Templates by BIGtheme NET
আজ- শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১০ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৬ : ১১ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / উত্তরবঙ্গে ফরমালিনে সয়লাব পান, হুমকির মুখে পান বিলাসীদের স্বাস্থ্

উত্তরবঙ্গে ফরমালিনে সয়লাব পান, হুমকির মুখে পান বিলাসীদের স্বাস্থ্

ফরহাদুজ্জামান ফারুক, স্টাফ রিপোর্টার: উত্তরবঙ্গে বাজারগুলো জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকিমূলক রাসায়নিক পদার্থ সংবলিত ক্ষতিকারক ফরমালিন যুক্ত ভারতীয় পানে সয়লাব হয়ে গেছে। প্রতিদিন এই অঞ্চলে প্রায় সাড়ে ২৫ কোটি টাকার পান বিক্রি হচ্ছে বলে এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে। যার ৮০ ভাগই আসছে এই অঞ্চলের সীমান্ত পেড়িয়ে। পান বিলাসীরা এই পান সেবন করে জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন নিজের অজান্তেই। চিকিৎসক , পান আমদানি কারক, ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের সূত্রে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলার বিভিন্ন বাজারে অনুসন্ধান চালিয়ে ও একটি বেসরকারী সংস্থার পরিসংখ্যান থেকে পাওয়া তথ্যে প্রকাশ , প্রতিদিন এই অঞ্চলের হাটবাজার গুলোতে প্রায় ৩ লাখ ৮০ হাজার থেকে ৪ লাখ ২৫ হাজার বিরা পান বেচাকেনা হয়। প্রতি বিরায় পান থাকে ৮০ টি এবং বিরা প্রতি রকম অনুযায়ী গড়ে ২২০ টাকায় বিক্রি হয় তা এই অঞ্চলের বাজারে। সে অনুযায়ী এই অঞ্চলে প্রতিদিন প্রায় ২৪ কোটি ৮০ হাজার টাকার পান বিক্রি হয়। এসব পানের চালানের ৮০ ভাগই আসে উত্তরাঞ্চলের হিলি, বাংলাবান্দা, বুড়িমাড়ি, সোনা মসজিদ স্থল বন্দরসহ এই অঞ্চলের সীমান্ত গলিয়ে।

এসব পানের চালানের পুরোটাই বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ ফরমালিন যুক্ত। ফলে বাজারে সেগুলো থাকে তরতাজা, আকর্ষণীয়। পান বিলাসীরা প্রলুব্ধ হয়ে তা কিনে খায়। বাকী ৩০ ভাগ পান আসে কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা ও ঝিনাইদহ এলাকা থেকে। দেশী পানকে তরতাজা রাখার জন্য একশ্রেণীর মুনাফাখোর আড়তদার ব্যবসায়ী ফরামলিন মিশিয়ে বাজারে বিক্রি করছেন।

অনুসন্ধানকালে রংপুর সিটি বাজারের বেশ কয়েকজন পান ব্যবসায়ী নাম না প্রকাশের শর্তে পানে ফরমালিন দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে জানান, ‘প্রতি শুক্রবার ও মঙ্গলবার রংপুরে হিলি স্থলবন্দর থেকে ভারতীয় ফরমালিন যুক্ত পানের বিশাল চালান আসে। ভারতীয় এসব পান দেখতে খুবই তরতাজা। ’

নীলফামারীর জেলার জলঢাকা উপজেলার পান্তাপাড়া বাজারে বংশ পরস্পরায় পান ব্যবসায়ী নওশাদ আলী ও মোবারক আলী জানান, কয়েক বছর থেকে পানে ফরমালিন মেশানো হচেছ। আগে মেশানো হতো না। তারা জানান, ভারতীয় পানের পাশাপাশি চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ এলাকার পানের আড়তদাররাও পানে ফরমালিন মিশ্রণ করছে। আমরা যে অবস্থায় পাচ্ছি ব্যবসার খাতিরে তা নিয়ে এসেই পাইকারী ও খুচরা বিক্রি করছি।

