আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ● ২৭ মাঘ ১৪২৯
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
 width=
 width=
শিরোনাম: দিনাজপুরে ৯২ হাজার পিচ ইয়াবাসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছেন র‍্যাব       আর কেউ নির্বাচন নিয়ে কোনো কথার সুযোগ পাবে না: প্রধানমন্ত্রী       ঠাকুরগাঁওয়ে এইচএসসিতে ফেল করায় গলায় ফাঁস দিয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্নহত্যা       রংপুরে অনলাইনে ভেটেনারি মেডিসিন বিক্রয়ের নামে প্রতারনাকারী গ্রেফতার       দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে ১৩ টি কলেজে পাশ করেনি কেউ      
 width=

দিনাজপুরে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুর, আহত ২৫

শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০২২, সকাল ০৯:৪৭

দিনাজপুর: দিনাজপুরের বিরল পৌরসভা নির্বাচনের একটি কেন্দ্রে এবং একই উপজেলার ১২ নং রাজারামপুর ইউনিয়নের অপর কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুর ও প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ নির্বাচনী দায়িত্বপালনকারী কর্মকর্তা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের ওপর হামলা হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শটগানের ৭ রাউন্ড গুলি ছুড়েছে পুলিশ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিরল পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের ব্রক্ষ্মপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে চারটায় ভোটগ্রহণ শেষ হয়। এরপর ফলাফল ঘোষণা করতে দেরি হওয়ায় কেন্দ্রের আশপাশে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলরপ্রার্থী আরিফুর রহমান এবং মামুনুর রশিদের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল।

পরে প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আবদুল লতিফ হাতে লেখা নির্বাচনী ফলাফল বিদ্যালয় ভবনের দেয়ালে টাঙাতে গেলে পরাজিত প্রার্থী মামুনুর রশিদের সমর্থকেরা চিৎকার শুরু করেন। তারা ইভিএম মেশিন থেকে পাওয়া কপি দেখতে চান। তখন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসান। এ সময় প্রিজাইডিং কর্মকর্তা গাড়িতে ভোটের সরঞ্জামাদি তুলে চলে আসতে উদ্যত হলে পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকেরা ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। এতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদুল হাসানের গাড়ির কাচ ভেঙে যায়। এ সময় কয়েকজন আহত হন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শাহিনুর ইসলাম প্রামাণিক সাংবাদিকদের জানান, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কমিশনার (পুরুষ) পদে দুজন প্রার্থী ছিলেন। উটপাখি প্রতীকে আরিফুর রহমান পেয়েছেন ৫৩৩ ভোট এবং ডালিম প্রতীকে মামুনুর রশিদ পেয়েছেন ৪৪৫ ভোট। পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকেরা হট্টগোল করার চেষ্টা করেছিলেন। তবে তারা প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করে সব মালামালসহ নিরাপদে উপজেলা নির্বাচন কেন্দ্রে পৌঁছেছেন।

এদিকে, বিরল উপজেলার ১২ নং রাজারামপুর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের কানাইবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে সাধারণ সদস্য পদের ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ ভোটগ্রহণে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সর্টগানের ৭ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করেছে।

কানাইবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা এ.এইচ.এম সালেহীন জানান, ফলাফল ঘোষণার সময় সাধারণ সদস্য পদে ৩ প্রার্থীর মধ্যে পরাজিত দুই প্রার্থী ঘোষিত ফলাফল নিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। ফলাফল ঘোষণা করে কেন্দ্র ত্যাগ করার সময় পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকরা তাদের কেন্দ্র ত্যাগে বাধা দেয় এবং আটকিয়ে রাখে। তাদের উদ্ধারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য সেখানে গেলে তাদেরও আটকিয়ে রাখে এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে ভোট কর্মকর্তাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ২০/২৫ জন সদস্য আহত হন। এ সময় সর্টগানের ৭ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করা হয়। প্রায় ১ ঘণ্টা পর তাদের উদ্ধার করা হয়।

বিরল থানার ওসি রেজাউল হাসান রেজা জানান, বিরল পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড এবং রাজারামপুর ইউনিয়নের কানাইবাড়ী ভোটকেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণার পর বিশৃঙ্খলা হয়েছে। পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুর করেছে। এই ঘটনায় আইনগত প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য করুন


Link copied