আর্কাইভ  শুক্রবার ● ১২ আগস্ট ২০২২ ● ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯
আর্কাইভ   শুক্রবার ● ১২ আগস্ট ২০২২
PMBA
 
PMBA

নীলফামারীতে প্রায় ১৪ লাখ টাকার হেরোইন সহ ৬ জন গ্রেফতার

বুধবার, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২২, দুপুর ০৪:০৪

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী॥ আবার ভয়ংকর মাদক হেরোইনের কারবার বাড়ছে। ইয়াবাসহ মাদকের আগ্রাসনের মধ্যেও হেরোইনপাচার কমেনি, বরং বেড়েই চলেছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, ফেনসিডিলের আকার বড় হওয়ায় রাজশাহীর গোদাগাড়ী, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ সীমান্ত এলাকার মাদক কারবারিরা বেশি পরিমাণ হেরোইন আনছেন। 
কক্সবাজার থেকে নীলফামারীতে নিয়ে আসা প্রায় ৩ কোটি টাকা মূল্যের এক লাখ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট আটকের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে এবার ১৩ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকার মূল্যের হেরোইন আটক করা হলো। চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে সাদা রংঙের একটি মাইক্রোবাস (নম্বর: ঢাকামেট্টো-চ-১৩-৬১৭৭) করে ৫৫০ গ্রাম হেরোইন নিয়ে আসার সময় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১৩, রংপুর এর উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) মো. রাবিব আলমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি টহলদল এ অভিযান চালায়।  অভিযান চালিয়ে  ছয় মাদক বিক্রেতাকে আটক করে। আটক ব্যক্তিরা চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার রাজারামপুর এলাকার মজিবর রহমানের ছেলে হুমায়ুন কবির(২৪), টিকারামপুরের রেজাউল করিমের ছেলে মাইক্রোবাস চালক মাহফুজুর রহমান(২২) আঙ্গারিয়াপাড়ার আব্দুল মান্নানের ছেলে সোহেল রানা (২৭), চরমোহনপুর চড়পাড়ার মৃত. আব্দুস সালামের ছেলে সাদেক আলী(২৬), আঙ্গারিয়াপাড়া পাইকরতলার মফিজুল ইসলাম মিন্টুর ছেলে মিলন আলী(১৫) ও চাদলাই জোড়বাগান এলাকার আনারুল ইসলামের ছেলে তানজিদ হাসান (১৭)।এদের মধ্যে ১৫ বছরের মিলন আলী  ও ১৭ তানজিদ হাসান  অপ্রাপ্ত বয়স হওয়ায় দায়েরকৃত মামলায় তাদের কিশোর আসামী হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এ ঘটনায় সৈয়দপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা হয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব ১৩ এর সহকারী পরিচালক(মিডিয়া) ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মাহমুদ বশির আহমেদজানায় গত সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় পার্বতীপুর সড়কের খোদা হাফেজ গেট সংলগ্ন এলাকায় একটি মাইক্রোবাস থেকে ৫৫০ গ্রাম হোরোইনসহ তাদের আটক করা হয়। মাইক্রোবাসটি জব্দ করা হয়েছে।
সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল হাসনাত খান জানান, আসামিদের মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) আদালতের মাধ্যমে নীলফামারী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এর আগে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৯টায় পুলিশের  অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটের একটি গোয়েন্দা দল নীলফামারী জেলা সদরের বড় বাজারের ট্রাফিক মোড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে গাড়ির গ্যাস সিলিন্ডারের ভেতর থেকে ৯১ হাজার ৮৫ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয় ও গাড়িটির চালক ইমরান হোসেনকে (৪২) আটক করা হয়। এসময় টয়োটা রাশ জীপ মডেলের গাড়িটি জব্দ করা হয়। 
গ্রেফতার হওয়া ইমরান সিলেটের গোলাপগঞ্জ থানার দাড়িপাতন গ্রামের মৃত রফিক উদ্দিনের ছেলে। গত ২১ ডিসেম্বর কক্সবাজারের টেকনাফ থানার সাবরাং এলাকার চিহ্নিত মাদক কারবারি জুবায়ের জুয়েলের (৩০)  কাছে ইয়াবা সংগ্রহ করতে যায় ইমরান। ২৪ ডিসেম্বর ভোরে কক্সবাজার থেকে রওনা দিয়ে নীলফামারী আসে রাতে। এ ঘটনার সাথে জড়িত বিপুল ও সজল নামে দুইজন জড়িত থাকলেও তাদের চিহিৃত করে এখনও ধরতে পারেনি পুলিশ। নীলফামারী সদর থানায় তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নীলফামারীকে মাদকে নিরাপদ রুট হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে এদের কারা সহযোগীতা করছে পর্দার পেছনে থাকা প্রভাবশালীরা থাকছে ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।
এদিকে র‌্যাবের সুত্র মতে রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ দিয়ে বেশির ভাগ হেরোইনের চালান আসছে এমন তথ্য পেয়ে এরই মধ্যে নজরদারি জোরদার করেছে র‌্যাব। র‌্যাবের তীক্ষè গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত আছে মাদক কারবারিদের সম্ভাব্য গতিবিধির ওপর। উদ্ধার করা মাদকদ্রব্যের পরিসংখ্যান ঘেঁটে দেখা গেছে, গত ১২ বছরে দেশে দুই হাজার ৭১৯ কেজি হেরোইন জব্দ করা হয়েছে। হেরোইন জব্দের পরিমাণ দু-এক বছর কম থাকলেও আবার বেড়েছে। তবে আকারে বড় মাদক ফেনসিডিল পাচার কিছুটা কমে গেছে। সেখানে বেড়েছে ইয়াবা ট্যাবলেট ও হেরোইন।

মন্তব্য করুন


Link copied