আর্কাইভ  শনিবার ● ১০ ডিসেম্বর ২০২২ ● ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   শনিবার ● ১০ ডিসেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন

রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন

রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ

রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ

রংপুর সিটি নির্বাচনে আ'লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার ইশতেহার ঘোষণা

রংপুর সিটি নির্বাচনে আ'লীগের মেয়র প্রার্থী ডালিয়ার ইশতেহার ঘোষণা

রংপুর সিটি নির্বাচন : ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার

রংপুর সিটি নির্বাচন : ৭ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার

 width=
শিরোনাম: রংপুরে ট্রাকের চাপায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী নিহত       বিশ্বকাপ শেষ ব্রাজিলের, স্বপ্নভঙ্গ টাইব্রেকারে       রংপুরে বহিষ্কার হলেন আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিলন       বেগম রোকেয়া দিবসে নীলফামারীতে ৩৪জন শ্রেষ্ঠ জয়িতা পুরস্কার পেলেন       নীলফামারীতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত      
 width=

রংপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী

সোমবার, ১৭ অক্টোবর ২০২২, দুপুর ০৩:৩৮

মমিনুল ইসলাম রিপন:  রংপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু মোটরসাইকেল মার্কা নিয়ে ৬০১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্ব›দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী আনারস মার্কা নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইলিয়াাস আহমেদ ৪৮৪ ভোট পেয়েছেন।

সোমবার বিকালে ভোট গণনা শেষে ফলাফলে মোসাদ্দেক হোসেন বাবলুকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।  

মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও যুগ্ম আহŸায়ক ছিলেন। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে নির্বাচন করায় তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তিনি ১২ বছর ধরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের জেলার কমান্ডার ছিলেন। এ ছাড়া তিনি রংপুর চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক ছিলেন।

 

আওয়ামী লীগের ইলিয়াস আহমেদ জেলার ৮টি উপজেলার ৮টি কেন্দ্রের মাত্র দুটিতে জয়ী হয়েছেন। গঙ্গাচড়া কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৫১ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৬৯ ভোট, বদরগঞ্জ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৭৯ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৬৫ ভোট, তারাগঞ্জ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ১৭ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৫১ ভোট, রংপুর সদর কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৪৫ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৬৫ ভোট, পীরগাছা কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৫০ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৭০ ভোট, কাউনিয়া কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ৪৬ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৪৮ ভোট, মিঠাপুকুর কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ৮৫ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ১৩৭ ভোট ও পীরগঞ্জ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ১১১ ভোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ৯৬ ভোট পেয়েছেন। 

এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, ৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ২৯ জন ও ৩টি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৪ জন প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেছেন।

ইভিএমের মাধ্যমে জেলার ৮টি উপজেলার ৮টি কেন্দ্রে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভোটার ছিলেন জেলার একটি সিটি কর্পোরেশন, তিনটি পৌরসভা, আট উপজেলা এবং ৭৬টি ইউনিয়নের ১ হাজার ৯৫ জন জনপ্রতিনিধি। 

রংপুর সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে বিজয়ী প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে।

 

মন্তব্য করুন


Link copied