Templates by BIGtheme NET
আজ- সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০ :: ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ :: সময়- ১০ : ০১ অপরাহ্ন
Home / খোলা কলাম / ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী, ছিঃ রাজনীতি

ধন্যবাদ প্রধানমন্ত্রী, ছিঃ রাজনীতি

মহিউদ্দিন মখদুমী

“বাংলাদেশের সমাজবদ্ধ কোটি কোটি জনগণের চোখ টিভি স্ক্রিনে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার কাছে যাচ্ছেন কোকোর মৃত্যুতে সমবেদনা জানাতে। মাননীয় মানবিক প্রধানমন্ত্রী আপনাকে স্যালুট। এবার দু’জন পরস্পরে জড়িয়ে ধরে কাঁদুন। মনে করুন প্রিয় সন্তান,প্রিয় ক্ষমতা কারো হাতের মুঠিতে থাকে না বেশীদিন। একদিন সব শেষ হয়ে যাবে। মৃত্যু ঢেকে দেবে সব আয়োজন। দেশের কোটি কোটি মানুষের কথা ভেবে। দূর্ভাগা এই দেশটাকে ভালোবেসে একটি সিদ্ধান্তে আসুন। আপনাদের সুন্দর সম্মিলনের দৃশ্য দেখে আবেগে কাঁদবে বাংলাদেশ । কাঁদবে দেশের জনগণ। জানি এটি রাজনৈতিক কোন বিষয় নয়। তবু একবার আপনাদের আবেগ যেন ছিঁড়ে যায়। আশায় বুক বেঁধেছে জনগণ। আপনাদের দু’জনকে এক সাথে দেখার আগে আমি অনেকদিন পরে আজ এশার নামাজ পড়লাম। দোয়া করলাম হে আল্লাহ তুমি দুঃখী এই দেশটার উন্নয়নের জন্য তাহাদের ভিতরের আত্মটাকে সংবেদনশীল,সহজ করে দাও। দাও না আল্লাহ। তুমি তো সবই পারো। আমাদেরকে শান্তিতে থেকে তোমাকে সেজদা দেবার ব্যবস্থা করে দাও প্রভু। পুনশ্চ: যদি খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রীকে তার সাথে দেখা করার সুযোগ না দেন। তবে এটি ও হবে তার পরাজয়। যা অন্য জয় গুলোকে মুছে দেবে।”

