Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০ :: ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ :: সময়- ৩ : ২৩ অপরাহ্ন
Home / আলোচিত / রংপুরে গ্রেপ্তার আতংকে বিএনপি নেতারা

রংপুরে গ্রেপ্তার আতংকে বিএনপি নেতারা

BNP Logo ডেস্ক: ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধের পাশাপাশি দেশব্যাপী এবং স্থানীয়ভাবে ডাকা হরতালে নাশকতার পর গ্রেপ্তার আতংকে বিএনপি এবং অঙ্গদলের নেতা কর্মীরা।এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সারাদেশে ২০ দলের ডাকা হরতালে কোনো পিকেটিং করতে দেখা যায়নি দলের নেতাকর্মীদের। আগের দিন রংপুর জেলা বিএনপির কাঙ্খিত পদবঞ্চিতরা হরতালের ডাক দিলেও তাদের কাউকেই মাঠে দেখা যায়নি। এমনকি জামায়াতসহ আর বাকি ১৮ দলের কোন নেতাকর্মীকে হরতালের মাঠে দেখা যায়নি।

তবে হরতাল চালাকালে রংপুর বিএনপি কার্যালয়ে নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সামছুজ্জামান সামুসহ বেশ কিছু নেতা অবস্থান করছিল। কিন্তু গ্রেপ্তার আতঙ্কে তারা কেউ অফিস থেকে রেব হননি।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সামছুজ্জান সামু জানান, প্রায় রাতেই আমার বাসার সামনে পুলিশ যায়। প্রধান গেটের সামনে অবস্থান করে। এমনকি সেখানে পুলিশের ভ্যান রাখা হয়। একইভাবে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান লাকুর বাড়িতেও পুলিশ যায়।

বিএনপি ও তাদের অঙ্গ ও সহযোগী দলের একাধিক সুত্র জানিয়েছে, নগর এবং জেলা বিএনপির কার্যকরি কমিটির নেতাদের বাড়িতে প্রায়ই পুলিশ যাচ্ছে। এতে করে গ্রেপ্তার এড়াতে রাতের বেলায় বাসা বাড়িতে কেউ অবস্থান করছেন না। এ অবস্থা দিন দিন প্রকট হচ্ছে। পুলিশ যাচ্ছে বিএনপির সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীদের বাড়িতেও।

যুবদল সভাপতি রইচ আহমেদ জানান যে তার বাড়িতেও পুলিশ নিয়মিত যাচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারাও বাড়িতে থাকছেন না রাতের বেলায়।

জানা গেছে, রংপুর বিএনপিতে নীরব দ্বন্দ থাকলেও তা প্রকাশ্যে রুপ নেয় গত প্রায় সাত মাস আগে বিএনপির নগর ও জেলা কমিটি অনুমোদন হওয়ার পর। পদপ্রাপ্ত আর পদবঞ্চিতদের একে অপরের মুখ দেখাদেখিও বন্ধ রয়েছে। কেন্দ্রীয় এবং স্থানীয়ভাবে দলের কর্মসুচি পালন করেন পৃথক পৃথকভাবে।

টানা অবরোধ এবং এর ফাঁকে ডাকা হরতালে রংপুরে কিছু বিচ্ছিন্ন সহিংস ঘটনা ঘটে। এই সহিংসতা, ভাংচুরের জন্য পুলিশ প্রশাসন ২০ দলীয় জোটকে দায়ী করছে। সর্বশেষ পেট্রল বোমায় ৫ জন নিহতের ঘটনার পর রংপুরসহ দেশব্যাপী চরম উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে।

মঙ্গলবার রাতে মিঠাপুকুরে পেট্রল বোমায় ৫ জন নিহত হওয়ার পর রংপুরে বুধ ও বৃহস্পতিবার কোন কর্মসুচি পালন করতে পারেনি বিএনপি জামায়াতের জোট।

এমনকি যে কোন মুল্যে আইনশৃংখলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রশাসনও রয়েছে হার্ড লাইনে।

পুলিশের সুত্র জানিয়েছে, জনগণের জান মালের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ সব সময় প্রস্তুত রয়েছে এবং থাকবে। তবে নিরাপরাধ কাউকে হয়রানী করা হবে না।

রংপুর নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সামছুজ্জামান সামু জানান, আমরা শান্তিপুর্ণ কর্মসচির মধ্যদিয়ে গণতান্ত্রিক অধিকার পালন এবং আদায় করতে চাই। কোন সহিংসতা করে নয়। বিএনপি গণতান্ত্রিক আন্দোলন করে। সহিংসতায় বিশ্বাসী নয়।

এ নিয়ে রংপুর কোতয়ালী থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, কেউ যাদ গ্রেপ্তার হওয়ার মত কাজ করলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। কাউকে হয়রাণী করা হবে না বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful