Templates by BIGtheme NET
আজ- মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ :: ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ :: সময়- ১ : ০০ অপরাহ্ন
Home / গাইবান্ধা / গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ এখন অরক্ষিত-আতঙ্কের জনপদ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ এখন অরক্ষিত-আতঙ্কের জনপদ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি: গত ২৮ ফেব্রুয়ারি জামায়াত-শিবিরের সহিংসতার জের ধরে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা এখন অরক্ষিত ও আতঙ্কের জনপদে পরিণত হয়েছে। পুলিশের গ্রেপ্তার আতঙ্ক আর পুলিশসহ সংঘবদ্ধ চক্র আর এক শ্রেণির নেতাকর্মীর গ্রেপ্তার বাণিজ্যে বিপন্ন এলাকার সর্বস্তরের জনতা। ফলে গোটা উপজেলায় স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা ও ঘরবাড়ি ছাড়া হয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। ফলে ব্যবসা-বাণিজ্য ও কৃষিকাজে নেমে এসেছে স্থবিরতা। বিঘ্নিত হচ্ছে লেখাপড়া।

সুন্দরগঞ্জে বিভিন্ন এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন করে অসহায় মানুষদের সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে। ২৮ ফেব্রুয়ারি জামায়াত নেতা দেলওয়ার হোসেন সাঈদীর ফাঁসির রায় দেয়াকে কেন্দ্র করে সুন্দরগঞ্জে জামায়াত শিবিরের ভয়াবহ তাণ্ডবে ৪ জন পুলিশ সহ ৫ জন নিহত হয়। এছাড়া বামনডাঙ্গা রেল স্টেশন, পুলিশ ফাঁড়ি, আ’লীগ অফিস, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করা হয়।এই ঘটনায় এ উপজেলার সুনির্দিষ্ট ১ হাজার ৩৬৪ জনসহ অজ্ঞাত পরিচয়ে ৬০ হাজার ব্যক্তির নামে ৩২টি মামলা হয়। এজাহার নামীয় এবং ঘটনার মূল হোতাদের গ্রেফতার করতে সম না হলেও পুলিশ প্রতিনিয়তই সুন্দরগঞ্জ থেকে কাউকে না কাউকে গ্রেপ্তার করছে। যাদের অধিকাংশরই এজাহারে নাম নেই। এছাড়া আ’লীগ, জাপা বা অন্য দলের কর্মীসহ ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্টতা নেই এমন অসহায় মানুষও হয়রানিমূলক গ্রেফতারের শিকার হচ্ছেন। এমনকি গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর জেলগেট থেকেই আবার অনেককে আটক করে তাদের অন্য মামলায় জেলে ঢুকানো হয়। এত বিপুল সংখ্যক আসামি করে মামলা করা হলেও এ পর্যন্ত পুলিশ মাত্র ১৭৭ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। যাদের মধ্যে অধিকাংশই তালিকাভুক্ত আসামি নয়। পুলিশের এ গ্রেফতার তৎপরতা অব্যাহত থাকলেও এখন পর্যন্ত পুলিশ সন্ত্রাসী তাণ্ডবের মূল হোতাদের একজনকেও গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

জানা গেছে সুন্দরগঞ্জ থানা পুলিশকে এড়িয়ে এবং গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে তাদের হাওলায় না দিয়ে গাইবান্ধা থেকে ডিবি পুলিশের লোকজন এই গ্রেপ্তার তৎপরতা চালাচ্ছে। এছাড়া ধৃত আসামীকে আইন বহির্ভূতভাবে জিজ্ঞাসাবাদের নামে একাধিক দিন তাদের হাওলায় আটক রেখে পরে কোর্টে চালান দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য গত এপ্রিল মাসে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবীবের সভাপতিত্বে সন্ত্রাস ও নাশকতা সংক্রান্ত  প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। এব্যাপারে ওই সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে, নিরপরাধ ব্যক্তি যাতে নিশ্চিন্তে  নিজ বাড়িতে অবস্থান করতে পারে এবং প্রকৃত আসামি না ধরে নিরপরাধ লোককে যেন গ্রেফতার করা না হয় সেব্যাপারে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়।

Social Media Sharing

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful