আর্কাইভ  রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ● ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১

রংপুরে কমিউনিটি পুলিশিং দিবসে সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ার শপথ

শনিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২১, দুপুর ০৩:২৩

মমিনুল ইসলাম রিপন: রংপুরে স¤প্রীতির বাংলাদেশ গড়ার শপথ নিয়েছেন হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী অপশক্তি রুখতে তাঁদের সঙ্গে শপথে কণ্ঠ মিলিয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষজনও। শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে রংপুর নগরের বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্ত¡রে স¤প্রীতি সম্মেলনে এ শপথ বাক্য পাঠ করান মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ।

কমিউনিটি পুলিশিং দিবস উপলক্ষে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। এ বছর দিবসের প্রতিপাদ্য ¯েøাগান ‌‘মুজিববর্ষে পুলিশ নীতি, জনসেবা আর স¤প্রীতি’। সকাল সাড়ে দশটায় শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে শুরু হয় স¤প্রীতি সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সম্মত রেখে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন বক্তারা। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন মুসলিম ধর্মীয় নেতা বায়েজিদ হোসেন, হিন্দু ধর্মীয় নেতা ভক্তি প্রিয়ম গদাধর গোস্বামী মহারাজ, বৌদ্ধ ধর্মীয় নেতা শুভমিত্র ভিক্ষু, খৃীষ্টান ধর্মীয় নেতা বিজয় আকড়াসহ আরপিএমপির কর্মকর্তা ও কমিউনিটি পুলিশিংয়ের বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ও কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোছাদ্দেক হোসেন বাবলু।

সমাবেশ শেষে একই স্থানে স্বেচ্ছায় রক্তদান ও ডায়াবেটিস পরীক্ষা ক্যাম্প শুরু হয়। সেখানে বিনামূল্যে বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ রক্ত ও ডায়াবেটিস পরীক্ষা করানোর পাশাপাশি অনেকেই স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন। দুপুর সাড়ে বারোটায় রংপুর জিলা স্কুল মাঠে প্রীতি টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়াও দিনব্যাপী আয়োজনে ছিল মাহিগঞ্জের মেকুড়া সড়কের দু’পাশে ২ কিলোমিটার পর্যন্ত সহস্রাধিক গাছের চারা রোপন ও বিভিন্ন এলাকায় দুঃস্থদের মাঝে উন্নতমানের খাবার বিতরণ কর্মসূচি। বিকেলে রংপুর জিলা স্কুল অডিটরিয়ামে অসা¤প্রদায়িক বাংলাদেশ গঠনে কমিউনিটি পুলিশিং এর ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) যাত্রা শুরু করেন। প্রথম কমিশনার হিসেবে মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদের উদ্যোগে আরপিএমপির ৬টি থানা এলাকায় শুরু হয় কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম। ইতোমধ্যে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত কার্যক্রম ও সমাজ সেবামূলক উদ্যোগ সর্বস্তরে প্রশংসা অর্জন করেছে। 

মন্তব্য করুন


Link copied