আর্কাইভ  রবিবার ● ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ● ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০
আর্কাইভ   রবিবার ● ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: ফুলবাড়ীতে এসএসসি পরীক্ষায় প্রথমবার চার পরীক্ষার্থী বহিস্কার       তিস্তা ইউনিভার্সিটিতে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত       সংরক্ষিত আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৫০ নারী       দিনাজপুরের সাবেক এমপি আখতারুজ্জামান জেল-হাজতে       সরকারি মাল দরিয়ায় ঢালবেন না: প্রধানমন্ত্রী      

নীলফামারীতে ঝড়ে ২ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত॥ নিহত গৃহবধু

মঙ্গলবার, ১৬ মে ২০২৩, রাত ১১:৫১

স্টাফরিপোর্টার,নীলফামারী॥ নীলফামারীতে ঝড়ে তিন ইউনিয়নের দুই শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। সেমাবার(১৫ মে) রাত নয়টার দিকে জেলা সদরের লক্ষ্মীচাপ. টুপামারী, ও জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের ওপর দিয়ে ওই ঝড় বয়ে যায়। এসময় উপড়ে ও ভেঙে পড়ে অসংখ্য গাছপালা। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মাঠে থাকা পাকা ধান, ভুট্টা ও  কলা ক্ষেত। এছাড়া এ ছাড়া ঝড়ে ভেঙ্গে পড়া গাছের আঘাতে নিহত হয়েছে দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধু। নিহত গৃহবধু রেনুফা বেগম(২৭) জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের দক্ষিন শিমুলবাড়ি বেরুবন্দ গ্রামের আনারুল ইসলাম স্ত্রী । এ ঘটনার পর ওই সকল এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।
এলাকাবাসী জানায়, সোমবার রাত নয়টার দিকে আকস্মিকভাবে উত্তর-পূর্ব কোন থেকে প্রবল বেগে ঝড় বয়ে আসে। প্রায় ১৫ মিনিট স্থায়ী ওই ঝড়ের সঙ্গে শিলাবৃষ্টি ঝড়ে। এসময় জেলা সদরের লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়নের আকাশকুড়ি, টুপামারী ইউনিয়নের নিত্যানন্দী এবং জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের উত্তর বেরুবন্দ গ্রামের দুই শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়। ভেঙে ও উপড়ে পড়ে অসংখ্য গাছপালা। ক্ষতিগ্রস্ত হয় এলাকার কলা ক্ষেত। শিলাবৃষ্টিতে ঝড়ে পড়ে মাঠে থাকা পাকা বোরো ধান।
নিহত গৃহবধু রেনুফার ভাই মমিনুর রহমান জানান, ভোরে ফজরের নামাজ পড়ে কাল বৈশাখি ঝড়ে ভাঙ্গা গাছে ডাল সরাতে যায় রেনুফা। এসময় বাড়ীর পাশের ভেঙ্গে যাওয়া ইউকালিপটাস গাছের ডাল টানতে গেলে আলতোভাবে লেগে থাকা সেই ঠাল এসে বোনের মাথায় পড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান রেনুফা। 
মঙ্গলবার(১৬ মে) দুপুরে জেলা সদরের লক্ষ্মীচাপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান জানান, ঝড়ে তার ইউনিয়নের আকাশকুড়ি গ্রামের প্রায় দেড় শতাধিক কাচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। উপড়ে ও ভেঙে পড়েছে বড়-ছোট গাছপালা। প্রবল বাতাসে এলাকার কলা ও ভুট্টা ক্ষেতের গাছ ভেঙে পড়েছে। পাশাশি শিলাবৃষ্টিতে বিচ্ছিন্নভাবে ঝড়ে পড়েছে মাঠের পাকা বোরো ধান। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনের কাজ চলছে বলে জানান এসময়। 
অপরদিকে জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামিদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতের ঝড়ে তার ইউনিয়নের উত্তর বেরুবন্দ গ্রামে প্রায় ২৫টি কাচা ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। বিছিন্নভাবে ছোট-বড় গাছপালা ভেঙে ও উপড়ে পড়েছে।
এদিকে ঝড়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ওই এলাকার বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা। বিভিন্ন স্থাতে সঞ্চালন লাইনের তার ছিড়ে পড়লে বিদ্যু সরবরাহ বন্ধ থাকে মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত।
এবিষয়ে বিদ্যুতের নেসকো নীলফামারী কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আলিমুল ইসলাম বলেন, ‘ঝড়ে জেলা সদরের টুপামারী ইউনিয়নের রামগঞ্জ বাজার এলাকায় কয়েকটি স্থানে গাছ পড়ে বিদ্যুতের সরবরাহ লাইনের তার ছিড়ে গেছে। সেগুলো মেরামত কাজ চলছে। সন্ধ্যার মধ্যে শতভাগ মেরামত কাজ সম্পন্ন হবে।’
সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রিয়াজুল ইসলাম বলেন,‘জেলা সদরের লক্ষ্মীচাপ ও টুপামারী ইউনিয়নের দুটি গ্রামের ওপর দিয়ে ওই ঝড় বয়ে যায়। এতে সামান্য কিছু ক্ষতি হয়েছে, ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনের কাজ চলছে।’
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ দপ্তরের উপ-পরিচালক ড. এসএম আবু বকর সাইফুল ইসলাম বলেন,‘ঝড়ে জেলা সদরের একটি গ্রামে দুই থেকে আড়াই বিঘা করে ধান ও কলা ক্ষেতের ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া মাঠে থাকা অন্যান্য ফসলের তেমন কোন ক্ষতি হয়নি।’ 

মন্তব্য করুন


 

Link copied