আর্কাইভ  সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১ ● ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১

পঞ্চগড়ে ইউপি নির্বাচনে মাকে হারাতে ভোট যুদ্ধে মেয়ে

রবিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২১, সকাল ০৮:১৬

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: আগামী ১১ নভেম্বর পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একই ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদের ভোট যুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে মা- মেয়ে। এরি মাঝে নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তারা। তবে মা-মেয়ের নির্বাচনী এই লড়াইয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে সাধারণ ভোটারদের মাঝে।

সরেজমিনে তেঁতুলিয়া সদর উপজেলার ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শতদল আদর্শ গ্রামের বাসিন্দা মা জীবন নাহার ও মেয়ে বুলবুলি আকতার। তবে এই ওয়ার্ডে মোট ৫জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য প্রার্থী রয়েছেন বলে জানিয়েছে উপজেলা নির্বাচন অফিস।

এদিকে মা জীবন নাহাররের অভিযোগ মেয়ে বুলবুলি আকতার বিষয়টি পরিবারসহ কারোসাথে আলোচনা না করেই মায়ের বিরুদ্ধে একই ওয়ার্ডে স্বামীর কথায় ভোট যুদ্ধে নেমেছেন।

শতদল আদর্শ গ্রামের বাসিন্দা লাবলু, আলাউদ্দিন বলেন, দুই বারের নির্বাচীত মহিলা সদস্য জীবন নাহার। তিনার মাঠ পর্যায়ে অবস্থান ভালো। তবে এরি মাঝে তিনার মেয়ে বুলবুলি একই ওয়ার্ডে ভোট করায় স্থানীয়দের মাঝে একটু মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কেন এমনটা হলো কেও বুঝতে পারছে না। তারা মা- মেয়ে ভোট করছে। যে কোন একজনকে তো ভোট দিতে হবে। এখন আমাদের মাঝে ক্ষোদ পরে গেছে আমরা কাকে ভোট দিব, কাছে ছাড়বো। সম্ভবত এই দুই মা- মেয়ের লড়াইয়ে তৃতীয় পক্ষ জয়ী হয়ে যাবে।

এদিকে মাগুরা আদর্শ উচ্চ গামের জরিনা বেগম বলেন, মা- মেয়ে এক জাইগায় দারালো এটা কেমন দেখাচ্ছে! এখন একই পরিবারের দুইজন হওয়ায় সমস্যা হয়েছে, কাকে রেখে কাকে ভোট দিব আমরা।

সংরক্ষিত মহিলা পদপ্রার্থী মা জীবন নাহার বলেন, বর্তমানে এলাকায় আমার অবস্থান অনেকটাই ভালো আছে। দুই বার নির্বাচীত হওয়ায় অনেক ভালো কাজ করেছি। যোগ্য হওয়ায় ভোটাররা আমার সাথে আছে। ইনশাআল্লাহ জয় হবে।

তবে তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, মেয়ে বুলবুলি কারো সাথে বিষয়টি শেয়ার না করে স্বামীর কথায় ভোট করছে। তার ভোট করার ইচ্ছা, আমাক আগে বল্লে আমি আমার জাইগা থেকে বসে যেতাম।

এদিকে বুলবুলি আকতার বলেন, মা ও স্থানীয়দের সাথে আলোচনা করেই ভোটের মাঠে নেমেছি। কার কতটুকু গ্রহণযোগ্যতা আছে তা আগামী ১১ নভেম্বর ভোটের দিনে জানা যাবে।

তবে একই পরিবারের দুই মা- মেয়ের ভোট যুদ্ধে ভোটাধিকার প্রয়োগ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন নিকটতম আত্মীয় স্বজন ও ভোটাররা। এ নিয়ে তাদের সকলের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

এদিকে উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, আগামী ১১ নভেম্বর ব্যালট পেপারের মাধ্যেমে তেঁতুলিয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। আর কোন ভাবেই যেন নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন না হয় সে দিক দেখে কাজ করা হচ্ছে।

 

মন্তব্য করুন


Link copied