময় নিউজ প্রকাশ ও প্রচারের আগে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদের সঙ্গে গণমাধ্যমের অবশ্যই কথা বলা উচিত ছিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

কাদের ইন্ধনে এমন বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে? এমন এক প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, ‘গণমাধ্যমের উচিত বিষয়টি খতিয়ে দেখা। সন্ধ্যায় রওশন এরশাদের সাথে ফোনে কথা হয়েছে। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন, চেয়ারম্যান হওয়ার কোনো ইচ্ছেই নেই তার। দক্ষতার সাথে জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করতে বিভিন্ন উদ্যোগের প্রশংসাও করেছেন রওশন এরশাদ।’

অনুষ্ঠানে মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের চেয়ে মানুষের জীবন বাঁচানো জরুরি বলে মন্তব্য করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, ‘৬ লাখ কোটি টাকার বিশাল বাজেট আমাদের। বড় বড় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে দেশে। কিন্ত করোনায় কর্মহীন পরিবারগুলো মারাত্মক অর্থ সংকটে পড়েছে। এক বছর আগেই আমরা বলেছিলাম লকডাউন দেওয়ার আগে মানুষের খাবার, ওষুধ এবং জরুরি নিত্যপণ্য নিশ্চিত করতে হবে। এ ছাড়া কখনোই লকডাউন সফল হবে না। লকডাউন সফল হয়নি, করোনার সংক্রমণ বেড়েছে, বেড়েছে মৃত্যুর হারও।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাজেট তৈরি হয় দেশের জনগণের ট্যাক্সের টাকায়। এ টাকার মালিক দেশের জনগণ। তাই সেখান থেকে প্রতি মাসে দরিদ্র পরিবার প্রতি অন্তত ১০ হাজার টাকা দিলে দেশের মানুষ বাঁচতে পারবে। লকডাউনও সফল হবে। মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের চেয়ে মানুষের জীবন বাঁচানো জরুরি।’

করোনা মোকাবেলায় যখন ২৬ থেকে ২৮ কোটি ডোজ টিকা প্রয়োজন, সেখানে শুধু ঘোষণা আসছে ৫ থেকে ১০ লাখ টিকা আসছে। জিএম কাদের বলেন, ‘সারা বিশ্ব যখন করোনার টিকা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরছে তখনও আমরা জানি না কখন দেশের সবাই টিকা পাবেন। দেশের প্রতিটি মানুষকে টিকা দিতে হবে। যেভাবে টিকা দেওয়ার কথা সরকারিভাবে বলা হচ্ছে, তাতে ৫ থেকে ৬ বছর লেগে যেতে পারে। আবার ১০ বছরও লেগে যেতে পারে। তাতে পরিস্থিতি মারাত্মক হয়ে যাবে। সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে আর মাস্ক ব্যবহার করেই করোনা মোকাবিলা সম্ভব হবে না। প্রতিদিন সরকারের পক্ষ থেকে করোনা টিকার ব্যাপারে আশ্বাস দেওয়া হচ্ছে, কিন্তু সরকারি আশ্বাসে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছে সাধারণ মানুষ।’

তিনি আরও বলেন, ‘এক বছরের বেশি সময় আগে সরকারকে আমরা স্বাস্থ্যসেবা আরও উন্নত করতে বলেছি। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের প্রতিটি হাসপাতালেই ডাক্তার নার্সসহ প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ দিতে বলেছিলাম। প্রতিটি হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরিক্ষার যন্ত্রপাতি এবং অক্সিজেন সহায়তা নিশ্চিত করতে বলেছিলাম। এখন হাসপাতালগুলোতে অক্সিজেনের জন্য হাহাকার উঠছে। সরকারের ব্যর্থতায় করোনা এখন গ্রাম-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে। চিকিৎসার অভাবে গ্রামের মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছে, যার হিসেব নেই সরকারের কাছে। মানুষ চিকিৎসা না পেয়ে পানি পড়া খেয়ে করোনা থেকে বাঁচতে চেষ্টা করছে, এর চেয়ে দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা আর হতে পারে না।’

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful