আর্কাইভ  শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ● ৩০ চৈত্র ১৪৩০
আর্কাইভ   শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষ, নিহতের সংখ্যা বেড়ে চার       পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেলের মুখোঁমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৪       পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে প্রেমিকা খুন!       নাথান বমের স্ত্রীকে বান্দরবান থেকে লালমনিরহাটে বদলি       দিনাজপুরে ৬ লাখ মুসল্লি’র সমাগমে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত      

 width=
 

এমভি আব্দুল্লাহ নয়, রুয়েন উদ্ধার করেছে ভারতীয় নৌ বাহিনী

শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪, রাত ০৮:০৮

গত মঙ্গলবার বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ জিম্মি করে নেয় সোমালি জলদস্যুরা। আজ বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমে ভারতীয় নৌবাহিনী জাহাজটি উদ্ধার করেছে বলে সংবাদ প্রচার করেছে ভারতীয় বেশ কয়েকটি গণমাধ্যম। তবে তথ্যটি সঠিক নয়।

শনিবার ভারতীয় নৌবাহিনীর মুখপাত্র রয়টার্সকে জানান, গতবছরের ১৪ ডিসেম্বর রুয়েন নামে মাল্টিজ পতাকাবাহী একটি কার্গো জাহাজ জিম্মি করে নেয়। সেই জাহাজটি আটকে দিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী। তাদের আত্মসমপর্ণের জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে। এ সময় জাহাজে থাকা বেসামরিক নাগরিকদের ছেড়ে দেয়ারও আহ্বান জানানো হয় নৌবাহিনীর পক্ষ থেকে।

ভারতের গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের শিরোনামে বলা হয়েছে ‘ছিনতাইকৃত বাংলাদেশি জাহাজ এমভি আব্দুল্লাহকে উদ্ধার করেছে ভারতীয় নৌবাহিনী’। তবে সংবাদের ভেতরে এ সংক্রান্ত কোনো তথ্যই তারা দেয়নি। বরং সংবাদের তারা বলেছে, ভারত মহাসাগরে ছিনতাইয়ের শিকার বাংলাদেশি পতাকাবাহী একটি কার্গো জাহাজকে জরুরি সহায়তার অনুরোধে সাড়া দিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী। তবে জাহাজটির সাথে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করলেও ক্রুদের পক্ষ থেকে কোনো সাড়া পায়নি নৌবাহিনী।

বাংলাদেশি জাহাজ জিম্মি করতে আগে থেকে জিম্মি কার্গো জাহাজ রুয়েন ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় নৌবাহিনী। এছাড়া ব্রিটিশ মেরিটাইম সিকিউরিটি ফার্ম অ্যামব্রে বলছে, এমভি আবদুল্লাহকে যখন ছিনতাই করা হয়, তখন রুয়েন মাত্র ২৯৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল এবং পূর্বদিকেই যাচ্ছিল। ফলে তাদের ধারণা, মাল্টিজ জাহাজ রুয়েনকে জলদস্যুরা ছিনতাইয়ের কাজে মাদার ভ্যাসেল হিসেবে ব্যবহার করছে। যদিও একজন বাদে ওই জাহাজের ১৬ নাবিক এখনো জিম্মি আছেন।

মন্তব্য করুন


 

Link copied