আর্কাইভ  রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ● ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১

সাকিবকে নিয়ে বোর্ডে তিন মত!

শুক্রবার, ১৮ জুলাই ২০১৪, রাত ০৮:৩১

ক্রীড়া প্রতিবেদক : তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের শাস্তি ঘিরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ভেতরে তিনটি পক্ষ সৃষ্টি হয়েছে। একটি পক্ষ চাইছে, সাকিব আল হাসান শাস্তি ছাড়াই দ্রুত দলে ফিরুন। দ্বিতীয় পক্ষ চায়, সাকিবের শাস্তি কিছুটা হলেও হোক। আর তৃতীয় পক্ষটি চায়, সাকিবের শাস্তির রায় বহাল থাক। এ ব্যাপারে জাতীয় দলের এক প্রাক্তন খেলোয়াড় এবং বোর্ডের পরিচালক নাম গোপন রাখার শর্তে বলেন, ‘৭ জুলাইয়ের বোর্ড সভায় বিসিবির পরিচালকদের ভেতর থেকে সাকিবকে নিয়ে তিন ধরনের মতামত এসেছিল। একটি পক্ষ ছিল শাস্তি না-দেওয়ার পক্ষে, আরেক পক্ষ চেয়েছিল সামান্য হলেও শাস্তি হোক। আর তৃতীয় পক্ষটি ছিল ঘোষিত শাস্তির পক্ষে। তবে সব মিলিয়ে এখন বোর্ডের মনোভাব সাকিবের পক্ষেই আছে।’

ওই পরিচালক বলেন, ‘সাকিব কিন্তু কাজটা ভালো করেনি। সাকিবকে যে শাস্তি দেওয়া হয়েছে তা অন্য ক্রিকেটারদের জন্য শিক্ষণীয় হয়ে থাকবে। তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বর্তমানে খারাপ সময় পার করছে। এ সময় সাকিবের মতো ক্রিকেটারের দলে থাকা প্রয়োজন। কিন্তু শৃঙ্খলা বলতেও একটা কথা আছে। যেটা সাকিব ও বিসিবির মনে রাখা উচিত।’

তিনি আরো যোগ করেন, ‘বাংলাদেশের বড় একজন তারকা সাকিব। সে যদি নিজের ভুল বুঝতে পারে, সেটা ভালো। শাস্তি কমানো কিংবা শাস্তির মেয়াদ বহাল রাখা- এগুলো তখন কোনো প্রভাব ফেলবে না।’

এ অবস্থায় সাকিব আশাবাদী, খুব শিগগিরই দলে ফিরবেন তিনি। আসবেন আগের ফর্মে ফিরে। বোর্ড তাকে সেই সুযোগটুকু দেবে।

এর আগে ভারত সিরিজ শেষে মৌখিক অনুমতি নিয়ে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ সিপিএল খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে যাত্রা করেন সাকিব আল হাসান। তখন থেকেই ঘটনার শুরু। বিষয়টি ভালো দৃষ্টিতে দেখেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের উদ্দেশে যাত্রা করার এক দিনের মাথায় সাকিবকে দেশে ফিরে আসতে নির্দেশ দেয় বোর্ড। সাকিব দেশে ফেরার আগেই খবর ছড়িয়ে পড়ে, এবার আরো কঠিন শাস্তি হতে যাচ্ছে দেশসেরা এই অলরাউন্ডারের। দেশে ফেরার পর তা-ই হলো। ক্রিকেটবোদ্ধা ও সাকিব-ভক্তদের অবাক করে ছয় মাসের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করা হয় তাকে। পাশাপাশি দেড় বছরের জন্য বিদেশি লিগগুলোতে খেলার ব্যাপারে অনাপত্তিপত্র না-দেওয়ার ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নেয় বিসিবি। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে সাকিবকে দেওয়া এমন শাস্তি ক্রিকেটবোদ্ধাদের ধারণার চেয়েও বেশি হয়ে যায়। প্রাক্তন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে এমন শাস্তি দেওয়ায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন বোর্ড-প্রধানসহ কয়েকজন পরিচালক। অনেকেই অভিযোগ তোলেন, বোর্ডের দু-একজন কর্মকর্তার ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার হওয়াতেই সাকিবকে এমন কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও টকশোতে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এতে নানামুখী চাপের মধ্যে পড়ে বোর্ড। ফলে সাকিবকে এমন শাস্তি দিয়ে স্বস্তিতে নেই বোর্ড। কারণ, সাকিবকে দেওয়া শাস্তিটা যে একটু ‘বাড়াবাড়ির’ পর্যায়ে গেছে সেটা এখন বোর্ডের অনেকেই বুঝতে পারছেন। ফলে বোর্ডের কিছু কর্মকর্তা সাকিবের শাস্তি কমানোর উপায় খুঁজছেন। অবশেষে বুধবার সাকিবকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বলা হয়। সাক্ষাতে বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছে সাকিব জানতে চান, শাস্তির বিপক্ষে তার আপিল করার সুযোগ আছে কি না। সভাপতি তাকে বলেন, ‘আপিল করার সুযোগ রয়েছে।’ তবে সেটা করার আগে বোর্ডের কাছ থেকে যে সবুজ সংকেতের প্রয়োজন ছিল তাও মিলেছে বৃহস্পতিবার। বোর্ডের পক্ষ থেকে তাকে আপিল করতে বলা হয়েছে। কিন্তু এখনো সাকিব আপিল করেননি। তবে শিগগিরই করবেন বলে আভাস দিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য করুন


Link copied