আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ৬ অক্টোবর ২০২২ ● ২১ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ৬ অক্টোবর ২০২২
 
 
শিরোনাম: দেশের মানুষ আজ নরকে বাস করছে-জিএম কাদের       গাইবান্ধায় লোকালয়ে হনুমান, উৎসুক জনতার ভিড়       নভেম্বরে বন্ধ হবে ৩০ লাখ মোবাইল সিম       কাঁটাতারের বেড়া ভালোবাসা ভাগ করতে পারেনি       করোনায় ২ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৫৪৯      

বাবা-ভাই জেলে, সাক্ষাতে এসে ধর্ষনের স্বীকার হলেন বোন

শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ০২:১৩

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার বড় পলাশবাড়ি ইউনিয়নের মোড়লহাট গ্রামের এক নবন শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষনের স্বীকার হয়ে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। বালিয়াডাঙ্গী ইউএনও'র ভ্রাম্যমান আদালতের রায়ে জেলে রয়েছে সেই মেয়ের বাবা ও ভাই। তাদের সাথে দেখা করতে আসার পথে অপহরন ও ধর্ষনের স্বীকার হয় মেয়েটি।

শনিবার দুপুরে বালিয়াডাঙ্গী থেকে শহরে আসার সময় একই এলাকার আসলাম, বাবুল সহ ৫-৬ জন মেয়েটির গলায় ছুড়ি ঠেকিয়ে অপহরন করে নিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে গ্যাং রেপ করা হলে মেয়েটি অজ্ঞান হয়ে যায়। রাত ১২টায় জেলা সদরের শ্রী কৃষ্টপুর ইক্ষু খামারে মেয়েটিকে এলাকাবাসি দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

রোববার হাসপাতালে মেয়েটির সাথে কথা হলে সে বলে, জমি নিয়ে সমস্যার কারনে পাশের বাসার প্রতিবেশি চাচারা তার বাবা ও ভাইকে জেলে দেয়। বাবা ভাইকে দেখতে আসার সময় সেই চাচারা তার অটোগাড়িতে উঠে গলায় ছুড়ি ধরে। পরে মাথায় আঘাত করলে সে অজ্ঞান হয়ে যায়। জ্ঞান ফিরলে সে দেখে একটি ঘরে তারা ৬জন তাকে ঘিরে ধরে আছে। পরে তার উপর নির্যাতন করা হলে সে আবার অজ্ঞান হয়ে যায়। তারপরে জ্ঞান ফিরলে সে দেখে তার অবস্থান সদর হাসপাতালে। 

মেয়েটির মা রেনজিত বেগম বলেন, আমাদের বাড়িতে কোন পুরুষ নাই৷ দুই ছেলের মধ্যে এক ছেলে পলাতক আরেক ছেলে ও স্বামী জেলখানায়৷ কালকে মেয়েটা দেখতে এসে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের স্বীকার হয়৷ এখন কি করব বুঝে উঠতে পারছিনা৷ 

ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত নার্স জানান, মেয়েটিকে নির্যাতনের ফলে তার যৌনাঙ্গ ফেটেঁ গিয়েছে। সেখানে ৪টি সেলাই দেওয়া হয়েছে। মাথায় আঘাত করায় সেখানে ক্ষত হয়েছে ও পেটেঁও ছুড়ির আঘাত রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বালীয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা( ওসি) খায়রুল আনাম বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন ধরনের অভিযোগ বা এজাহার পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মেয়েটির আমাদের থানার মধ্যে বাড়ি কি না সেজন্য আমাদের কর্মকর্তা সেখানে গিয়েছেন বিষয়টি তদন্ত করার জন্য। 

 

মন্তব্য করুন


Link copied