এদিকে গাইবান্ধা জেলা শহরের পুরান বাজার হকার্স মার্কেট, নতুন বাজারের পাইকারী পান ব্যবসায়ী আবুল কাসেম, শামছুল, আল আমিন, জগদিশ, কুড়িগ্রাম বাজার, বগুড়ার বাজার, লালমনিরহাটের গোশালা বাজার, দিনাজপুরের এম.এ মার্কেট চক বাজার, বাহাদুর বাজার, রাজশাহীর সাহেব বাজারসহ বিভিন্ন এলাকার পাইকারী পান ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, পানে ফরমালিন মেশায় আমদানি কারক ও আড়তদাররা। পাইকারী ব্যবসায়ীরা কখনই পানে ফরমালিন মেশায় না । তারা বাজারজাত করে মাত্র।

উত্তরাঞ্চলের বৃহৎ পান আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান খন্দকার ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী হারুন অর রশিদ জানান, প্রতি মাসে গড়ে প্রায় ২৭৫ মেট্রিক টন পান ভারত থেকে আমদানি করেন। ভারতের উত্তর প্রদেশ ও ঝাড়খন্ড প্রদেশের চাঁদ হীরা থেকে এপ্রিল, মে, জুন সব চেয়ে বেশি পান আমদানি করা হয় উত্তরবঙ্গে। তিনি জানান, বিরা প্রতি ১২ টাকা ১৮ টাকা পর্যন্ত সরকারকে ট্যাক্স দিয়ে পান আমদানি করা হয়। তবে আমদানিকারকরা পানে ফরমালিন মেশান না বলে তিনি দাবি করেন । যদি পানে ফরমালিন থাকে তবে তা যেখান থেকে আমদানি করি তারাই মেশায়।

এদিকে ফরমালিন মিশিয়ে পান বিক্রি হচ্ছে এমন খবরে কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়েছেন খুচরা পান ব্যবসায়ী ও পান ভোজনকারীরা। রংপুর শাপলা চত্বরের খিলি-পান ব্যবসায়ী তসলিম মিয়া জানান, আমরা পান কিনে আনার পর দেখতে পাচ্ছি তা ১০/১৫ দিনেও পচন ধরছে না। বিষয়টি আমরা বুঝতে পারি নি। পানে যে ফরমালিন দেয়া হয়েছে এটা আমাদের জানা ছিল না।

রংপুর পায়রা চত্বরের পান ভেজান-কারী তোজাম্মেল হোসেন তজু গতকাল জানান, দিনে তিনি ৩০টিরও বেশী পান খান। ইদানীং সময়ে কিছু কিছু পান খেতে তিতা লাগে। কিন্তু পানে যে ফরমালিন মেশানো হয় তা তার জানা ছিল না।

রংপুর মেডিকেল কলেজের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. মোঃ নওশাদ আলী জানান, রাসায়নিক পদার্থ ফরমালিন মানব দেহের সব সিস্টেমেই আঘাত হানে। বিশেষ করে শরীরের পাকস্থলী, অন্ত্র, লিভার, কিডনি, ব্রেইন ফুস ফুস ও লিভারে আঘাত করে এসবের কার্যকারিতা ধীরে ধীরে নষ্ট করে দেয়। তিনি বলেন, এই অঞ্চলের মানুষের অন্যতম খাদ্যভাস পানে ফরমালিন মেশানোর বিষয়টি খুবই উদ্বেগজনক। এসব কারণেই এই অঞ্চলের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করছে।

রংপুর সিভিল সার্জন জানান, পানে ফরমালিন মিশ্রণের বিষয়টি খুবই উদ্বেগ জনক। কারণ ফরমালিন প্রাণী দেহে পচন রোধে ব্যবহার করা হয়। যা মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। তিনি বলেন, বিষয়টি তার আগে জানা ছিল না, খুব শীঘ্রই এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful