আর্কাইভ  রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ● ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১

গ্যাস দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেন সজীব ওয়াজেদ জয়

রবিবার, ১৬ মার্চ ২০১৪, বিকাল ০৬:১৮

রোববার রংপুর জিলা স্কুল মাঠে স্থানীয় জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন জয়। বিকেল ৫টা ১৯ মিনিটে ভাষণ শুরু করেন তিনি। এ সময় তিনি বলেন, উত্তরবঙ্গে আমি শিল্প-কল-কারখানার প্রসার চাই। আরও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চাই। উত্তরবঙ্গকে আমি পিছিয়ে যেতে দেব না। আমি সজীব ওয়াজেদ জয় উত্তরবঙ্গকে দেখে রাখবো। অচিরেই রংপুর সহ উত্তরবঙ্গে গ্যাস পৌঁছে দেয়া হবে। এ সময় নানা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণ করার প্রতিশ্রুতি দেন জয়। রোববার বিকেল সাড়ে চারটায় জনসভাস্থলে পৌঁছে মঞ্চে আসন গ্রহণ করেন তিনি। এ সময় করতালি ও স্লোগানে তাকে স্বাগত জানান উপস্থিত হাজারও জনতা। রংপুরের সন্তান ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা জয় আরো বলেন, রংপুরে বিভাগ, বিশ্ববিদ্যালয় ও সিটি করপোরেশন আওয়ামী লীগ সরকারেরই অবদান। গত পাঁচ বছরের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে উত্তরবঙ্গের জন্য সরকারের বিশেষ নজর ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে। যেখানে বর্তমানে ডিজিটাল পদ্ধতিতে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। এখানকার মানুষকে আর চিকিৎসার জন্য ঢাকা কিংবা দেশের বাইরে যেতে হয় না। জয় আরো বলেন, পাঁচ বছর আগে ঘোষণা দিয়েছিলাম ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার। এরই মধ্যে সফল হয়েছি। গ্রামে গ্রামে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট। ইউনিয়ন তথ্যসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে এর সুবিধা পাচ্ছে গ্রামের মানুষ। উত্তরবঙ্গের মাঠজুড়ে সবুজ বোরো ধানের ক্ষেত দেখে জয় বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে সারের কোনো ঘাটতি নেই। তাছাড়া বিদ্যুৎ ব্যবস্থার যথেষ্ট উন্নয়ন করায় তা সম্ভব হয়েছে। এ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপগুলোর মধ্যে শিক্ষাক্ষেত্রের কখা উল্লেখ করে জয় বলেন, প্রতিবছর দেশের প্রতিটি শিক্ষার্থীকে বই দেওয়া হচ্ছে যা বিশ্বের কোনো সরকার করতে পারেনি। জয় বলেন, আন্দোলনের নামে দেশে শুধু নৈরাজ্যই সৃষ্টি করেছেন বিএনপিনেত্রী খালেদা জিয়া। নির্বাচন নিয়েও তিনি সমালোচনা করে চলেছেন। কিন্তু সব উপজেলাতেই যে সুষ্ঠু নির্বাচন হচ্ছে তা তিনি স্বীকার করতে চাচ্ছেন না। আগামীতে বর্তমান সরকারের আরো অনেক উন্নয়নের পরিকল্পনা আছে উল্লেখ করে জয় বলেন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া, উত্তরবঙ্গে গ্যাস এনে দেওয়াসহ বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে কাজ করে যাবে সরকার। জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে দুপুর আড়াইটায় শুরু হয় জনসভা। দুপুরে রংপুর সার্কিট হাউজে পৌঁছে দুপুরের খাবার ও বিশ্রাম গ্রহণ শেষে জনসভাস্থলে আসেন জয়। ঢাকা থেকে সরাসরি সৈয়দপুর বিমানবন্দরে পৌঁছে পৌনে একটার দিকে রংপুর সার্কিট হাউসের উদ্দেশে রওয়ানা হন তিনি। যাত্রাপথে রাস্তার দু’ধারে অপেক্ষমাণ হাজারো নেতাকর্মী ও উৎসুক জনতা জয়কে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। সৈয়দপুর বিমানবন্দরে জয়কে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজু প্রমুখ। প্রধানমন্ত্রী পুত্রের সফরসঙ্গী হিসেবে রয়েছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি আশরাফুল আলম খোকন, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম প্রমুখ। এদিকে ‘ঘরের ছাওয়াল‘ সজীব ওয়াজেদ জয়ের দুই দিনের সফর উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সেজেছে রংপুর নগরী। আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে নগরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলো। জয়কে স্বাগত জানাতে মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়ক ছাড়াও নগর জুড়ে নির্মাণ করা হয়েছে অসংখ্য তোরণ।

মন্তব্য করুন


Link copied