আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ৪ অক্টোবর ২০২২ ● ১৯ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   মঙ্গলবার ● ৪ অক্টোবর ২০২২
 
 
শিরোনাম: রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত       পঞ্চগড়ে নৌডুবিতে ইজারাদার ও অদক্ষ মাঝিকে দায়ী করে প্রতিবেদন দাখিল       অপুকে ডিভোর্সের ১৪৮ দিন পর বুবলীকে বিয়ে করেন শাকিব       সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমল ১৪ টাকা       বিএনপির চেয়ে আওয়ামী লীগ এক ডিগ্রী বেশি- রংপুরে জিএম কাদের      

রংপুরে বাস- ট্রেনের টিকেট না পাওয়ায় সময়মত কর্মস্থলে ফেরা নিয়ে শঙ্কা

শনিবার, ৭ মে ২০২২, দুপুর ০৪:৫১

 মমিনুল ইসলাম রিপন, রংপুর, (৭ মে, ২০২২,): ঈদের ছুটি শেষে ঢাকার কর্মস্থলে বাস-ট্রেনের টিকিট না পাওয়ায় অনেকেই কর্মস্থলে সময়মত ফিরতে পাচ্ছেন না। বাস ও ট্রেনের টিকিট কোথাও নেই। ফলে নাড়ির টানে বাড়িতে ফিরে আসা মানুষগুলো কর্মস্থলে যেতে না পেরে চরম অস্বস্থিতে রয়েছেন। 

শনিবার সকালে নগরীর কামারপাড়া ঢাকা কোচ স্টান্ডে গিয়ে দেখা গেছে অসংখ্য যাত্রী টিকিট না পেয়ে ফিরে আসছে। কাউন্টার থেকে বলা হচ্ছে ১৪ এপ্রিলের আগে কোন টিকিট নেই। অথচ কালো বাজারে ৬০০ টাকার টিকিট এক থেকে দেড় হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ঢাকা গমনেচ্ছু সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রতিটি কাউন্টারে টিকিট রয়েছে। তার পরেও বলা হচ্ছে টিকিট নেই। এই কজ বাস টার্মিনালের একশ্রেণির অসাধু কর্মচারিা করছে। তিনি এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। 

শনিবার রংপুর রেল স্টেশন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে নিদিষ্ট দিনের টিকিট ৩ দিন আগে দেয়ার কথা। সকালে লাইনে লাইনের মাধ্যমে এই টিকিট দেয়া হচ্ছে। গভীর রাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও সকালে অনেকেই টিকিট পাচ্ছেননা। ১০/১২ জনকে টিকিট দেয়ার পরে কাউন্টার থেকে বলা হচ্ছে টিকিট শেষ। বাইরে কালো বাজারিদের হাতে টিকেট দেখা গেছে। এতে ট্রেনের টিকিট প্রত্যাশিরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে।

ঢাকাগামি টিকেট প্রত্যাশি আবিদ করিম বলেন,এখন যে পদ্ধতিতে টিকিট দেয়া হচ্ছে তাতে অনিয়ম হওয়ার কথা নয়। তার পরেও আমরা টিকিট পাচ্ছিনা। এর একটা বিহিত হওয়া প্রয়োজন। এছাড়া বিভিন্ন সরকার দলীয় নেতা ও ভিআইপিদের অজান্তে তাদের নামে টিকিট উত্তোলন করে কালোবাজারে বিক্রি করা হচ্ছে। 

ঢাকা থেকে কষ্ট করে এলেও ফিরতি পথে বাস-ট্রেনের টিকিট পেতে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। নগরীর শাহী পাড়া এলাকার ঢাকায় অবস্থানরত চাকরিজীবী মারুফ জানান, কাকডাকা ভোরে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট না পেয়ে ফিরে এসেছেন। ৮ থেকে ১০ জনকে টিকিট দেয়ার পর কাউন্টার থেকে সাফ জানিয়ে দিচ্ছে কোন টিকিট নেই। 

বাধ্য হয়ে ঢাকাগামিদের হয় দালালের মাধ্যমে না হয় স্টেশনের কাউকে ম্যানেজ করে টিকিট নিতে হচ্ছে। টিকিট কালোবাজারি রোধে পুলিশ ও র‌্যারের নজরদারি থাকা স্বত্বেও গোপনে চড়া দামে টিকিটগুলো হাত বদল হচ্ছে।

রংপুর রেল স্টেশনের সুপার শঙ্কর গাঙ্গুলি বলেন, নিয়ম মেনেই টিকিট বিক্রি হচ্ছে।

মন্তব্য করুন


Link copied