Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২০ :: ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ :: সময়- ৮ : ০৩ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / বিএনপির গন্তব্যহীন অবরোধ; মাঠে নেই নেতা-কর্মী

বিএনপির গন্তব্যহীন অবরোধ; মাঠে নেই নেতা-কর্মী

BNP Logoমোহাম্মদ আল মাসুম মোল্লা: অবরোধ ডেকেও রাস্তায় নামেননি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) শীর্ষ স্থানীয় নেতারা। বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া রাজপথেও দেখা নেই দলের কর্মীদের। এরই মধ্যে শুরু হচ্ছে মুসলিমদের দ্বিতীয় বৃহত্তম জমায়েত বিশ্ব ইজতেমা। এমন অবস্থায় সবার মনেই প্রশ্ন কোন গন্তব্যে যাচ্ছে বিএনপির এই আন্দোলন?

রেল, স্থল ও জলপথ অবরোধ চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে জোরালো মনোভাব দেখাচ্ছে বিএনপি। কিন্তু দলটি শীর্ষ কিংবা মাঝারি পদের নেতাদের দেখা মিলছে না। এমনকি গুলশানের কার্যালয়ে অবরুদ্ধে চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সঙ্গেও দেখা করতে যাচ্ছেন না কেউ। বুধবার দলটি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী বলেন, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অবরোধ অব্যাহত থাকবে। কিন্তু ইজতেমা উপলক্ষ্যে বিএনপির পরিকল্পনা কী এমন প্রশ্নের কোনও উত্তর দিতে পারেননি তিনি।

গত সোমবার অনির্দিষ্টকালের ওই অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা দেন খালেদা জিয়া। কিন্তু কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনেও একজন নেতাকেও প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। এমনকি শূন্য ছিল দলটির নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ও।

দলটির শীর্ষ ও মাঝারি পদের নেতা বিশেষ করে যারা দলের সাংগঠনিক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত তাদের সবাই বর্তমানে গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন যা দলটির চলমান আন্দোলনে বিরূপ প্রভাব ফেলছে। ৫ জানুয়ারি সমাবেশ করতে না দেওয়ায় অকস্মাৎ ওই কর্মসূচি ঘোষণা করেন খালেদা জিয়া। দলটির অনেক শীর্ষ নেতাই জানিয়েছেন ওই কর্মসূচি সম্পর্কে আগেভাগে তারা কিছু জানতেন না। বরং সংবাদ মাধ্যমের বদৌলতে তারা অবরোধের খবর পেয়েছেন। এমনকি দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামও এ ব্যাপারে কিছু জানতেন না।

অবরোধের ঘোষণায় বিএনপির কর্মীদের মধ্যে তেমন কোনও সাড়া নেই। যেখানে তাদের রাজনৈতিক মিত্র জামায়াত ইসলামীর সমর্থকরা বেশ কয়েকটি স্থানে সহিংস হয়ে উঠেছে।

বিএনপির ১৯ সদস্যর স্ট্যান্ডিং কমিটির মধ্যে ৩ জন এখন জেলে রয়েছেন, একজন বিদেশে। অন্যরা মুক্ত তবে এক মির্জা আব্বাস ছাড়া আর কাউকেও গত কয়েকদিনে রাজপথে দেখা যায়নি। উপদেষ্টা কমিটির মোট ৩৫ সদস্যর মধ্যে মাত্র ৩ জনকে দেখা গেছে রাজপথে। এদের মধ্যে একজন আব্দুল কাইয়ুম যিনি শনিবার রাত থেকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ আছেন।

এর মধ্যে একমাত্র খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু আত্মগোপনে থেকেও আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন। ৭ জানুয়ারি যুগ্ম মহাসচিবের মধ্যে একমাত্র রুহুল কবির রিজভীকেও রাজপথে দেখা গেছে। ৪ জানুয়ারির পর অন্যদের চেহারা দেখতে পাওয়াই মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। এমনকি দেখা মিলছে না দলের সাংগঠনিক সম্পাদকেরও। এমনকি দেখা যাচ্ছে না ছাত্রদল, যুবদল কিংবা স্বেচ্ছাসেবক দলের কোনও নেতাকর্মীকে। তবে এর মধ্যে ব্যতিক্রম হাবিব-উন-নবী খান সোহেল।

পুলিশি আক্রমণের মুখেও নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা। কিন্তু তার নির্দেশ মানেনি কেউ। এ বিষয়ে ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক আকরামুল হোসেন বলেন, ‘পুলিশ যদি দেখামাত্রই গুলি করে আমরা রাজপথে কিভাবে থাকবো? তিনি পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে বলেন, নেতাকর্মীরা যদি রাজপথে নাই থাকে তবে যারা নিহত হলেন তারা কীভাবে নিহত হয়েছেন?’

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful