Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ১০ : ৪৫ পুর্বাহ্ন
Home / গাইবান্ধা / সাদুল্যাপুরে আল-আমিন হত্যাকাণ্ডের খুনিদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসি দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

সাদুল্যাপুরে আল-আমিন হত্যাকাণ্ডের খুনিদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসি দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

জিল্লুর রহমান মন্ডল পলাশ, সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা): গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও খোদাবকস্ গ্রামের মৃত্যু মছির উদ্দিনের ছেলে আল-আমিন (৩৫) হত্যাকাণ্ডের খুনিদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও ফাঁসি দাবীতে মানববন্ধন রচনা করেছেন এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় সচেতন নাগরিক সমাজের আয়োজনে উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের ঘেঘারবাজার পাকা সড়কে এ কর্মসূচি শেষে তারা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। ঘণ্টা-ব্যাপী সড়কের দুই দিকে হাতে হাত ধরে দাঁড়িয়ে শিক্ষার্থী, যুব সমাজ, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক ব্যক্তি, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য ও নারী-পুরুষসহ কয়েক হাজার জনসাধারণ মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন। এ সময় হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসির দাবী সংবলিত বিভিন্ন ফেস্টুন, পোস্টার ও ব্যানার দেখা গেছে।

জানা গেছে, আল-আমিন হত্যাকা-ণ্ডের খুনিদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসি দাবীতে ভাতগ্রাম ও ফরিদপুর ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনসাধারণ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন শেষে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ঘেঘার বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাজার মোড়ে এসে শেষ হয়। পরে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন নিহত আল-আমিনের ভাই হোসাইন আলী রাঞ্জু, মেয়ে প্রান্ত, ভাতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এইচ এম মিলন আহম্মেদ, ফরিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আজম ম-ল নিরব, ইউপি সদস্য এমদাদুল হক ম-ল, আইয়ুব আলী, শিক্ষক নুরুন্নবী আকন্দ মজনু, ফরিদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি আল হেলাল আকন্দ, ভাতগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম প্রধান প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বীভৎস হত্যাকা- মধ্যযুগের বর্বরতাকে হার মানিয়েছে। এমন হত্যা-ণ্ডের সঙ্গে খুনিদের ফাঁসি দিলে সমাজে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। কিন্তু খুনিদের বাঁচানোর জন্য একটি মহল কাজ করছেন। অপরদিকে হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে হাজার হাজার মানুষ সোচ্চার হলেও পুলিশের ভূমিকা নিয়ে তারা প্রশ্ন তোলেন। তাই অশুভ অপচেষ্টায় যাতে হত্যাকারীরা রেহাই না পায় সেদিকে পুলিশকে খেয়াল রাখতে হবে বলেও দাবী তোলেন বক্তারা। এছাড়াও মানববন্ধনে বক্তারা হত্যাণ্ডের ঘটনায় খুনিদের দ্রুত ফাঁসি চান এবং অবিলম্বে জড়িত খুনিদের গ্রেপ্তারে ব্যর্থ হলে ধাপেরহাট মহাসড়ক অবরোধসহ কঠোর অন্দোলনের ঘোষণা দেন।

উল্লেখ্য- ১৮ মার্চ রাতে একই গ্রামের মৃত. সৈয়দার আলীর ছেলে শহিদুর ইসলামের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী বাহিনী আল-আমিনের বসতবাড়িতে হামলা করে। পরে তার দুই পায়ের কব্জি ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বিচ্ছিন্ন করে নৃশংসভাবে খুন করে। এসময় তাহাদুল ইসলাম (৪০) নামে অপর একজনের ডান পায়ের কব্জি কেটে বিচ্ছিন্ন করে। বর্তমানে তাহাদুল ঢাকার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে মৃত্যু যন্ত্রণায় পাঞ্জা লড়ছেন। এ ঘটনায় নিহতের ভাই হোসাইন আলী রাঞ্জু বাদী হয়ে ৩০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১৫-২০ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর হত্যাকা-ণ্ডের মুল ঘাতক শহিদুর রহমান (৪৫) ও তার ছোট ভাই মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা (৩৭) ও তার স্ত্রী সুমি বেগমকে (২৫) গ্রেপ্তার করেন পুলিশ। কিন্তু ঘটনার ২৫ দিন অতিবাহিত হলেও অন্য আসামিরা রয়েছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful