আর্কাইভ  শনিবার ● ২৭ নভেম্বর ২০২১ ● ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   শনিবার ● ২৭ নভেম্বর ২০২১

রংপুর বিভাগে মৃত্যু আরও ১৬ , শনাক্ত ৫৯২

সোমবার, ১৯ জুলাই ২০২১, বিকাল ০৬:২০

সোমবার (১৯ জুলাই) দুপুরে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) আবু মো. জাকিরুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, রোববার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রংপুর জেলার ছয়জন, ঠাকুরগাঁওয়ের চারজন, পঞ্চগড়ের তিনজন, দিনাজপুরের দুইজন ও কুড়িগ্রামের একজন রয়েছেন।

একই সময়ে বিভাগে ২ হাজার ২১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৯২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রংপুরের ১৩২ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ৯৩ জন, কুড়িগ্রামের ৮৭ জন, দিনাজপুরের ৮৫ জন, পঞ্চগড়ের ৭০ জন, নীলফামারীর ৬৩ জন, গাইবান্ধার ৪০ জন ও লালমনিরহাটের ২২ জন রয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় আক্রান্তের হার ২৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

নতুন করে মারা যাওয়া ১৬ জনসহ বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৫৫ জনে। এর মধ্যে দিনাজপুর জেলার ২৪১ জন, রংপুরের ১৫৮, ঠাকুরগাঁওয়ের ১৪১, নীলফামারীর ৫২, লালমনিরহাটের ৪৬, পঞ্চগড়ের ৪১, কুড়িগ্রামের ৩৯ ও গাইবান্ধার ৩৭ জন রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৭৪ জন। এছাড়াও নতুন শনাক্ত ৫৯২ জনসহ বিভাগে ৩৭ হাজার ৫২১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দিনাজপুুর জেলায় ১১ হাজার ২৯৭ জন, রংপুরের ৮ হাজার ২২৩ জন, ঠাকুরগাঁওয়ের ৫ হাজার ২২৯ জন, গাইবান্ধার ৩ হাজার ১৬৩ জন, নীলফামারীর ২ হাজার ৮৫৬ জন, কুড়িগ্রামের ২ হাজার ৭৩৭ জন, লালমনিরহাটের ১ হাজার ৯৯৩ জন এবং পঞ্চগড়ের ২ হাজার ২৩ জন রয়েছেন।

করোনাভাইরাস শনাক্তের শুরু থেকে এ পর্যন্ত রংপুর বিভাগে ১ লাখ ৯২ হাজার ৭৬৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিভাগের আট জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুর, রংপুর ও ঠাকুরগাঁও জেলায়। এছাড়া ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা জেলাগুলোত বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু।

করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. আবু মো. জাকিরুল ইসলাম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বাধ্যতামূলক মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিভাগের নির্দেশনা মেনে চলার বিকল্প নেই।

মন্তব্য করুন


Link copied