Templates by BIGtheme NET
আজ- সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৭ : ০৮ পুর্বাহ্ন
Home / নীলফামারী / ডোমারে ৪০০০ টাকায় নবজাতক শিশু বিক্রি

ডোমারে ৪০০০ টাকায় নবজাতক শিশু বিক্রি

ইনজামাম-উল-হক, নীলফামারী ২৮ মার্চ ॥ নীলফামারী ডোমারে ৪০০০ হাজার টাকায় নবজাতক শিশু বিক্রি হওয়ায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নবজাতক শিশু বাচ্চাটিকে দেখতে শত শত মানুষের ভিড় করছে।

জানা যায়, নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার পাঙ্গামটুকপুর ইউনিয়নের মীর্জা পাঙ্গা আদর্শ গ্রামের আব্দুল সামাদ এর প্রথম কন্যা মোছা: কহিনুর বেগম(৩৩) এর সঙ্গে ১৩ বছর পূর্বে বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী ডিমলা উপজেলার পশ্চিম খড়িবাড়ী ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের নাউতারা গ্রামের মৃত তমিজদ্দিনের ছেলে আব্দুল করিম এর সাথে। বিয়ে হওয়ার ৭ বছর যেতে না যেতেই সন্তান রেখে আব্দুল করিম মারা যায়। এবং তার বিধবা স্ত্রী কোহিনুর বেগম ৪ সন্তান নিয়ে তাড় মৃত স্বামীর ভিটে থেকে মানুষের বাড়ীতে ঝি এর কাজ করে কষ্টে জীবন জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। এরেই সুবাদে প্রতিবেশী এক প্রভাবশালী মো: ফজলু হকের পুত্র মো: রাসেল ইসলাম কোহিনুরকে বিয়ে করা সহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তাড় সাথে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ মেলামেশায় লিপ্ত হয় এবং পেটে বাচ্চা ও আসে বিষয়টি কোহিনুর রাসেলকে জানালে এড়িয়ে যায় রাসেল।

অন্যদিকে এলাকাবাসী বিষয়টি নিয়ে কানাকানি করতে থাকলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। স্থানীয়রা জানান কোহিনুরকে জিজ্ঞেস করলে রাসেলের কথা বলে। বিষয়টি রাসেল ও তার পরিবারের লোকজন জানতে পেরে কোহিনুরকে বাচ্চা নষ্ট করতে বলে এবং হাতে ৫০০শত টাকা ধরিয়ে দিয়ে বাচ্চা নষ্ট করার হুমকি দেয়। নয়তো গ্রাম ছাড়া করবো।

বিচারের আশায় সমাজ পতিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিচার না পেয়ে অবশেষে নীলফামারী বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে একটি চার জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন পরে সেটি ডিমলা থানার এস আই এরশাদ তদন্ত করে তিনজনকে মামলা থেকে বাদ দিয়ে একজনকে আসামী করে কোর্টে চার্জসীট প্রেরণ করে।

অবশেষে দরিদ্র বাবার বাড়ীতে কোহিনুর আশ্রয় নিলে ও সারাদিন জুটে না একবেলা এক মুটো ভাত। ৪সন্তান নিয়ে বিপাকে পড়েছে কোহিনুর। এমতাঅবস্থায় কোহিনুর গত মঙ্গলবার একটি মেয়ে বাচ্চা প্রসব করে। এক দিকে অভাব অন্যদিকে অবৈধ সন্তানের কারণে মানুষের অপবাদ থেকে রেহাই পেতে নবজাতক শিশুটি ৪০০০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়।

নবজাতক শিশুটিকে কিনে নেয় প্রতিবেশী তহিদুল ইসলামের স্ত্রী রতনা বেগম। তার সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান আমার বিয়ে হয় ৪বছর পূর্বে আমার বাচ্চা না থাকার কারণে বাচ্চাটি ৪০০০ হাজার টাকা দিয়ে কিনে নেই।এবং আমি মেয়ে বাচ্চাটি নিজের বাচ্চা মনে করে প্রতিপালন করব।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful