আর্কাইভ  শনিবার ● ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ● ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   শনিবার ● ১০ ডিসেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন

রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন

রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ

রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ

রংপুর সিটি নির্বাচনে আ'লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার ইশতেহার ঘোষণা

রংপুর সিটি নির্বাচনে আ'লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার ইশতেহার ঘোষণা

রংপুর সিটি নির্বাচন : ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার

রংপুর সিটি নির্বাচন : ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার

 width=
শিরোনাম: রংপুরে ট্রাকের চাপায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী নিহত       বিশ্বকাপ শেষ ব্রাজিলের, স্বপ্নভঙ্গ টাইব্রেকারে       রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন       বেগম রোকেয়া দিবসে নীলফামারীতে ৩৪জন শ্রেষ্ঠ জয়িতা পুরস্কার পেলেন       নীলফামারীতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত      
 width=

রংপুরে সাত বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায়  নারীসহ গ্রেফতার ৩ 

শনিবার, ১১ জুন ২০২২, বিকাল ০৬:২৭

মমিনুল ইসলাম রিপন: ১২ বছরের  কম বয়সী শিশুকে ধর্ষণ করলে জ্বিনের আছর থেকে মুক্তি পায়ো যাবে। এমন কুসংস্কারে শিকার হয়েছে রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার ৭ বছরের এক শিশু কন্যা।  ওই শিশু ধর্ষণ মামলার তিন আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতারকৃতরা হল গঙ্গাচড়া উপজেলার দক্ষিণ খলেয়া কাহারটারী গ্রামের মেজবাউল হক ঘুটু (২৮), ঘুটুর বাবা আজহারুল ইসলাম (৫০) ও   সূর্যিনা বেগম (২২)।  তাদেরকে শনিবার সকালে গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। শনিবার দুপুরে নগরীর আলমনগরস্থ র‌্যাব-১৩ এর সদর দপ্তরে অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস সংবাদ সম্মেলনে তাদের গ্রেফতারের বিষয়টি জানান। 

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২ জুন স্কুলে যাওয়ার পথে ওই শিশুর সাথে দেখা হয় কাহারটারীর সূর্যিনা বেগমের। এ সময় টাকা দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে সূর্যিনা স্কুলে শেষে ওই শিশুকে তার বাড়িতে আসতে বলে। স্কুল শেষে শিশুটি সূর্যিনার বাড়িতে আসে। এ সময় সূর্যিনা তাকে মোবাইল ফোনে গান শোনায়, অশ্লীল ছবি দেখানোসহ নানা গল্প-গুজব করে ঘর থেকে বেরিয়ে যায়। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী দুপুর আড়াইটার দিকে সূর্যিনার ঘরে ঘুটু  প্রবেশ করে ওই শিশুকে  ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটি চিৎকার করলেও সূর্যিনা ও ঘুটুর বাবা আজহারুল এগিয়ে আসেনি। পরবর্তীতে সূর্যিনা ও আজহারুলের সহযোগিতা ঘুটু ওই শিশুকে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। বাড়িতে যাওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়লে মাকে সবকিছু খুলে বললে শিশুটি। পরে শিশুটিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করে পরিবারের সদস্যরা। এ ঘটনায় ৪ জুন শিশুটির বাবা গঙ্গাচড়া থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। বিষয়টি নিয়ে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব ছায়া তদন্ত শুরু করে। 

PMBAর‌্যাব অধিনায়ক আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘুটু জানিয়েছে তার উপর জ্বিনের আছর ছিল বলে পরিবারের সদস্যরা বিশ্বাস করতো। এজন্য ঘুটু স্থানীয় বিভিন্ন হাতুড়ি চিকিৎসক ও কবিরাজের কাছে চিকিৎসা করিয়েছিল। একজন কবিরাজের ঘুটু জানায় ১২ বছরের কম বয়সী শিশুকে ধর্ষণ করলে জ্বিনের আছর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। এ অপবিশ্বাস ও কুসংস্কারের উপর ভিত্তি করে ঘুটু, তার বাবা ও সূর্যিনার সহযোগিতায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটায়। তবে এ বিষয়ে আরও অধিকর তদন্ত চলছে বলে জানায় র‌্যাবের এ কর্মকর্তা। গ্রেফতারকৃত আসামীদের গঙ্গাচড়া থানায় হস্তান্তর করা হবে।

মন্তব্য করুন


Link copied