আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ● ১০ ফাল্গুন ১৪৩০
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: রংপুরে একুশের প্রথম প্রহরে শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল       রংপুরের  নিভৃত পল্লীতে পপি চাষ, ১৬‘শ গাছ ও ফলসহ ২ জন গ্রেফতার       চার দিনব্যাপী ‘তিস্তা ইউনিভার্সিটি, রংপুর বইমেলা’ শুরু       টিউলিপের গ্রাম       ৪ মাস আগে বিয়ে, তালাকের পরদিন শৌচাগারে তরুণীর লাশ      

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের জন্য নীলফামারীর ৮ কেন্দ্রে উপজেলা পরিষদের উপহার ‘দেয়াল ঘড়ি’  

শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩, বিকাল ০৬:৪৭

স্টাফ রিপোর্টার,নীলফামারী॥ আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের সময় দেখে পরীক্ষা দেয়ার সুবিধার্থে নীলফামারী সদরের ৮টি কেন্দ্রের ১৩০টি কক্ষের জন্য ১৩০টি দেয়াল ঘড়ি উপহারসরূপ বিতরণ করেছেন সদর উপজেলা পরিষদ। শনিবার(২৯ এপ্রিল) দুপুরে সদর উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে কেন্দ্র সচিবদের হাতে ওই ঘড়ি তুলে দেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেসমিন নাহার। 
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম রব্বানী, নীলফামারী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌসী আশরাফী, টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. সিদ্দিক শফিকুল ইসলাম, নীলফামারী আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মুছা, ছমির উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মেজবাহুল হক, কালেক্টরেট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক জুবেদ আলী রনি প্রমুখ। 
এরপর নীলফামারী সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্র কক্ষগুলি পরিদর্শন করেন তারা। 
নীলফামারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম রব্বানী বলেন, এই ঘড়িটা এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশগ্রহনকারী শিক্ষার্থীদের অনেক কাজে আসবে। তারা সময় দেখে তাদের পরীক্ষা দিতে পারবে। একটি প্রশ্নের উত্তর লিখতে কত সময় লাগছে তা দেখে তারা তাদের পরবর্তি প্রশ্নের উত্তরের প্রস্তুতি নিতে পারবে।’
সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহিদ মাহমুদ বলেন, ‘আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় নীলফামারী জেলা সদরে ৮টি কেন্দ্র রয়েছে। ওই আটটি কেন্দ্রের ১৩০টি কক্ষে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।  পরীক্ষার্থীদের সুবিধার্থে আমরা উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ওই ১৩০টি কক্ষের জন্য ১৩০টি দেয়াল ঘড়ি উপহার হিসেবে দিয়েছি। পরীক্ষার্থীরা ওই ঘড়ি দেখে সময়ের মধ্যে থেখে তাদের পরীক্ষা দিতে পারবে। আশা করি পরীক্ষার্থীরা এতে উপকৃত হবে।’ 

মন্তব্য করুন


 

Link copied