Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ৮ : ৫৮ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / চার মাসে ২ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা আয়; রংপুরের উৎপাদিত পাটের ইয়ার্ন এখন বিদেশে

চার মাসে ২ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা আয়; রংপুরের উৎপাদিত পাটের ইয়ার্ন এখন বিদেশে

স্টাফ রিপোর্টার: রংপুরের জুট মিলের উৎপাদিত পাটের ইয়ার্ন দেশের গন্ডি পেরিয়ে এখন বিদেশে রফতানি হচ্ছে। উৎপাদনে যাওয়ার মাত্র চার মাসের মধ্যে পাটকলটি ভারতে ইয়ার্ন রফতানি করে আয় করেছে প্রায় দুই কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা এবং অর্জন করেছে এ অঞ্চলের প্রথম ইয়ার্ন রফতানিকারক জুটমিলের গৌরব। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরান জুটমিলটির পাটের ইয়ার্ন নেয়ার আগ্রহ দেখিয়েছে। তবে ইয়ার্নের ব্যাপক চাহিদা পূরণে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে সদ্য প্রতিষ্ঠিত জুট মিলটি। এদিকে শুধু কৃষি কাজ নির্ভর পীরগাছা উপজেলার প্রায় তিন শতাধিক নারী-পুরুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে জুটমিল কর্র্তৃপক্ষ তাদের কৃষিপণ্যের ওপর নির্ভরশীলতা অনেকটা কমিয়ে আনতে অবদান রাখছে।

রংপুরের অন্যতম প্রতিষ্ঠান মোতাহার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েক বছর আগে পীরগাছা উপজেলার আলাদী পাড়ায় কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণের জন্য ৪ একর জায়গা ক্রয় করে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ কোল্ড স্টোরেজ নির্মাণের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে জুটমিল নির্মাণ করে। ২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ইন্ডিয়া ও চায়না থেকে মেশিন এনে জুট মিলে বসানো হয়েছে।

জুট মিল সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন পাট থেকে ১০ টন (৬ টন ইয়ার্ন এবং ৪ টন বস্তা) উৎপাদনের ক্ষমতা থাকলেও অদক্ষ শ্রমিকদের জন্য তা পূরণ হচ্ছে না। প্রতিদিন অস্থায়ী ভিত্তিতে প্রায় তিন শতাধিক স্থানীয় নারী পুরুষ দুই শিফটে কাজ করছে। অস্থয়ী শ্রমিকদের ১শ ৫০ টাকা করে প্রতিদিন হাজিরার ভিত্তিতে প্রত্যেক বৃহস্পতিবার টাকা পেমেন্ট করা হয়। তবে দক্ষ শ্রমিকদের অনেকে ৩শ টাকা পর্যন্ত হাজিরা পেয়ে থাকেন। এ ছাড়াও রয়েছে ৫০ জন দক্ষ কারিগর। মোট শ্রমিকের ৬০ ভাগ হচ্ছে নারী শ্রমিক। যাদের অধিকাংশ আগে ছিল গৃহিণী।

সরেজমিনে জুটমিল ঘুরে দেখা গেছে ব্যাপক কর্মচাঞ্চল্য। কেউ কেউ ব্যস্ত পাট সংগ্রহ করে নির্দিষ্ট স্থানে রাখছে আবার অনেকে ব্যস্ত পাটের বস্তা এবং ইয়ার্ন পরিপাটি করে রাখছে। এ সময় কথা হয় উপজেলা শহরের নারী শ্রমিক আরিফা বেগম, দেওতির বিলকিস বেগম এবং কল্যানী গ্রামের শিল্পী খাতুনের সাথে। তারা জানায়, আগে তারা কোথাও কাজ করতো না। কৃষক স্বামীর আয়ে সংসার চালাতে হতো। এতে সংসারের অভাব দূর হতো না। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির ফলে স্বামী-সন্তান নিয়ে খেয়ে না খেয়ে থাকতে হতো। এখন কাজ করার ফলে পরিবারে সচ্ছলতা এসেছে। অভিজ্ঞতা না থাকা সত্ত্বেও জুটমিলে কাজ শুরু করলেও কর্তৃপক্ষ তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছেন। পুরুষ শ্রমিক মাসুদ আহমেদ এবং খায়রুল আলম বলেন, আগে পাবনা জুট মিলে কাজ করতেন। কিন্তু যে টাকা পেতেন তা দিয়ে নিজের থাকা খাওয়া চলতো কিন্তু পরিবারে পাঠানো হতো না। তাই যখন জানতে পারলাম বাড়ির কাছে জুটমিল নির্মিত হয়েছে আর কোন কিছু না ভেবে এখানে এসেছি। এখন বাড়িতে থেকে কাজ করতে পারায় সন্তানদের লেখাপড়ায় খোঁজখবর নেয়া ছাড়াও কৃষিকাজ করতে পারছি।

প্রতিদিন জুট মিলে কাঁচামাল হিসেবে ২শ’ মণ পাট প্রয়োজন হওয়ায় অনেকে বিভিন্ন জায়গা থেকে পাট এনে মিলে সরবরাহ করে বাড়তি আয় করছে। এছাড়াও কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর, পাবনার কাশিনাথপুর, ফরিদপুর এবং গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জের ব্যবসায়ীরা তাদের স্থানীয় পাঠ সরবরাহ করছেন। জুট মিল সূত্রে জানা গেছে প্রতি মণ পাট প্রকার ভেদে ১২শ’ থেকে ১৬ টাকায় কেনা হয়। ইয়ার্নের পাশাপাশি মিলে উৎপাদিত বস্তা স্থানীয় বাজারে সরবরাহ করা হচ্ছে। বৈদেশিক বাজারের মতো দেশেও পাটজাত দ্রব্যের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তবে দেশের বাইরে পাটজাত পণ্যের দাম ভাল পাওয়া যায়। এফবিসিসিআই এর পরিচালক এবং মোতাহার গ্রুপ অব ইন্ডাস্টিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু বলেন, চার মাসে ৫শ টন পাটের ইয়ার্ন ভারতে রফতানি করা হয়েছে। প্রতি টনের মূল্য পাওয়া গেছে প্রকার ভেদে ৭৪০ থেকে ৭৮০ ডলার। শুধু ভারতেই ব্যাপক ইয়ার্নের চাহিদা রয়েছে। তিনি বলেন, প্রতি মাসে ১৫০ টন ইয়ার্ন উৎপাদনের করার মতো ক্ষমতা থাকলেও অদক্ষ শ্রমিকের জন্য মাসে উৎপাদন হচ্ছে ১২০ টন। মিলের ৯০ ভাগ শ্রমিক স্থানীয়। যাদের হাতে কলমে কাজ শেখানো হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, মধ্য প্রাচ্যের দেশ ইরান পাটের ইয়ার্ন আমদানি করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু দেশটির ওপর আমেরিকার বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা থাকায় সমস্যা হচ্ছে। জুট মিলটিতে স্থাপনে ইসলামী ব্যাংকের ১৪ কোটি টাকা ঋণ সহায়তা আছে। ঋণ সহায়তার না পাওয়ার কারণে শিল্প কারখানা স্থাপন সম্ভব হয়না এ ধরনের যুক্তি অবান্তর। তিনি মনে করেন শিল্প কারখানা স্থাপনের জন্য চাই উদ্যোক্তাদের উদ্যমী মনোভাব এবং আন্তরিকতা। তিনি রংপুরে উদ্যোক্তাদের কৃষিনির্ভর শিল্প কারখানা স্থাপনে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful