Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ::৯ আশ্বিন ১৪২৮ :: সময়- ৬ : ০২ অপরাহ্ন
Home / রংপুর / রংপুর বিভাগে কমেছে মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

রংপুর বিভাগে কমেছে মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

মমিনুল ইসলাম রিপন: রংপুর বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে করোনা সংক্রমিত আরও ৭৪৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে গেল বারোদিনে বিভাগে করোনায় প্রাণ হারাল ১৯৭ জন। গত তিনদিনের তুলনায় বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু কমলেও বেড়েছে শনাক্ত।
শুক্রবার (১৬ জুলাই) দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) আবু মো. জাকিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রংপুর জেলার দুইজনসহ দিনাজপুর, নীলফামারী ও পঞ্চগড়ের ১ জন করে রয়েছেন।একই সময়ে বিভাগে ৩ হাজার ৮০৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে দিনাজপুরের ২৬৪ জন, রংপুরের ১১৬ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ৮৬ জন, নীলফামারীর ৮০ জন, কুড়িগ্রামের ৬৫ জন, পঞ্চগড়ের ৬৩ জন, গাইবান্ধার ৫১ ও লালমনিরহাটের ২০ জন রয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় আক্রান্তের হার ১৯ দশমিক ৫৭ শতাংশ।নতুন করে মারা যাওয়া ৫ জনসহ বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭১৬ জনে। এর মধ্যে দিনাজপুর জেলার ২৩৭ জন, রংপুরের ১৪৪, ঠাকুরগাঁওয়ের ১৩৪, নীলফামারীর ৫১, লালমনিরহাটের ৪৩, কুড়িগ্রামের ৩৮, পঞ্চগড়ের ৩৫ ও গাইবান্ধার ৩৪ জন রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩৯৬ জন।এছাড়াও নতুন শনাক্ত ৭৪৫ জনসহ বিভাগে ৩৫ হাজার ৭৭৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দিনাজপুুর জেলায় ১০ হাজার ৯৭৩ জন, রংপুরের ৭ হাজার ৭৩৭ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ৫ হাজার ৩০ জন, গাইবান্ধার ২ হাজার ৯৩২ জন, নীলফামারীর ২ হাজার ৭২৯ জন, কুড়িগ্রামের ২ হাজার ৫৭৯ জন, লালমনিরহাটের ১ হাজার ৯৩১ জন এবং পঞ্চগড়ের ১ হাজার ৮৬৭ জন রয়েছেন।করোনাভাইরাস শনাক্তের শুরু থেকে বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) পর্যন্ত রংপুর বিভাগে ১ লাখ ৮৬ হাজার ৫৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিভাগের আট জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুর, রংপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলায়। এছাড়া ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা জেলাগুলোত বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু।

করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. আবু মো. জাকিরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশনা মেনে চলার বিকল্প নেই।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful