আর্কাইভ  শুক্রবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ● ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   শুক্রবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
 
 
শিরোনাম: রুপালি পর্দা- প্রেম, বিয়ে, সন্তান কেন এত অসম্মান?       ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হোক, ফিরিয়ে আনুন গোলাপি ভাব       বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ১০ দিন সকল প্রকার আমদানি রফতানি বন্ধ       বিদেশিদের কাছে বিএনপির অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী       পূজাকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন শাকিব      

মিতালি এক্সপ্রেসের ট্রায়াল রান সম্পন্ন

রবিবার, ২৯ মে ২০২২, রাত ১০:৪১

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী॥ আগামী ১ জুন থেকে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে আন্তঃদেশীয় তৃতীয় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হবে। এর জন্য দুই দেশের রেল মন্ত্রনালয় সকল প্রস্তুতি গ্রহন করে তৎপরতা শুরু করেছে। আর দুইদিন পরেই বানিজ্যিকভাবে  ট্রেনটির চাকা ঘুরতে যাচ্ছে। এদিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রেন চলাচলের পূর্বে ভারতের নিউজলপাইগুড়ি থেকে ৬৬টি কিলোমিটার সীমান্ত রেলগেট পর্যন্ত লার্নিং রোডের(এলআর) রুট পরিদর্শন করেছে ভারতীয় রেলের প্রস্তাবিত ওই যাত্রীবাহী ট্রেনেটি ৭ জন লোকো পাইলট ও গার্ডের একটি প্রতিনিধি দল নিয়ে।

রবিবার (২৯ মে) সকালেই ট্রেনটির লার্নিং সম্পন্ন করে নিউজলপাইগুড়ি ফিরে যায় মিতালি। নিয়ম অনুযায়ী নতুন রুটে ট্রেন চালানোর আগে লার্নিং রোডের(এলআর) করতে হয়। এতে ট্রেনের লোকো পাইলট ও গার্ডরা ওই রুটের সিগন্যাল ব্যবস্থা, লাইনের পরিস্থিতি, রুট নির্দেশিকা স¤পর্কে ধারণা নেয়। এসব জানা থাকলে ওই রুটে ট্রেন চালাতে আর সমস্যা থাকে না। যাত্রীবাহী ট্রেন চালানোর ক্ষেত্রে নিউজলপাইগুড়ি থেকে ভারতীয় রেলের লোকো পাইলট ও গার্ডরা বাংলাদেশের চিলাহাটি পর্যন্ত যাবে। চিলাহাটি থেকে বাংলাদেশের লোকো পাইলট ও গার্ডরা ট্রেনটিকে ঢাকা নিয়ে যাবে।আবার বাংলাদেশের লোকো পাইলট ও গার্ডরা ট্রেনটিকে ঢাকা থেকে ভারতের হলদিবাড়ি পর্যন্ত নিয়ে আসবে। এরপর ভারতীয় ইঞ্জিনের লোকো পাইলট ও গার্ডরা ট্রেনটিকে নিউজলপাইগুড়ি নিয়ে যাবেন। সুত্র মতে ভারতের নিউজলপাইগুড়ি (শিলিগুড়ি) থেকে ঢাকার মোট দুরত্ব ৫৩০ কিলোমিটার। এর মধ্যে ভারতীয় অংশে ৮৪ ও বাংলাদেশ অংশে ৪৪৬ কিলোমিটার। তবে কোন স্টেশনে ট্রেনটি যাত্রী উঠা নামানোর জন্য থামবেনা। যারা এই ট্রেনের যাত্রী হবেন তারা ঢাকায় উঠে নামবেন নিউজলপাইগুড়ি। আবার যে সকল যাত্রী নিউ জলপাইগুড়ি থেকে এই ট্রেনে উঠবেন তারা নামতে পারবেন ঢাকা ক্যান্টনম্যান্ট রেলস্টেশনে।এদিকে বাংলাদেশের রেলকোচ সংকটের কারনে মিতালি এক্সপ্রেস চলবে ভারতীয় রেল কোচে। তাই  নিউ জলপাইগুড়ি রেল ইয়ার্ড এ সাজিয়ে তোলা তোলা হচ্ছে ট্রেনটিকে। নতুন রূপে নতুন কোচে ভারতের কাটিহার ডিবিশনের উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের ট্রেনটি তদারকি করছেন।
সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, ভারতের নয়াদিল্লির রেল ভবন থেকে ভারত ও বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী  যথাক্রমে অশ্বিনী বৈষ্ণ এবং বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন যৌথভাবে ভার্চুয়ালি ভাবে ট্রেনটির প্রথম যাত্রার সুচনা করবেন।  এর আগে ২০২১ সালের বাংলদেশের সূর্বণজয়ন্তির ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বাংলাদেশের সফরে এসেছিলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সে সময়  ২৭ মার্চ ঢাকার গণভবনে বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যৌথ ভাবে  ট্রেনটি প্রতিকী উদ্ধোধন করে রেখেছিলেন।
ভারত থেকে মিতালি এক্সপ্রেস সপ্তাহে দুই দিন তথা রবিবার ও বুধবার চলবে। বহুকাঙ্খিত এই মিতালি এক্সপ্রেস নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে ছাড়বে। এপার-ওপার বাংলার 'মিতালি' এপার-ওপার বাংলার 'মিতালি' আপ মিতালি এক্সপ্রেস নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ভারতীয় সময় সকাল ১১:৪৫ মিনিটে ছাড়বে। ১২:৫৫ পৌঁছে যাবে হলদিবাড়ি।সেখান থেকে ১:০৫ মিনিটে ছাড়বে। ট্রেনটি বাংলাদেশের সময়ে ১:৫৫ তে নীলফামারীর চিলাহাটিতে পৌঁছবে। সেখান থেকে বাংলাদেশের সময়ে ২:২৫ এ ছাড়বে রাত ১০:৩০ মিনিটে ঢাকা পৌঁছবে। মিতালির সফরসূচি মিতালির সফরসূচি ফেরার সময়ও সপ্তাহে দুই দিন এই ট্রেন চলবে। বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসার জন্য এই ট্রেন চলবে সোমবার ও বৃহ¯পতিবার। ট্রেনটি বাংলাদেশের সময়ে ঢাকা থেকে ছাড়বে রাত ৯:৫০ মিনিটে। চিলাহাটি এসে পৌঁছবে ভোর ৫.৪৫ মিনিটে। সেখান থেকে ট্রেনটি ছাড়বে ভোর বাংলাদেশের সময়ে সময় ৬:১৫। হলদিবাড়ি তে পৌঁছবে ভারতীয় সময় ৬:০০। হলদিবাড়ি থেকে ৬:০৫ এ ট্রেনটি ছেড়ে নিউ জলপাইগুড়ি পৌছবে সকাল ৭.১৫।
রেল সূত্রে খবর, মিতালি ট্রেনে চারটি ফার্স্ট কাস এসি, চারটি এসি চেয়ার কার এবং দুটি লাগেজ-কাম-জেনারেটর ভ্যান থাকবে। ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট-নিউ জলপাইগুড়িতে চারটি ফার্স্ট কাস এসি (স্লিপার), চারটি এসি চেয়ার কার এবং দুটি লাগেজ-কাম-জেনারেটর ভ্যান থাকবে। রেল সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই টিকিট বিক্রি শুরু হয়ে গিয়েছে মিতালি এক্সপ্রেসের। এই ট্রেনের টিকেট অনলাইনে বা কোন মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে কাটা যাবে না। টিকেট পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশের ঢাকার কমলাপুর ও চট্রগ্রাম রেলস্টেশন কাউন্টারে। ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন  কলকাতা স্টেশন ও ফেয়ারলিপ্লেস থেকে এই টিকেট কাটা যাবে বলে জানা গিয়েছে। টিকিট কাটতে গেলে পাসপোর্ট, ভিসা সহ করোনা প্রতিরোধে টিকাদানের সনদ পত্র দেখাতে হবে।

মন্তব্য করুন


Link copied