আর্কাইভ  সোমবার ● ৩০ জানুয়ারী ২০২৩ ● ১৭ মাঘ ১৪২৯
আর্কাইভ   সোমবার ● ৩০ জানুয়ারী ২০২৩
 width=
 width=
শিরোনাম: নীলফামারী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ২৬ জন ছাত্রীর মানববন্ধন       নীলফামারী আইনজীবী সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি মমতাজুল ও সাধারণ সম্পাদক অক্ষয়       অপচয় বন্ধে করতে গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করেছি: ডা. দীপু মনি       এসএসসি-সমমানের পরীক্ষা শুরু ৩০ এপ্রিল       জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০২১ পাচ্ছেন যারা      
 width=

আমরাও নির্বাচনে না যাওয়ার চিন্তা করছি: রংপুরে জাপা মহাসচিব

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, বিকাল ০৫:২৫

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু এমপি অভিযোগ করে বলেছেন ইউনিয়ন পরিষদে নৌকার দলীয় এবং বিদ্রোহী প্রার্থীদের সহিংসতা বিষয়টি উদ্বেগজনক। নৌকার প্রার্থীরা চায় লাঙ্গলের প্রার্থীরা মনোনয়ন প্রত্যাহার করুক এবং তারা বিনা ভোটে বিজয়ী হোক। এই অবস্থা চলমান থাকলে বিএনপি’র মতো জাতীয় পার্টিও আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেবে না।
 
শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) জুমার নামাজের পর রংপুর মহানগরীর পল্লী নিবাসে জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারত শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। 

মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অরাজকতার বিষয়টি আমি সংসদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি। আমি তাকে বলেছি, আপনার নৌকার প্রার্থীরা চান আমাদের লাঙ্গলের প্রার্থীরা তাদের প্রার্থিতা তুলে নিক আর তারা বিনা ভোটে নির্বাচিত হোক। যারা নাকি সরকারি দল নৌকা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করতে চায়, তারা ভোট না জোট করে নিবেন এই কষ্টটা তারা করতে চান না।

তিনি আরও বলেন, আমি পার্লামেন্টে প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি, আপনি আপনার কর্মীদের একটু বলেন, তাদেরকে একটু নিয়ন্ত্রণ করেন। কারণ এভাবে যদি নির্বাচনের অবস্থা চলে তাহলে বিএনপির মতো আগামীতেও জাতীয় পার্টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে যাবে কিনা সে বিষয়ে নতুন ভাবে সিদ্ধান্ত নিবে। নির্বাচনে জোট একটি ফ্যাশন। বিগত সময়ে নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের সাথে জোট করেছিল। এখন তাদের সাথে আমাদের আর কোনো জোট নেই।

আগামী নির্বাচনে এককভাবে জাতীয় পার্টি অংশগ্রহণ করবে উল্লেখ করে দলটির মহাসচিব আরও বলেন, মানুষ বিএনপি আর আওয়ামী লীগকে আর চায় না। তারা জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়। এজন্য জনমুখী দল হিসেবে জাতীয় পার্টি কাজ করছে।

এ সময় জাতীয় পার্টির সাবেক মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, প্রেসিডিয়াম সদস্য রংপুর সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মহানগর সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াসির, জেলা সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুর রাজ্জাকসহ কেন্দ্রীয় এবং স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে তিনি নেতাকর্মীদের নিয়ে এরশাদের কবর জিয়ারত,  ফাতেহা পাঠ এবং মোনাজাত শেষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন


Link copied