আর্কাইভ  শুক্রবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ● ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   শুক্রবার ● ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
 
 
শিরোনাম: রুপালি পর্দা- প্রেম, বিয়ে, সন্তান কেন এত অসম্মান?       ঠোঁটের কালচে দাগ দূর হোক, ফিরিয়ে আনুন গোলাপি ভাব       বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে ১০ দিন সকল প্রকার আমদানি রফতানি বন্ধ       বিদেশিদের কাছে বিএনপির অপশাসনের চিত্র তুলে ধরুন: প্রধানমন্ত্রী       পূজাকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠিয়েছেন শাকিব      

রংপুরে তিন খুনের ঘটনায় দুই নারী গ্রেফতার

সোমবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ০৪:৩১

মমিনুল ইসলাম রিপন রংপুর,(১২ সেপ্টেম্বর ২০২২,)\ রংপুরের গঙ্গাচড়া চর বাগডোহরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তিন খুনের ঘটনায় শিশু মোনালিসা (১২) হত্যাকান্ডের ২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। সোমবার সকালে নগরীর কেরানীপাড়াস্থ সিআইডি রংপুর জোনের বিশেষ পুলিশ সুপার আতাউর রহমান সংবাদ সম্মেলনে জানান, ২০২১ সালের ৬ এপ্রিল আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সাবেক ইউপি সদস্য সাইফুলসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ইউপি সদস্য আজিজুল ইসলামকে হত্যা করে। এরপর সাইফুল তার আপন চাচাতো ভাই প্যারালাইজড রোগী রিয়াজুল ইসলামকে হত্যা করে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করে। রিয়াজুল হত্যাকান্ডটি তার নাতনী মোনালিসা দেখে ফেলায় তাকেও হত্যার চেষ্টা চালায় সাইফুল। প্রাণের ভয়ে শিশু মোনালিসাকে নিয়ে তার পিতা-মাতা গ্রাম ছেড়ে আত্মগোপনে চলে যায়। বিভিন্ন আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে দুই মাস আত্মগোপনে থেকে বাড়ি ফিরে আসে মোনালিসার পরিবার। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২১ সালের ৯ জুন দুপুর ১২টার দিকে বাড়িতে একা পেয়ে মোনালিসাকে হত্যা করে সাইফুল ও তার সহযোগিরা। এ ঘটনায় চলতি বছরের ৪ আগস্ট গঙ্গাচড়া থানায় মামলা হলে তদন্তভার দেয়া হয় সিআইডিকে। সিআইডির সদস্যরা অভিযান পরিচালনা করে বাগডোহরা থেকে আতিয়ার রহমানের স্ত্রী মোতাহারা বেগম ও মোনালিসার মামী আজিনুরের স্ত্রী ময়না বেগমকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ। এ ঘটনায় সিআইডি ময়না ও মোতাহারাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের কাছে একদিনের রিমান্ড আবেদন করে। আদালত রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করলে জিজ্ঞাসাবাদে আসামীরা হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে।

আতাউর রহমান বলেন, সাবেক ইউপি সদস্য সাইফুল তার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্য আজিজুলকে হত্যা করে। ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্য সে তার আপন চাচাতো ভাই রিয়াজুলকে হত্যা করে। সর্বশেষ রিয়াজুলের নাতনীকে হত্যা করে ঘরের গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মোনালিসার মুখে রক্ত দেখতে পাই। লাশটি উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোসহ ময়না তদন্ত করা হয়। তদন্তে মোনালিসাকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়। সিআইডি এ তিনটি হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করেছে। অন্যান্য আসামীরা গ্রেফতার হলেও মূল আসামী সাইফুল এখনও পলাতক রয়েছে। সে বিভিন্ন মানুষের সীমকার্ড ব্যবহার করছে এবং ঘনঘন স্থান পরিবর্তন করছে। আমরা আশাকরছি দ্রæত তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হব। 

 

মন্তব্য করুন


Link copied