আর্কাইভ  রবিবার ● ৪ ডিসেম্বর ২০২২ ● ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   রবিবার ● ৪ ডিসেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুর সিটিতে ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

রংপুর সিটিতে ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার

রংপুর সিটি নির্বাচনে ৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

রংপুর সিটি নির্বাচনে ৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

রংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে জেলা আ'লীগের মতবিনিময়

রংপুর সিটি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে জেলা আ'লীগের মতবিনিময়

রংপুর সিটি নির্বাচন ; ২৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী নেছার আহমেদ এর ইশতেহার ঘোষণা

রংপুর সিটি নির্বাচন ; ২৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী নেছার আহমেদ এর ইশতেহার ঘোষণা

 width=
শিরোনাম: স্বর্ণের দামে রেকর্ড       রংপুর সিটিতে ইভিএম সম্পর্কে জানেন না ৯০ শতাংশ ভোটার       পঞ্চগড়ে মাটিবাহী ট্রাক্টর চাপায় শিশুর মৃত্যু       কোতয়ালী থানার এসআই হাবীবের অনন্য স্বীকৃতি অর্জন       নির্বাচন কমিশন যেন একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করে- বদিউল আলম মজুমদার      
 width=

অপহরণ নাটক সাজাতে গিয়ে যুবক গ্রেপ্তার

বুধবার, ২২ ডিসেম্বর ২০২১, দুপুর ০৪:১৭

রাজশাহী: রাজশাহীতে পাওনাদারের ৩১ লাখ টাকা আত্মসাৎ এবং পরিবারের কাছ থেকে অর্থ আদায় করতে গিয়ে অপহরণের নাটক সাজিয়ে মিজানুর রহমান (২৬) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে গোয়েন্দা শাখা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানায় পুলিশ। এর আগে মঙ্গলবার রাতে ঢাকার গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে মিজানুরকে গ্রেপ্তার করে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল। 

গ্রেপ্তার মিজানুর রহমান রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কাজীহাটা ধরমপুর গ্রামের এমারত আলীর ছেলে। তারা নগরের কাশিয়াডাঙ্গা থানার টুলটুলি পাড়ায় বসবাস করেন। ‘ফরেন্স এক্সচেঞ্জ’ নামের একটি মানি এক্সচেঞ্জের মালিক মিজানুর।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার আরেফিন জুয়েল বলেন, গত ১২ ডিসেম্বর বিকেলে নিখোঁজ হয় মিজানুর রহমান। এরপরের দিন সে পরিবারকে জানায় অপহরণকারিরা তার অনলাইন ব্যবসার ৭৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে এবং মুক্তিপণ হিসেবে আরও ২০ লাখ টাকা না দিলে অপহরণকারীকে তাকে মেরে ফেলবে। 

এ বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানায় তার পরিবার। পরে পুলিশ তার অবস্থান শনাক্ত করে ঢাকার গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে।

আরেফিন জুয়েল আরও বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে মিজানুর প্রথমে অপহরণের কথা বললেও পরে নাটক সাজানোর কথা স্বীকার করেন। অনলাইন ব্যবসায় গত সাত বছরে তার ৭৮ লাখ টাকা লোকসান হয়। পুঁজি হারিয়ে তার ব্যবসা প্রায় বন্ধ। এসময়ে ৩১ লাখ টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন তিনি। এর মধ্যে তিন বন্ধু নয় লাখ, এক চাচা ১৫ লাখ, নানা চার লাখ এবং একটি এনজিও তিন লাখ টাকা পাবে। 

সম্প্রতি পাওনাদাররা চাপ সৃষ্টি করলে টাকা না দেয়া ও পরিবার থেকে অর্থ আদায়ের কৌশল হিসেবে আত্মগোপনে গিয়ে অপহরণের নাটক সাজায় মিজানুর। পরিবারকে তার একাউন্টে ২০ লাখ টাকা দিতে বলেন।

মন্তব্য করুন


Link copied