Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ১ : ৫০ পুর্বাহ্ন
Home / টপ নিউজ / রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ২ লাখ শিশু দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ২ লাখ শিশু দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে

সেন্ট্রাল ডেস্ক: রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় ২ লাখ শিশু দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে। তিস্তা, ধরলা, ঘাঘট, যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, নদ-নদীর দুর্গম চরাঞ্চল প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের শিশুরাই দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে সবচেয়ে বেশি। এছাড়াও প্রায় ১৫ হাজার নর-নারী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হিসাবে মানবেতর জীবনযাপন করছে। অপুষ্টি, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, চিকিৎসা ও পরিচর্যার অভাবে এসব শিশুরা দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে। জন্ম নিচ্ছে অন্ধ শিশুও।

জানা গেছে, দুর্গম চরাঞ্চলের ৮০ ভাগ মানুষ দারিদ্র্য সীমার নীচে বাস করে। এসব পরিবারের অধিকাংশ মানুষই কিষাণ অথবা দিনমজুর। পরিবারের মা ও শিশুরা পুষ্টিকর খাবার পায় না। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে শিশুরা জন্ম নিচ্ছে ও বেড়ে উঠছে সেই পরিবারে। জন্মের পর থেকে নবজাত শিশুরা পরিচর্যা পায় না। শিশু পরিচর্যা ও স্বাস্থ্য সম্পর্কে পরিবারে লোকজনদের কোন ধারণা নেই। মান্ধাতা আমলের নিয়ম নীতি এখনও তারা মেনে চলছে। আধুনিক শিশু সেবা সম্পর্কে কিছুই জানে না তারা। পায় না চিকিৎসা সেবা। স্বাস্থ্য সচেতনতা সম্পর্কে কোন ধারণাই তাদের কাছে পৌঁছেনি।

অপুষ্টিতে আক্রান্ত মা জন্ম দিচ্ছে বিকলাঙ্গ ও দৃষ্টিহীন শিশু। এ ছাড়া নদী শাসনের ফলে আবহাওয়া ও জলবায়ু পরিবর্তনে চরাঞ্চল পরিবেশ পাল্টে যাওয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে নানা রোগ। রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার কালি চর, বাকডোহরার চরসহ বিভিন্ন চরে গিয়ে দেখা গেছে সবুজ বনায়ন, বৃক্ষ, গাছপালা এ অঞ্চলে চোখেই পড়ে না। নদী ভাঙ্গনের ফলে প্রতিবছরই গ্রাম জনপদ বিলীন হচ্ছে। নদী পাড়ের মানুষ হচ্ছে গৃহহারা। নদী গ্রাস করছে বসতবাটি। গৃহহারা দরিদ্র পরিবারের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। এসব দরিদ্র হতদরিদ্র পরিবারের শিশুরাই অপুষ্টির শিকার হয়ে দৃষ্টি স্বল্পতায় ভুগছে। সম্প্রতি এক সেমিনারে এসব তথ্য উপস্থাপন করা হয়।

তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর সংখ্যা সাড়ে ৭ লাখ। যার মধ্যে উত্তরাঞ্চলেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর সংখ্যা ৩ লাখের ওপর। এর মধ্যে ৩০ হাজারের বেশি শিশু অন্ধত্ব বরণ করেছে। এসব হতদরিদ্র পরিবারের অভিযোগ দুর্গম এলাকার জনগণ চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে না। চিকিৎসা সেবার সুযোগ তাদের কাছে পৌঁছেনি।

জাতীয় চক্ষু পরিচর্যা ও অন্ধ কল্যাণ সমিতিও প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করে এমনই বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার জরিপ রিপোর্ট থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, রংপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, চরাঞ্চলের পরিবেশ ও জলবায়ুর ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। আবহাওয়া ও জলবায়ুর পরিবর্তনে রংপুর বিভাগে পরিবেশ বিপর্যস্ত। জনজীবনেও এর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তনে মাটিতে আয়োডিন, দস্তাসহ বিভিন্ন পদার্থের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। আয়োডিনের ঘাটতির কারণে উৎপাদিত ফসলেও ঘাটতি রয়েছে। আয়োডিনের অভাবে এ অঞ্চলে গলগন্ড রোগের বিস্তৃতি ঘটেছে। রংপুরের গঙ্গচড়ার মর্নেয়া, আলমবিদিতর, গজঘন্টা ইউনিয়ন, পীরগাছা, কাউনিয়ার উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম, গাইবান্ধার হরিপুর, ফজলুপুর, চরকৃষ্ণমনি, খাটিয়ামারি কালাসোনার চরের প্রায় প্রতিটি পরিবারে একাধিক দৃষ্টিহীন, দৃষ্টি স্বল্পতায় আক্রান্ত শিশুরা বেড়ে উঠছে অনিশ্চয়তার মধ্যে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful