Templates by BIGtheme NET
আজ- বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০ :: ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ১১ : ৩০ অপরাহ্ন
Home / টপ নিউজ / আমি কাজ করতে ভালোবাসি, আকাশে মেঘ দেখলে আমার ঘুম হয় না- রংপুরে ওবায়দুল কাদের

আমি কাজ করতে ভালোবাসি, আকাশে মেঘ দেখলে আমার ঘুম হয় না- রংপুরে ওবায়দুল কাদের

পীরগঞ্জে প্রতিনিধি: যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, মন্ত্রীর কাজ জনগণকে খুশী করা, জনগণের কাজ মন্ত্রীকে খুশী করা নয়। গাড়ীর বহর নিয়ে চলাটা আমার পছন্দ নয়। আমি কাজ করতে ভালোবাসি, আকাশে মেঘ দেখলে আমার ঘুম হয় না।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটায় রংপুরের পীরগঞ্জে করতোয়া নদীর কাঁচদহের ঘাটে নির্মাণাধীন ড.ওয়াজেদ মিয়া সেতু পরিদর্শণে এসে সেতুর উপরে গণমাধ্যম কর্মী এবং উপস্থিত জনতার সামনে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি মোতাবেক নির্মিতব্য এ সেতু আগামী জুন মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নিজেই উদ্বোধন করবেন।

এ সেতু উদ্বোধনের পর পীরগঞ্জবাসির সামনে নতুন দিগন্তের সৃষ্টি হবে। এতো বিপুল পরিমাণ মানুষের উপস্থিতিই প্রমাণ করে এসেতুটির কতো প্রয়োজন। কিন্ত বিগত সরকার আপনাদের সে সুযোগ থেকে বঞ্চিত করে রেখেছিল।

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য আজিজুল হক চৌধুরী, সড়ক ও জনপদ রংপুর জোনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আরিফুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী সাদেকুল ইসলাম, দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হামিদুলক, নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবীব, পীরগঞ্জ উপজেলা নির্কাহী কর্মকর্তা রফিকুল হক, পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহারুল হক বাবলু, সম্পাদক তাজিমুল ইসলাম শামীম, সাবেক সভাপতি রওশন আরা ওয়াহেদ, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান মোনসেফা পারভীন প্রমুখ। শেষে মন্ত্রী পীরগঞ্জের ফতেপুরে ড.ওয়াজেদ মিয়ার কবর জেয়ারত করেন।
উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের ১৩ মে তৎকালীন যোগাযোগমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু আনুষ্ঠানিক ভাবে এ সেতুর ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেছিলেন। সে সময ৩ বছরে সেতুটি নির্মাণকাজ শেষ হওযার কথা থাকলেও দীর্ঘ ১১ বছরে শুধুমাত্র ৫টি ওয়েলের আংশিক কাজ করার পর চারদলীয় জোট সরকার সেতুটির নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়।

এরপর বর্তমান মহাজোট সরকার আবারো নতুন করে দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে সেতুটি নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু করে। ২০১১ সালে ২০ মার্চ সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন করতোয়া নদীর ওপর কাচঁদহ ঘাটে সেতুটির নির্মান কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন করেন।
সেতুটি নির্মাণে প্রাক্কলিক বরাদ্দ ধরা হয়েছে ১৮ কোটি ৩৫ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। ওয়েল ফাউন্ডেশনের উপর প্রি-স্ট্রেস ও গার্ডার টাইপের সেতুটির দৈর্ঘ্য ২৭৮ দশমিক ৮৮৫ মিটার (সংশোধিত ৩০৩ দশমিক ২৭মিটার), প্রস্থ ১০ দশমিক ২৫০ মিটার,স্প্যান সংখ্যা ৭টি, পিলার ৬টি, এ্যাবার্টমেন্ট ২টি, ওয়েলের গভীরতা ২৫মিটার।

দু’পার্শ্বে সংযোগ সডকের মধ্যে পীরগঞ্জ অংশের ৫’শ মিটার এবং দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ অংশে ৬৫০ মিটার। সেতুটি চালু হলে উত্তর জনপদের গাইবান্ধা, রংপুর, দিনাজপুর জেলার সাথে সড়ক পথে প্রায় ৮০ কিলো মিটার দুরত্ব কমে আসবে।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful