আর্কাইভ  সোমবার ● ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ● ১১ আশ্বিন ১৪২৯
আর্কাইভ   সোমবার ● ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
 
 
ব্রেকিং নিউজ
শিরোনাম: কুড়িগ্রামে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় ৬ শিক্ষক বরখাস্ত       রংপুর জেলা পরিষদ নির্বাচনে আ'লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় বাবলু বহিষ্কার        রংপুর ৯ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার       সংবিধান অনুযায়ই যথা সময়ে নির্বাচন হবে- রংপুরে সমাজকল্যান মন্ত্রী       পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে ২৪ জনের মৃত্যু      

রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো প্রত্নতাত্ত্বিক প্রদর্শনী

সোমবার, ২৯ আগস্ট ২০২২, সকাল ০৮:১৯

ডেস্ক: বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থীদের আয়োজনে প্রথমবারের মতো প্রত্নতাত্ত্বিক প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রাচীন স্থাপত্যের আদলে তৈরি ২০টি প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপত্য প্রদর্শন করা হয়।

রবিবার ( ২৮ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের হেয়াত মামুদ ভবনের সামনের অংশে দুই দিনব্যাপী এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর গোলাম রব্বানী। 

জানা যায়, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ‘প্রত্নতত্ত্ব’কোর্সের এসাইনমেন্টের অংশ হিসেবে দুইটি ব্যাচের ১৩০ জন শিক্ষার্থী কোর্সের শিক্ষক প্রভাষক সোহাগ আলীর তত্ত্বাবধানে গ্রুপ তৈরি করে মাত্র ৬ দিনে ককশীট, পেপার মন্ড ও মাটি দিয়ে এসব প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন তৈরি করেন। 

শিক্ষার্থীরা জানায়, পুথিগত বিদ্যার বাইরে গিয়ে এসব নিদর্শন হাতে তৈরি করা এক রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা। প্রথমবারের মতো এই অভিজ্ঞতা আমাদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধ করবে। পাশাপাশি অন্য বিভাগের শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষের এসব ঐতিহাসিক স্থান দর্শনের প্রতি আগ্রহ বাড়বে। মানুষ ইতিহাস সম্পর্কেও সচেতন হবে। 

প্রদর্শনী দেখতে আসা অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী কাওছার বলেন, এমন প্রদর্শনী সত্যিই প্রশংসনীয় ও মনোমুগ্ধকর। খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে একসঙ্গে অনেকগুলো প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দশন দেখতে পেয়ে অনেক ভালো লাগছে। 
 
এ বিষয়ে কোর্স শিক্ষক ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী বলেন, এসাইনমেন্ট-প্রেজেন্টেশন এর চিরাচরিত নিয়ম ভেঙ্গে একটু ভিন্ন ধারায় বাস্তবিক জ্ঞান অর্জনের উদ্দেশ্যে এই উদ্যোগ গ্রহণ করি। এতে শিক্ষার্থীদের সহযোগিতাপূর্ণ মনোভাব আমাকে মুগ্ধ করেছে। এ ধরণের উদ্যোগ ভবিষ্যতে অব্যাহত রাখার পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।

বিভাগীয় প্রধান সহযোগী অধ্যাপক গোলাম রব্বানী বলেন, আজকের এই কাজের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ব্যবহারিক বিষয় সম্পর্কে জানতে পারছে। সশরীরে এসব জায়গায় না গিয়েও শিক্ষার্থীদের এমন কাজ সত্যিই প্রশংসনীয়। ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীদের নিয়ে এমন ব্যতিক্রমী আয়োজন অব্যাহত থাকবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে অন্যান্য শিক্ষকদের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি পোমেল বড়ুয়া, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান শামীমসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ঐতিহাসিক স্থাপত্যগুলো ঘুরে ঘুরে দেখেন।

মন্তব্য করুন


Link copied