গত শনিবার রাত ৮টায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই স্ট্যাটাসটি দিয়ে টিভির সামনে অপেক্ষায় ছিলাম। ভাবছিলাম কেমন হবে দেশের প্রধান দুটি দলের দুই পরস্পর বিরোধী নেতার এক সাথে হওয়ার দৃশ্যটি। রাজনৈতিক কোন কথা না হোক। রাজনৈতিক কোন আলোচনা না হোক। কোন আলো না জ্বলুক। পরস্পরে পরস্পরের সাথে দেখা টুকু হোক। বহুদিন তাদের এক সাথে দেখা হয়নি। দেখেনি জনগণ। যখন তাদের দু’জনের দেখা হবে তখন নিশ্চয়ই একটি আবেগ তাদের আচ্ছন্ন করে ফেলবে। দু’জনই নারী তো! নারীরা আবেগ সামলাতে পারে না। আবেগ চোখের জল হয়ে গড়িয়ে পড়ে। তারা দু’জনই আবেগে কাঁদতে পারে। এই কান্না টুকু চাই। এই কান্না টুকু দেখতে চাই। রাজনৈতিক অস্থিরতায় বাংলাদেশ কাঁদছে। এবার দু’নেত্রী কাঁদুক। যখন তারা কাঁদবে সমবেদনার একটি বোধ তাদের মনের এককোণে নিশ্চয়ই উঁকি দেবে। কান্নার সাথে তাদের এই সমবেদনার বোধ টুকু চাই। বাংলাদেশের জন্য সমবেদনার প্রয়োজন পড়েছে খুব। দু’নেত্রীর সমবেদনায় সমব্যথী না হলে বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক বিপর্যয়ের সমাধান হবে না। কিন্তু কোন কিছুই হলো না। আবেগ ছুঁয়ে যাবার ঘটনাটি ঘটলো না। গণতান্ত্রিক ইনজেকশনে পুত্র শোকে ঘুমিয়ে পড়েছেন খালেদা জিয়া। সমবেদনা জানাতে গেটের সামনে এসে ফিরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গেটের বাহিরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিতরে খালেদা জিয়া। মাঝামাঝি দাঁড়িয়ে ছিল বাংলাদেশ। দু’নেত্রীর দেখা না হওয়ায় তুমুল তোড়ে সেখানেই বসে কাঁদছিল বাংলাদেশ। আহ্ ! বাংলাদেশ তোমাকে আরও দগ্ধ হতে হবে আরও. আরও, আরও অনেকবার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কিছু সদিচ্ছা জনগণকে আবেগে টানে। সারল্যে সুন্দর সেই সদিচ্ছা গুলো আবেগ হয়ে ছাপ ফেলে মনে ভিতর। যেমন খালেদা জিয়ার ছেলে কোকোর মৃত্যুর পর সমবেদনা জানাতে যাবার সৎ সাহসটি। যে মুহূর্তে বিএনপি নেত্রীর ডাকে টানা অবরোধ চলছে। ঠিক এই মুহূর্তে সমবেদনা জানাতে যাবার ইচ্ছেটিকে কোন কারণে বন্দি না করে উদারদৃষ্টি ভঙ্গিতে দেখা উচিত। একজন মা,একজন মানবিক প্রধানমন্ত্রী বাহ্ আপনার সদিচ্ছার জন্য আপনাকে স্যালুট। আমি তো জানি আপনাদের দু’জনের দেখা হলে একটি বাঁধ ভেঙ্গে যেত। খুলে যেত গুমটা-বদ্ধ ভাব। যে রাজনীতি মৃত্যুর সমবেদনা জানাবার সময় সামনে এসে দাঁড়ায় বীভৎসতার বেশে। সেই রাজনীতি কতোটা ঘৃণ্য, কতোটা নোংরা, কতোটা লজ্জার ভাবতেই বলতে ইচ্ছে করে ছি-রাজনীতি। আমার এক সাংবাদিক বন্ধু বলেন, এই সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে যাওয়াটা রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছাড়া আর কিছুই না। বালু-সিমেন্টের ট্রাক, পিপার স্প্রে – এসবের সময় কোথায় ছিল সমবেদনা বা সৌজন্যতা? তাকে বোঝানোর দক্ষতা আমার নেই। শুধু এতটুকু বলি ‘পরিবর্তনের জন্য রাজনীতি’ বা ‘পলিটিক্স ফর চেঞ্জ’। পরিবর্তন অনেক ভাবেই হতে পারে।

বাংলাদেশের রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তন আনতে হবে। কোকোর মৃত্যুতে শোক জানাতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে খালেদা জিয়া দেখা হলে একটি পরিবর্তন আসতো। তা রাজনৈতিক না হোক, প্রকাশ্য না হোক। দু’নেত্রীর মনের ভিতর একটি পরিবর্তন কেটে কেটে বসে যেত। সেই পরিবর্তনটি একটু স্থায়ী হলে বাংলাদেশের রাজনীতির চলমান বিপর্যয় থেমে যেত। থেমে যেতে পারতো বাংলাদেশের কান্না। সুযোগ এসেও তা যখন হয়নি তখন ভেবে নিতে হবে আরও চরম অস্থিরতা নেমে আসুক রাজনীতিতে। এরপর থামুক যেখানে থামার। তখন শুরুটা করতে হবে নতুন বেশে। সেই দিনের জন্য অপেক্ষা। কোন কোন কষ্টের অপেক্ষা মধুরতা এনে দেয় কি না?

মহিউদ্দিন মখদুমী

মহিউদ্দিন মখদুমী

লেখক: সাংবাদিক ও উন্নয়ন কর্মী

umohi2020@gmail.com

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful