আর্কাইভ  সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১ ● ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১

রংপুরে মাদকসেবীর মৃত্যু ও থানায় হামলার ঘটনায় চার সদস্যতদন্ত কমিটি

বুধবার, ৩ নভেম্বর ২০২১, দুপুর ০২:০৩

মমিনুল ইসলাম রিপন: রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছে তাজুল ইসলাম (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে মাদক সেবনের দায়ে আটকের পর নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর থানায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের ঘটনায়  তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।রংপুর মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে বুধবার (৩ নভেম্বর) সকালে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

রংপুর মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (ডিবি অ্যান্ড মিডিয়া) সাজ্জাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।সাজ্জাদ হোসেন জানান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মেহেদুল করিমকে  প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন,  উপ-পুলিশ কমিশনার ( ডিবি) কাজী মুত্তাকি ইবনু মিনান, উপ-পুলিশ কমিশনার (সিটিএসবি) আবু বক্কর সিদ্দিক এবং সহকারী কমিশনার ( পরশুরাম জোন)  কাজী আরিফুজ্জামান।সার্বিক বিষয়ে তদন্ত করে কমিটিকে সাত কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। 
 প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,  সোমবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে হারাগাছ পৌর এলাকার নতুন বাজার বছি বানিয়ার তেপথি মোড়ে অভিযানে যায় পুলিশ। এসময় তাজুল ইসলামকে মাদকসহ  আটক করে পুলিশ। এসময় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলার উপক্রম হন। এদিকে তাজুলের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে প্রতিবাদে থানা ঘেরাও করে এলাকাবাসী। এসময় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী থানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর করে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশ। ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ।
পুলিশ জানায়, তাজুল মাদক কারবারি ও মাদকসেবী। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদকের মামলা রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় মাদক সেবন করছিলেন তাজুল এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে যায় পুলিশ।
 এ ঘটনায় সোমবার (১ নভেম্বর) রাতে নিহত তাজুলের ছোট ভাই মর্তুজার রহমান আবু  একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছেন।
এছাড়া নিহত তাজুলের কাছ থেকে মাদক উদ্ধার ও থানা ঘেরাও করে হামলা, গাড়ি ভাঙচুর, সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। এখন পর্যন্ত মামলায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।
ময়নাতদন্ত শেষে মঙ্গলবার বিকেলে তাজুলের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন


Link copied