Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ৭ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৪ : ৫৬ অপরাহ্ন
Home / লালমনিরহাট / আদিতমারীতে কাজ না করায় ৩টি প্রকল্পের মাল ফেরত; প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে হুমকি

আদিতমারীতে কাজ না করায় ৩টি প্রকল্পের মাল ফেরত; প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে হুমকি

নিয়াজ আহম্মেদ সিপন, আদিতমারী (লালমনিরহাট): প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ না করায় কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি (কাবিখা) প্রকল্পের ৩টি প্রকল্পের বরাদ্দকৃত চাল কর্তন করেছে উপজেলা প্রশাসন। আর এ মাল কর্তন করায় পিআইওকে বদলীসহ লাঞ্ছিত করার হুমকির দিচ্ছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের লোকজন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার মাল কর্তন করার ঘটনা এটিই প্রথম। যা এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানাগেছে, চলতি অর্থ বছরে কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচি প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায় উপজেলা পরিষদের ১৮টি প্রকল্পের বিপরীতে ১৫৩.৩৩০ মেঃটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। আর স্থানীয় সাংসদের ১৮টি প্রকল্পের বিপরীতে ১৪৮.০০০ মেঃটন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। এরমধ্যে উপজেলা পরিষদের ১৮টি প্রকল্পের মধ্যে ৩টি প্রকল্পের প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ না করে একাধিকার চূড়ান্ত কিস্তির চাল উত্তোলনের জন্য প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে নানাভাবে হুমকি প্রদান করেন ওই প্রকল্পের প্রকল্প চেয়ারম্যানরা। এদিকে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার প থেকে সঠিকভাবে কাজ সম্পাদন করার জন্য একাধিকবার পত্র দেয়া হলেও গুরুত্ব দেননি ওই ৩টি প্রকল্পের প্রকল্প চেয়ারম্যানরা। এসব অভিযোগ করেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নুরুন্নবী সরকার। আর প্রথম পর্যায় বরাদ্দকৃত মাল উত্তোলনের শেষ তারিখ ছিল গত ১৫ মে। অবশেষে প্রাক্কলন অনুযায়ী প্রকল্প ৩টির কাজ না করায় গত ১৫মে বরাদ্দকৃত চাল থেকে মাল কর্তন করে ডিও লেটার প্রদান করেন উপজেলা প্রশাসন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে সরকার দলীয় নেতারা দিনভর পিআইওকে মোবাইল ফোনে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ আগামী ৭দিনের মধ্যে স্ট্যান্ড রিলিজ করারও হুমকি দেন বলেন প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা অভিযোগ করেন।
এদিকে প্রকল্প ৩টি হলোঃ উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের শঠিবাড়ি নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট ও উন্নয়ন। এ প্রকল্পের প্রকল্প চেয়ারম্যান দুর্গাপুর ইউপি চেয়ারম্যান ছালেকুজ্জামান প্রামাণিক। যার প্রকল্প নং-০৩। বরাদ্দ ১০ মেঃটন। আর প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ না করায় এ প্রকল্প থেকে মাল কর্তন করা হয়েছে ৩.৪৯৮ মেঃটন। একই ইউনিয়নের উত্তর গোবধা মৌজার রনজিৎ কুমার রায়ের বাড়ি হতে মোহাম্মদ আলীর বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা পুণঃ নির্মাণ। প্রকল্প চেয়ারম্যান বেলাল হোসেন। যার প্রকল্প নং-০২। বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮ মেঃটন। এ প্রকল্প থেকে মাল কর্তন করা হয়েছে ৩.৫৭২ মেঃ টন। এ প্রকল্পটি মূলত উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের। আদিতমারী মৌজার বটতলা হতে মালিটারী চৌপথি পর্যন্ত রাস্তা পুনঃ নির্মাণ। এ প্রকল্পের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম। প্রকল্প নং-১৪। এ প্রকল্পের বিপরীতে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮ মেঃটন। আর প্রাক্কলন অনুযায়ী কাজ না করায় কর্তন করা হয়েছে ২.৫০০ মেঃটন। এ প্রকল্পটি মূলত উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের বলে জানা গেছে।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) নুরুন্নবী সরকার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মাল কর্তন করার পর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের লোকজন মোবাইলে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করাসহ বদলীর হুমকি দিচ্ছেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রেজাউল আলম সরকার বলেন, প্রাক্কলন (ডিজাউন) অনুযায়ী ওই ৩টি প্রকল্পের কাজ না করায় প্রকল্পের বরাদ্দ থেকে মাল কর্তন করা হয়েছে।

 

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful