আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ৩০ নভেম্বর ২০২১ ● ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   মঙ্গলবার ● ৩০ নভেম্বর ২০২১

দিনাজপুরে শিশু হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন

মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর ২০২১, বিকাল ০৬:০২

মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে দিনাজপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক জ্যেষ্ঠ জেলা জজ শরীফ উদ্দিন আহমেদ এই রায় ঘোষণা করেন। এ ছাড়া যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের জেল এবং বাকি দুই আসামিকে তিন হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও এক মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত হলেন—হাকিমপুর উপজেলার মুহাড়াপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে আব্দুস সালাম ওরফে সামিউল (২৫)। অন্যরা হলেন—সামিউলের বাবা আমজাদ হোসেন (৫৫) ও মা ছানোয়ারা বেগম (৪৫)।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ১১ এপ্রিল মুহাড়াপাড়া গ্রামের মামুনুর রশিদ আজাদের ছেলে আবতাহী আল রশিদকে অপহরণ করে মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। পরে শিশুটির বাবা হাকিমপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ আজাদ বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করেন। পুলিশ প্রযুক্তির মাধ্যমে আসামি সামিউলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে টিভি সিরিয়াল ক্রাইম পেট্রোল দেখে দ্রুত বড়লোক হতে শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি ও হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দি করে ঘরের ছাদে গুম করে রাখার বিষয়টি স্বীকার করেন সামিউল।

স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই ছাদ থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় মামুনুর রশিদ বাদী হয়ে হাকিমপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলাটি বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আদালত এই রায় দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তৈয়বা বেগম বলেন, সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে হত্যার বিষয়টি প্রমাণ হয়েছে। আমাদের চেষ্টা স্বার্থক। এই রায়ে আমরা খুশি।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন শিশুটির বাবা মামুনুর রশিদ আজাদ। তিনি বলেন, এমন রায়ের ফলে অন্য কেউ আর এমন অপরাধ করতে সাহস পাবে না। আর কোনও মা-বাবাও সন্তানহারা হবে না।

মন্তব্য করুন


Link copied