আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ৪ অক্টোবর ২০২২ ● ১৯ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   মঙ্গলবার ● ৪ অক্টোবর ২০২২
 
 
শিরোনাম: রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত       পঞ্চগড়ে নৌডুবিতে ইজারাদার ও অদক্ষ মাঝিকে দায়ী করে প্রতিবেদন দাখিল       অপুকে ডিভোর্সের ১৪৮ দিন পর বুবলীকে বিয়ে করেন শাকিব       সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমল ১৪ টাকা       বিএনপির চেয়ে আওয়ামী লীগ এক ডিগ্রী বেশি- রংপুরে জিএম কাদের      

রংপুর সিটি নির্বাচনে হাতপাখার মেয়র প্রার্থী ঘোষণা 

বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, সকাল ০৯:২০

মমিনুল ইসলাম রিপন: রংপুর সিটি করপোরেশন (রসিক) নির্বাচনে এটিএম গোলাম মোস্তফা বাবুকে মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। গত সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে রংপুর নগরীতে  দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত যৌথ সভা শেষে হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী ঘোষণা দেন দলের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস আহমদ। 

এ বছরের ডিসেম্বরে রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে। এজন্য প্রাথমিক প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। এরই মধ্যে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছে আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরগ। 

তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রসিক নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মনোনীত প্রার্থী ঘোষণা করে মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস আহমদ বলেন, আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন হাতপাখার ছায়াতলে শান্তিকামী মানুষের আস্থা বেড়েছে। গত নির্বাচনে রংপুর সিটিতে ২৪ হাজারের বেশি ভোট পেয়েছে ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী। আমাদের বিশ্বাস অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে রংপুরে হাতপাখার বিপ্লব হবে। মানুষ এখন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রভাবমুক্ত নির্বাচন দেখতে চায়। দিনে দিনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের পক্ষে জনসমর্থন বাড়ছে। 

সভায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রংপুর মহানগর শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহমান কাসেমীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন। সঞ্চালনা করেন রংপুর নগরের সেক্রেটারী আমিরুজ্জামান পিয়াল।

এসময় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের রংপুর মহানগর, জেলা ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের বর্তমান পরিষদের মেয়াদপূর্তি হতে বাকি আর চার-পাঁচ মাস। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে নির্বাচনের ক্ষণগণনা। নগরজুড়ে বইছে নির্বাচনী হাওয়া। সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণাসহ সভা-সমাবেশ শুরু করেছেন। কেউ কেউ বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার ও স্টিকার লাগিয়ে নিজেদের প্রার্থিতার জানান দিচ্ছেন। বসে নেই বর্তমান মেয়র ও কাউন্সিলরারও। 

এদিকে রংপুর সিটি কর্পোরেশন (রসিক) নির্বাচনের ক্ষণগণনা শুরু হয়েছে গত ১৯ আগস্ট থেকে। সর্বশেষ এই সিটিতে নির্বাচন হয়েছিল ২০১৭ সালের ২১ ডিসেম্বর। নির্বাচিত কর্পোরেশনের প্রথম সভা হয়েছিল ২০১৮ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি। যেহেতু কোনো সিটির মেয়াদ ধরা হয় প্রথম সভা থেকে পরবর্তী পাঁচ বছর, তাই এ সিটিতে নির্বাচিতদের মেয়াদ শেষ হবে ২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি। সেই হিসেবে রসিক সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে। এ লক্ষ্যে প্রাথমিক প্রস্তুতির কাজ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।

রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম শাহাতাব উদ্দিন জানান, ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ যদি শেষ না হয়, তবে পুরাতন ভোটার তালিকা দিয়ে ভোট হবে। এবারেও এ সিটিতে ইভিএমে ভোট গ্রহণে সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে কমিশন। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে এ নির্বাচন করার প্রাথমিক পরিকল্পনা রয়েছে। এক্ষেত্রে নভেম্বরে রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হতে পারে।

প্রসঙ্গত, পৌরসভা থেকে ৩৩টি ওয়ার্ড নিয়ে রংপুর সিটি কর্পোরেশন গঠন হয় ২০১২ সালের ২৮ জুন। এরপর প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ওই বছর ২০ ডিসেম্বর। এতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সরফুদ্দিন আহমেদ ঝণ্টু প্রথম নগরপিতা হিসেবে নির্বাচিত হন। বর্তমানে এই সিটির জনসংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। আর ভোটার রয়েছে চার লাখের বেশি। ২০১৭ সালের দ্বিতীয় নির্বাচনের সময় ভোটার ছিল ৩ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯৪ জন।

মন্তব্য করুন


Link copied