আর্কাইভ  রবিবার ● ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ● ১০ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   রবিবার ● ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
 
 
শিরোনাম: মরিয়ম মান্নানের মা জীবিত উদ্ধার; ছিলেন স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে       ডেপুটি স্পিকারের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ       এনআইডিতে লাগবে ১০ আঙুলের ছাপ       গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিক, সম্পাদক মোজাম্মেল       ঠাকুরগাঁওয়ে মোটরসাইকেলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ২      

কুড়িগ্রামে হত্যার দায়ে দুইজনকে যাবজ্জীবন

মঙ্গলবার, ৮ মার্চ ২০২২, রাত ০৯:১২

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে মাইক্রোবাস ছিনতাই ও এর ড্রাইভারকে হত্যার দায়ে মাহাম্মদ হোসেন ওরফে পারভেজ (২৭) এবং তৌহিদুল ইসলাম (৩২) নামে দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সাথে তাদের প্রত্যেককে আরো ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে এ আদেশ প্রদান করেন কুড়িগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ মো.আব্দুল মান্নান।

জানা যায়, জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলার শশারিয়া খানপাড়া এলাকার বাদশা খানের ছেলে শহিদুর রহমান ঢাকার দক্ষিণ খান মধ্যপাড়া জামতলা এলাকার তৈয়বুর রহমানের একটি মাইক্রোবাস চালাতেন। ২০০৯ সালের ২৯ জুন মালিকের মাধ্যমে রংপুর যাওয়ার কথা বলে মাইক্রোবাস ভাড়া নেন আসামীরা। পরে চালক শহিদার রহমানকে হত্যা করে আসামিরা জেলার উলিপুর উপজেলার কাজলডাঙ্গা এলাকায় মরদেহ ফেলে চলে যান। এরপর ৩০ জুন রাতে কুড়িগ্রাম জেলা শহর হয়ে পালানোর সময় কলেজ মোড় এলাকায় পুলিশ রবিউল ইসলাম ও মাহাম্মদ হোসেন ওরফে পারভেজকে আটক করে।এসময় তৌহিদুল ইসলাম পালিয়ে যান।

এ অবস্থায় গাড়িতে থাকা শহিদুর রহমানের ড্রাইভিং লাইসেন্স থেকে পাওয়া ঠিকানায় খবর দিলে নিহত চালকের স্বজনরা এসে তার লাশ শনাক্ত করেন। এরপর ওই বছরের জুলাই মাসের ১ তারিখ নিহতের ভাই ছাইদুর রহমান খান বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামি করে উলিপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মঙ্গলবার দুপুরে মাহাম্মদ হোসেন ওরফে পারভেজ এবং তৌহিদুল ইসলামকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ প্রদান করেন আদালত।

এছাড়া আসামি রবিউল ইসলামের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়। আসামি মাহাম্মদ হোসেন ওরফে পারভেজ রংপুর শহরের নিউ শালবন এলাকার মোস্তফা হোসেনের ছেলে এবং তৌহিদুল ইসলাম রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার শালটি গোপালপুর এলাকার মো. মোস্তফার ছেলে বলে জানা গেছে। 

মন্তব্য করুন


Link copied