আর্কাইভ  শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ● ৩০ চৈত্র ১৪৩০
আর্কাইভ   শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষ, নিহতের সংখ্যা বেড়ে চার       পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেলের মুখোঁমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৪       পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে প্রেমিকা খুন!       নাথান বমের স্ত্রীকে বান্দরবান থেকে লালমনিরহাটে বদলি       দিনাজপুরে ৬ লাখ মুসল্লি’র সমাগমে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত      

 width=
 

পঞ্চগড়ে বন্য হাতির তাণ্ডবে যুবকের মৃত্যু

মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, রাত ১০:৫৩

ডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের সীমান্তের একটি গ্রামে বন্য হাতির তাণ্ডবের শিকার হয়ে নুরজামান নামে (২৩) এক মানষিক প্রতিবন্ধী যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টায় তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের দক্ষিণ কাশিমগঞ্জ গ্রামের এক ভুট্টা ক্ষেতে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত প্রতিবন্ধী নুরুজ্জামান একই গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

জানা গেছে, খাদ্যের অভাবে হাতিগুলো ভারতীয় সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। বন্য প্রাণী আসার বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে সীমান্ত এলাকায় উৎসুকু জনতার ভিড় নামতে থাকে। এদিকে হাতিটিকে স্থানীয়রা ভুট্টা ক্ষেত থেকে বিতারিত করতে হট্টগোল করে এগিয়ে গেলে হাতিটি তাণ্ডব চালায়। এর মাঝে হাতি দেখতে আসা নুরজামান ভিড়ের মাঝে পড়ে যায়। পরে পালাতে না পারায় হাতিটি তাকে সুর দিয়ে পেচিয়ে ছুড়ে মারে। কিছু সময় পর স্থানীয়রা তাকে দেখতে না পেয়ে খুঁজাখুজি করলে ভুট্টা ক্ষেত থেকে আহত অবস্থায় দ্রুত উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধায় মৃত্যুবরণ করে সে। এর আগে সকালে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা।

এর আগে উপজেলার শালবাহান ইউনিয়নের ইসলামবাগ প্রধানপাড়া গ্রাম দিয়ে বাংলাদেশের লোকালয়ে প্রবেশ করে ৬ থেকে ৭ টি গ্রাম অতিক্রম করে কাশমিগঞ্জ গ্রামে পৌছায় হাতি গুলো।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে দায়িত্বে থাকা ডা. রহিমুল ইসলাম মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তাকে প্রথমে হাসপাতালে আনা হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দ্রুত রংপুর মেডিকেলে প্রেরণের নির্দেশ দেয়া হয়। এর মাঝে হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়।

এদিকে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফজলে রাব্বি বলেন, এখনো হাতিগুলো ওই গ্রামে অবস্থান করছে। আমরা বিজিবির মাধ্যমে ভারতে যোগাযোগ করেছি, ২০২০ সালের একটি প্রটোকল অন এলিমেন্ট কনভার্জেসন টিটি রয়েছে। সে হিসেবে হাতিগুলোকে ভারতে ফেরত দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এবং রাতেই হাতি দুটি তার নিজ দেশে ফিরে গেছে। গ্রামবাসীদের নিরাপত্তায় ওই গ্রামে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন


 

Link copied