আর্কাইভ  রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ● ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   রবিবার ● ৫ ডিসেম্বর ২০২১

ডোমার পৌরসভার নির্বাচনে ৯টির মধ্যে ৫ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ

রবিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২১, রাত ০৯:৩৭

স্টাফ রিপোর্টার,নীলফামারী॥ নীলফামারীর ডোমার পৌরসভার নির্বাচন আগামীকাল মঙ্গলবার (২ নভেম্বর)। ওই নির্বাচনে নয়টি ওয়ার্ডের নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে পাঁচটিকে চিহ্নিত করা হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ (ঝুঁকিপূর্ণ) হিসেবে। ঝুঁকি এড়াতে এসব কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা।
উপজেলা নির্বাচন কর্মর্তার দপ্তর সূত্র জানায়, এসব গুরুত্ব কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে পৌরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের চিকনমাটি দুই নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চার নম্বর ওয়ার্ডে ডোমার বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়, ছয় নম্বর ওয়ার্ডে ডোমার ডিগ্রি মহিলা কলেজ, সাত নম্বর ওয়ার্ডে চিকনমাটি পরিবার পরিকল্পনা ক্লিনিক এবং নয় নম্বর ওয়ার্ডে চিকনমাটি ডাংগাপাড়া শাহী এফতেদায়ী মাদ্রাসা কেন্দ্র।
অপরদিকে সাধারণ তালিকায় রয়েছে এক নম্বর ওয়ার্ডে ডোমার সরকারি ডিগ্রি কলেজ, দুই নম্বর ওয়ার্ডে চিকনমাটি দোলাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তিন নম্বর ওয়ার্ডে ডোমার শহীদস্মৃতি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডে উপজেলা পরিষদ আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র।
পৌরসভার মোট ১৩ হাজার ৫৪০ ভোটারের ভোট গ্রহন করা হবে ওই নয়টি কেন্দ্রের ৫১টি বুথে। এর মধ্যে এক নম্বর ওয়ার্ডে ভোটার সংখ্যা ২ হাজার ১৯৬, দুই নম্বর ওয়ার্ডে ৬৩১, তিন নম্বর ওয়ার্ডে ১ হাজার ২৯৮, চার নম্বর ওয়ার্ডে ২ হাজার ৫১১, পাঁচ নমাবর ওয়ার্ডে ১ হাজার ৫৩, ছয় নম্বর ওয়ার্ডে ১ হাজার ৩২৮, সাত নম্বর ওয়ার্ডে ১ হাজার ৪৯৮, আট নম্বর ওয়ার্ডে ১ হাজার ৬২৩ এবং নয় নম্বর ওয়ার্ডে ১ হাজার ৪০২ জন।
পৌরসভাটিতে তিন মেয়র প্রর্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের গণেশ কুমার আগরওয়ালা (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মনছুরুল ইসলাম দানু (নারিকেল গাছ) ও আফরোজা নাজনিন রুমি (মোবাইল ফোন) মার্কা নিয়ে রয়েছেন প্রতিদ্বন্দীতার মাঠে। এছাড়া নয়টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩২ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে রয়েছেন ১১ জন প্রতিদ্বন্দীতা করছেন।
নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, নয়টি কেন্দ্রের মধ্যে পাঁচটিকে গুরুত্বপূর্ণ ভোট কেন্দ্রে হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এখনপর্যন্ত আচরণবিধি লঙ্ঘনের লিখিত কোন অভিযোগ নেই। মৌখিকভাবে দুই একটি অভিযোগ এসেছিল, সেটি আমরা তাৎক্ষণিক সমাধান করেছি। 
ডোমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম বলেন, সাধারণ ভোট কেন্দ্রের তুলনায় গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্র সমূহে অধিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 
ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম বলেন, কোন প্রার্থীর আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ নেই। শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠানে সকল ধরণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। 
         এদিকে ভোট গ্রহনে প্রথমবার ইভিএম ব্যবহার হতে যাচ্ছে পৌরসটিতে। ইভিএম সম্পর্কে অবগত এবং এর ব্যবহার শেখাতে পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে আজ রবিবার অনুষ্ঠিত মগ ভোটিং। এমন ভোটিং এর মাধ্যমে ইভিএম নিয়ে শঙ্কা কাটে ভোটারদের মধ্যে।
ভোটাররা জানান, ভোটের উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করলেও ইভিএম ভীতিতে ছিলেন ভোটাররা। ভোটে প্রথমবার ইভিএম ব্যবহার হওয়ায় অজানায় ছিলেন এলাকার মানুষ। এমন অজানায় অনেকের মধ্যে ভ্রান্ত ধারণাও ছিল। রবিবার প্রতিটি ওয়ার্ডে সেটির পরীক্ষামূলক ব্যবহার শেখানোয় সে ভীতি অনেকটাই কেটে গেছে।
পৌরসভাটির উত্তর চিকনমাটি গ্রামের পুলক আহমেদ (৩৫) বলেন, এইবার মিশিনোত (ইভিএম) ভোট দিবার লাগিবে। ভোটের মিশিন তো-আর দেখ নাই। এলাকার অন্য কোন মানষিও দেখে নাই। ভোটের দিনোত যে কি হোবে সেইটা নিয়া চিন্তাত ছিনু। আজি সেই মেশিন দেখিনু , ভোট দিবা শিখি মোর চিন্তা দূর হইল। 
ডোমার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম বলেন, ভোটারদের মধ্যে ইভিএম ব্যবহার শেখাতে পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে প্রিজাইডিং কর্মকর্তারা আজ রবিবার ইভিএম নিয়ে গেছেন। এজন্য আগে থেকে মাইকিং করা হয়েছিল। মগ ভোটিং এর মাধ্যমে ভোটারদেরকে ইভিএম ব্যবহার শেখানো হয়েছে। আশা করি এমন ভীতি আর থাকবে না। 

মন্তব্য করুন


Link copied