আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ৬ ডিসেম্বর ২০২২ ● ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   মঙ্গলবার ● ৬ ডিসেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুর সিটি নির্বাচন: দলীয় কোন্দলে পরাজয়ের আশঙ্কা আ.লীগ প্রার্থীর

রংপুর সিটি নির্বাচন: দলীয় কোন্দলে পরাজয়ের আশঙ্কা আ.লীগ প্রার্থীর

রংপুর সিটিতে ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

রংপুর সিটিতে ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

রংপুর সিটি নির্বাচনে ৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

রংপুর সিটি নির্বাচনে ৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

রংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে জেলা আ'লীগের মতবিনিময়

রংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে জেলা আ'লীগের মতবিনিময়

 width=
শিরোনাম: বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জনের মৃত্যু       স্কুলে ভর্তির লটারির তারিখ পরির্বতন       আগামী বছর বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় হবে পাকিস্তানের দ্বিগুণ       ব্যায়াম করার সময় হাবিপ্রবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু       রংপুরে নবাগত জেলা প্রশাসক ড. চিত্রলেখা নাজনীনের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময়      
 width=

পুলিশ-ফায়ার সার্ভিসের সতর্কতা মানেনি মাঝি ও যাত্রীরা

বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ০৩:১১

ডেস্ক: প্রতি বছর মহালয়া উপলক্ষে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার আউলিয়া ঘাট থেকে বদেশ্বরী ঘাটে যান সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষরা। এদিন দুই ঘাটে মানুষের উপস্থিতি থাকে প্রচুর। ব্রিজ না থাকায় এক ঘাট থেকে আরেক ঘাটে যাওয়ার মাধ্যম হলো নৌকা। ফলে সতর্কতা ও বিশৃঙ্খলা রোধে ঘাটে টহল দেয় বোদা থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। এদিন ঘাটে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সতর্ক করলেও শোনেনি যাত্রী ও মাঝি। 

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আউলিয়া ঘাট থেকে ৫০০ গজ দূরে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে উল্টে যায় নৌকাটি। এতে তিন দিনে ৬৮ জনের মরদেহ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে জেলা প্রশাসন। 

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শারদীয় দুর্গোৎসবকে কেন্দ্র করে মহালয়া দেখতে আউলিয়া ঘাট থেকে বদেশ্বরী ঘাটে যায় সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। এক ঘাট থেকে আরেক ঘাটে যাওয়ার জন্য নৌকা ব্যবহার করেন তারা। তবে যে নৌকার ধারণক্ষমতা ছিল ৪০-৫০ জন যাত্রী, সেই নৌকাতে যাত্রী ছিল শতাধিক। বেশি যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করার কারণে যাত্রার পর থেকেই পানি উঠতে শুরু করে। ৫০০ গজ যেতেই উল্টে ডুবে যায়। 

সাঁতরে বেঁচে আসা কুসুম ও যশোবালা বলেন, নৌকায় অনেক লোক ছিল। ঘাটে ভিড়তেই লোকজন হুমড়ি খেয়ে উঠতে থাকে। পুলিশ বেশি মানুষ উঠতে নিষেধ করলেও কথা শোনেনি কেউ। নৌকায় ওঠার সঙ্গে সঙ্গে অল্প করে পানি ওঠা শুরু করে। তারপর ডুবে যায়। আমরা সাঁতার জানতাম বলে এ যাত্রায় বেঁচে ফিরেছি। 

ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের উপস্থিতে নৌকাডুবির ঘটনায় বোদা উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করলেও তারা কথা বলতে রাজি হননি। মুঠোফোনে তাদের সঙ্গে কথা বলার একাধিকবার চেষ্টা করলেও সম্ভব হয়নি।

বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুজয় কুমার রায় লেন, শুভ মহালয়া উপলক্ষে আউলিয়া ঘাটে প্রচুর জনসমাগম হয়। যেহেতু সেখানে কোনো ব্রিজ নেই, তাই দুই পাড়ের মানুষ নৌকা দিয়ে পারাপার হয়ে থাকে। জনসমাগমে দুর্ভোগ এড়াতে ও বিশৃঙ্খলা রোধে সেখানে পুলিশ সদস্যদের রাখা হয়। 

পুলিশ সদস্যদের উপস্থিতিতে অধিক যাত্রী নিয়ে নৌকার যাত্রা নিয়ে তিনি বলেন, একটা ছোট ভিডিও আমাদের কাছে রয়েছে। নৌকা ঘাটে আসা মাত্রই হুমড়ি খেয়ে সকলে উঠতে থাকে। আমাদের পুলিশ সদস্যরা হ্যান্ডমাইকে অধিক যাত্রী যাতে না ওঠে তার জন্য সতর্ক করছিলেন। কিন্তু তারা কেউ সতর্কতা মানেননি। আর সতর্কতা অবলম্বন না করায় আজ এমন দিন দেখতে হলো।

মন্তব্য করুন


Link copied