আর্কাইভ  রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ● ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১

রংপুর জেলা আ'লীগ সাধারন সম্পাদককে গাড়ি চাপা দেওয়ার চেষ্টা; নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ

শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর ২০২১, রাত ১২:৫৩

নিজস্ব প্রতিনিধি: রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. রেজাউল করিম রাজুকে গাড়ি ধাক্কা দিয়ে হামলা ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিক্ষোভ করেছে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত নগরীর বেতপট্টিতে দলীয় কার্যলয়ে অবস্থান নিয়ে এ বিক্ষোভ করে নেতাকর্মীরা।

 

এসময় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোতাহার হোসেন মওলা অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, প্রতিদিনের মতো মাগরিবের পর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যলয়ে নেতাকর্মীরা উপস্থিত হই। প্রায় এক ঘন্টা দলীয় আলোচনা শেষে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক রেজাউল করিম রাজু সহ আমরা এক সঙ্গে বের হই।এসময় পার্টি অফিসের মূল ফটকের ভিতর দাড় হয়ে থাকা একটি অপরিচিত পাজারু গাড়ি পিছনে পিছিয়ে আমাদের একবার ধাক্কা দেয়।কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আরো একবার ধাক্কা দেয় এতে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক সহ আমরা ছিটকে কর্মীদের উপর পড়ে যাই।এরপর গাড়িটি দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।এসময় গাড়িটির ভিতর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দীন আহম্মেদ অবস্থান করছিলেন বলে জানান তিনি।

 

এদিকে তাৎক্ষণিক এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ,যুব মহিলা আওয়ামী লীগ সহ সহযোগী সংগঠনের উপস্থিত নেতৃবৃন্দ। বিষয়টি পূর্ব পরিকল্পিত অভিযোগ করে বিক্ষোভ শুরু করে নেতাকর্মীরা।এসময় তারা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতির অপসারণ দাবি করে স্লোগান দিতে থাকেন। 

পরে নেতাকর্মীদের শান্ত করে জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. ইলিয়াস আহমেদ বলেন,আগামী শনিবার জেলা আওয়ামী লীগের জরুরি সভা করা হবে।সেখানে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।এবং এ বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের অবগত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদকে লাঞ্ছিত করতে গাড়ি দিয়ে ধাক্কা দেয়ার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে পার্ক মোড় এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জেলা আওয়ামী লীগের এক দায়িত্বশীল নেতা বলেন,আমাদের জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মমতাজ উদ্দীন আহম্মেদ দলের বাইরে গিয়ে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দলের ভিতর বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্ট করছেন।এরই মধ্যে তার এসব কর্মকান্ডের একাধিক ছবি ফেসবুকে ভাইরাল ও হয়েছে। যা নিয়ে নেতা কর্মীদের মধ্যে চলছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়।এরই মধ্যে আজ এ অনাকাঙ্খিত ঘটনাটি ঘটলো।

 

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ।বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখছেন বলেও জানান তিনি।

 

এদিকে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে একাধিক বার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দীন আহম্মেদ এর ব্যবহ্ত মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায় নি।

মন্তব্য করুন


Link copied