আর্কাইভ  সোমবার ● ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ● ২৪ মাঘ ১৪২৯
আর্কাইভ   সোমবার ● ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

শিরোনাম: রংপুরে শিবিরের ৬ নেতা কর্মী গ্রেফতার       রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুদকের অভিযান       তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভূমিকম্পে নিহত ১২০০ ছাড়াল       ভূমিকম্পে নিহত বেড়ে ৫৬০, তুরস্কে জরুরি অবস্থা ঘোষণা       ভূমিকম্পে তুরস্ক-সিরিয়ায় ৩১৩ জনের মৃত্যু      

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে- ইসি রাশিদা 

শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, বিকাল ০৫:৫৪

মমিনুল ইসলাম রিপন: ইভিএম দিয়ে কোনোরকম কারসাজির সুযোগ নেই দাবি করে নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশিদা সুলতানা বলেছেন, 'যন্ত্রের কিন্তু কোন ত্রুটি নাই। এভিএম যন্ত্রের ভিতরে ম্যানুপুলেট করার কোন সুযোগই নাই। এটা আমরা নিশ্চিত হয়েই প্রায় দেড়শ আসনে জাতীয় নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং সিদ্ধান্ত জানিয়েও দিয়েছি। শুধু এটুকু বলবো, যন্ত্র কখনও খারাপ হয় না, যন্ত্রের পেছনে হয়তো কেউ কেউ দুষ্কর্ম করতে চান। আমরা নির্বাচন কমিশন থেকে এমন দুষ্কর্মকে কখনও প্রশ্রয় দেইনি এবং আগামীতেও দেবনা। অন্ততঃ নির্বাচন কমিশনের প্রতি এটুকু আস্থা রাখতে পারেন।'

শনিবার (২৬ নভেম্বর) দুপুরে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিশেষায়িত প্রশিক্ষণে এসে আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি একথা বলেন। 

নির্বাচন কমিশন ও ইভিএমের প্রতি আস্থা তৈরির আহ্বান জানিয়ে বেগম রাশিদা সুলতানা বলেন, 'আমরা বসার পর থেকেই শুনছি যে, নির্বাচন কমিশনের প্রতি আস্থা নেই, আস্থা নেই। কেবল নির্বাচন কমিশন একা আস্থা তৈরি করবে তা নয়, সকলকে আস্থা তৈরি করতে হবে। কারও না কারও প্রতি বিশ্বাস থাকতে হবে। আমরা ভালো এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে চাই-এই আস্থা ও বিশ্বাস মনের ভেতর আনতে হবে।'

ইভিএম নিয়ে এক মেয়র প্রার্থীর শঙ্কার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার বলেন,  'শুধু উনি কেন, ইভিএম নিয়ে অনেকেই শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। আমি শুধু এটুকু বলবো, নির্বাচন কমিশনের মতো ইভিএমেও আস্থা আনতে হবে। আমরা দায়িত্বে আসার পর ব্যাপকভাবে ইভিএমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভাসহ ৮০০-৯০০ নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার করেছি। ইভিএম বা যন্ত্রে কিন্তু কোনো ত্রুটি নেই।

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন বেগম রাশিদা সুলতানা। তিনি আরো বলেন,  'আমরা এই নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। নির্বাচন সফল করতে যা যা করার দরকার সব উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সারাদেশে রংপুরের সুনাম রয়েছে, সেই সুনাম অক্ষুন্ন থাকবে আমরা সেইরকমই নির্বাচন প্রত্যাশা করছি। এজন্য তিনি রংপুর সিটি কর্পোরেশনে অংশ নেয়া সকল প্রার্থী ও ভোটারসহ নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করেন।'
রাশিদা সুলতানা বলেন, 'যারা ভোটার তাদেরকে আমি বলব তারা যেন কেন্দ্রে আসেন। তারা ভোট দেওয়ার চেষ্টা করেন। যদি তাদের কেউ বাধা দেয়ার চেষ্টা করে তাহলে আমাদের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী থাকবে। ভোটে বাধা প্রদানের বিষয়ে যদি আমাদেরকে জানানো হয়, আমরা পর্ব ভোট পরবর্তী ও তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিতে পারব। একজন ভোটার হিসাবে এই এলাকাবাসী হিসেবে আপনাদেরও কিছু দায়িত্ব আছে, সেটি আপনারা পালন করবেন। এবং সেই দায়িত্ব থেকেই পুরো বিষয়টি আমাদের জানাবেন এবং আমাদের সহযোগিতা করবেন। আপনাদের সহযোগিতা ছাড়া ভোটারদের সহযোগিতা ছাড়া কোনভাবেই একটি সুষ্ঠু ভোট সম্পন্ন করা সম্ভব নয়।'
এসময় রংপুর বিভাগীয় কমিশনার সাবিরুল ইসলাম, রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার নুরেআলম মিনা, সিটি করপোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব আবদুল বাতেন, রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন, সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেনসহ সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এবার তৃতীয় বারের মতো রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ২৯ নভেম্বর। ১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই এবং ৮ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে পরের দিন ৯ ডিসেম্বর। প্রতীক বরাদ্দের পর প্রার্থীরা ১৭ দিন প্রচার-প্রচারণার সুযোগ পাবেন। ২৭ ডিসেম্বর ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এক টানা ভোটগ্রহণ করা হবে।  

মন্তব্য করুন


Link copied