আর্কাইভ  শুক্রবার ● ১ জুলাই ২০২২ ● ১৭ আষাঢ় ১৪২৯
আর্কাইভ   শুক্রবার ● ১ জুলাই ২০২২
PMBA
PMBA

ঘরের মাঠে ৬ বছর পর তামিমের সেঞ্চুরি

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, দুপুর ০১:১৫

ডেস্ক: তিন বছর হয়েছে টেস্টে সেঞ্চুরির দেখা নেই তামিম ইকবালের। ঘরের মাঠ বিবেচনা করলে এই সময়টা আরও বেশি- ৬ বছর! শেষ পর্যন্ত দুটি আক্ষেপই দূর হলো চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের তৃতীয় দিন দশম টেস্ট সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন বামহাতি ওপেনার।

অবশ্য লাঞ্চ থেকে ফেরার পরই ওপেনিং সঙ্গী মাহমুদুল হাসানকে হারাতে হয়েছে তাকে। ৫৮ রান করা মাহমুদুল আসিথা ফার্নান্ডোর বলে গ্লাভসবন্দি হয়েছেন। তার ফেরার পর কাঙ্ক্ষিত সেঞ্চুরিটি তুলে নেন তামিম। ৫১ ওভার শেষে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৬৯ রান। তামিম ব্যাট করছেন ১০০ রানে, নাজমুল হোসেন শান্ত ১ রানে। স্বাগতিকরা পিছিয়ে আছে ২২৮ রানে।

বামহাতি ওপেনারের সর্বশেষ সেঞ্চুরিটি ছিল ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি। হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১২৬ রান করেছিলেন। তার পর দুবার কাছে গেলেও সেসব ইনিংস সেঞ্চুরিতে রূপ দিতে পারেননি। ২০২১ সালে পাল্লেকেলেতে এই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৯০ ও ৯২ রানের ইনিংস খেলেছেন। একটিতে অপরাজিত থেকেছেন ৭৪ রানে।  

ঘরের মাঠে সর্বশেষ সেঞ্চুরিটি ছিল ২০১৬ সালের অক্টোবরে। মিরপুরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৪ রান করেন তিনি।

তামিমের আগ্রাসী ব্যাটিংয়েই তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ। লাঞ্চ ব্রেকে যাওয়ার আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ ছিল বিনা উইকেটে ৪৭ ওভারে ১৫৭ রান। বিরতির পর মাহমুদুল হাসান জয়ের ফেরায় ভাঙে ১৬২ রানে মহাকাব্যিক জুটি।

অবশ্য টেস্টে বরাবর বাংলাদেশের আক্ষেপের নাম হয়ে থেকেছে এই ওপেনিং। থিতু হওয়ার পাশাপাশি বড় রান খুব একটা আসতে দেখা যায় না। সেখানে সুবাস ছড়িয়েছেন তামিম ইকবাল-মাহমুদুল হাসান। তাদের ছড়ি ঘোরানো ব্যাটিংয়েই ওপেনিংয়ে ৬১ ইনিংস পর দেখা মিলেছে শতরানের পার্টনারশিপ।

লঙ্কান বোলারদের দিনের শুরু থেকেই শাসন করেছেন দুই ওপেনার। তামিম দ্রুত ব্যাট চালিয়ে ফিফটি তুলে নিয়েছেন। দশম সেঞ্চুরি পেতে খেলেছেন ১৬২ বল। মাহমুদুল হাসানের তুলনায় আক্রমণাত্মক ব্যাটিংই করেছেন তিনি।

মন্তব্য করুন


Link copied