আর্কাইভ  শনিবার ● ২৬ নভেম্বর ২০২২ ● ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   শনিবার ● ২৬ নভেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে- ইসি রাশিদা 

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে- ইসি রাশিদা 

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন; পাল্টে গেল নির্বাচনের ছক

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন; পাল্টে গেল নির্বাচনের ছক

রংপুর বাসী নৌকায় ভোট দিতে মুখিয়ে আছে; আ'লীগ মনোনীত প্রার্থী ডালিয়া

রংপুর বাসী নৌকায় ভোট দিতে মুখিয়ে আছে; আ'লীগ মনোনীত প্রার্থী ডালিয়া

রংপুর সিটি নির্বাচন;  মেয়র পদে ১৩ জনসহ ২৬০ প্রার্থীর মনোনয়ন সংগ্রহ

রংপুর সিটি নির্বাচন; মেয়র পদে ১৩ জনসহ ২৬০ প্রার্থীর মনোনয়ন সংগ্রহ

 width=
শিরোনাম: “আন্দোলনের নামে মানুষ পুড়িয়ে মারতে চাইলে একটাকেও ছাড়বো না”       রংপুরে বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আল্টিমেটাম       দিনাজপুরে প্রায় ১০ বছর পর আ.লীগের সন্মেলনে কারা আসছেন নেতৃত্বে ?        মহিলা আ. লীগের নতুন সভাপতি চুমকি, সম্পাদক শবনম       রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শতভাগ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হবে- ইসি রাশিদা       
 width=

এনআইডিতে লাগবে ১০ আঙুলের ছাপ

শনিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, রাত ১০:১৪

ডেস্ক: ২০২৩ সালের জানুয়ারি থেকে মাঠ পর্যায়ে ভোটারদের ১০ আঙুলের ছাপ নেওয়ার কাজ শুরু করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ইসি এই কার্যক্রম শুরু করবে। কমিশন জানিয়েছে, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগে ভোটারের ১০ আঙুলের ছাপ লাগবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) উইংয়ের ডিজি এ কে এম হুমায়ূন কবীর শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

হুমায়ূন কবীর বলেন, আগামী জাতীয় সংসদে নির্বাচনে ভোট দিতে ভোটারের ফিঙ্গারপ্রিন্ট আপডেট করবে ইসি। জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) যাদের চার আঙুলের ছাপ দেওয়া আছে, তাদের পুনরায় ছাপ দিতে হবে। তবে যারা স্মার্টকার্ড সংগ্রহ করার সময় দশ আঙুলের ছাপ দিয়েছেন, তাদের আর দিতে হবে না।

তিনি বলেন, আগামী জাতীয় সংসদে নির্বাচনে ভোট দিতে ভোটারের ফিঙ্গারপ্রিন্ট আপডেট করবে ইসি। যারা দশ আঙুলের ছাপ দেননি তাদের আগামী জানুয়ারি থেকে আঙুলের ছাপ নেওয়া হবে।

নির্বাচন কমিশন দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচনী পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। এবার সর্বোচ্চ ১৫০ আসনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএমে ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা করছে ইসি।

নির্বাচনী রূপরেখার অংশ হিসেবে নির্বাচন কমিশন রুটিন ওয়ার্ক হচ্ছে স্বচ্ছ ভোটার তালিকা প্রণয়ন ও সরবরাহ করা। ভোটার তালিকা প্রণয়নের অংশ হিসেবে সংস্থাটি ভোটারদের দুই হাতের ১০ আঙুলের ছাপ নেবে।

২০২৩ সালের নভেম্বরে বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। নিয়মানুযায়ী নভেম্বর থেকে জানুয়ারির ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন করার বিধান রয়েছে। সেই হিসেবে ২০২৩ সালে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে বা ২০২৪ সালে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ নির্বাচন করার পরিকল্পনা করেছে নির্বাচন কমিশন।

মন্তব্য করুন


Link copied