আর্কাইভ  বুধবার ● ৩০ নভেম্বর ২০২২ ● ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
আর্কাইভ   বুধবার ● ৩০ নভেম্বর ২০২২
 width=

 

রংপুর সিটি নির্বাচন: ১০ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল 

রংপুর সিটি নির্বাচন: ১০ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল 

রংপুরের মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিতে উদগ্রীব হয়ে আছে - ডালিয়া 

রংপুরের মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিতে উদগ্রীব হয়ে আছে - ডালিয়া 

রংপুর সিটি নির্বাচন: মনোনয়ন জমা দিল জাপার মোস্তফা

রংপুর সিটি নির্বাচন: মনোনয়ন জমা দিল জাপার মোস্তফা

রংপুর সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন জামায়াত নেতা বেলাল

রংপুর সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন জামায়াত নেতা বেলাল

 width=
শিরোনাম: হাতীবান্ধায় ট্রেনের ধাক্কায় ইউএনও অফিসের নৈশ প্রহরী নিহত       রংপুর সিটি নির্বাচন: ১০ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল        রংপুরের মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিতে উদগ্রীব হয়ে আছে - ডালিয়া        বিভেদ ভুলে এক টেবিলে রওশন-কাদের       রংপুর সিটি নির্বাচন: মনোনয়ন জমা দিল জাপার মোস্তফা      
 width=

স্বামী নৌকার প্রার্থী, দুই স্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, দুপুর ১২:০৩

ডেস্ক: চতুর্থ ধাপে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন নুরুন নবী দুলাল। অন্যদিকে তার দুই স্ত্রীও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিনে তার প্রথম স্ত্রী ফেরদৌসী বেগম ও দ্বিতীয় স্ত্রী নাসিমা খাতুন উপস্থিত হয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন।

একই দিন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন আওয়ামী লীগে প্রার্থী নুরুন নবী দুলাল, শহিদুল ইসলাম (স্বতন্ত্র) এবং মনোয়ার হোসেন (স্বতন্ত্র)।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, খানমরিচ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নুরুন নবী দুলাল স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন। চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে তিনি ছয় মাস আগে চাকরির ১২ বছর থাকতেই অবসর নেন। এ অবস্থায় তফসিল ঘোষণার পর তিনি ও তার দুই স্ত্রী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। পাশাপাশি তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার জন্য জোর প্রচেষ্টা চালান। পরে গত রোববার (২১ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর কিছুক্ষণ পর তার দুই স্ত্রীও মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুন নবী এলাকায় বেশ জনপ্রিয় বলে চাকরি ছেড়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। কিন্তু দলীয় মনোনয়ন ও কাগজপত্র যাচাই-বাছাই নিয়ে সংশয় থাকায় তিনি দুই স্ত্রীকে দিয়েও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করিয়েছেন।

তবে এলাকায় গুঞ্জন রয়েছে, স্বামীর সঙ্গে মনোমালিন্য ও দুই সতিনের মধ্যে সুসম্পর্কের ঘাটতির কারণে ফেরদৌসী বেগম ও নাসিমা খাতুন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুন নবী দুলাল বলেন, বিশেষ কিছু কারণে দুই স্ত্রীসহ নিজেও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছি। যাতে পরিবারের কেউ একজন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে পারি। আমি অনেক চিন্তাশীল মানুষ বলেই ভেবেচিন্তে কাজটি করেছি।

ভাঙ্গুড়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রুখশানা পারভিন বলেন, মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে খান মরিচ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থীসহ পাঁচজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তাদের মধ্যে দুইজন নারী রয়েছেন। শুনেছি তারা নাকি আওয়ামী লীগের প্রার্থীর স্ত্রী। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে যদি তারা নির্বাচন করতে চান তাহলে তখন হবে স্বামীর প্রতিদ্বন্দ্বী দুই স্ত্রী। যাচাই-বাছাই ও প্রতীক বরাদ্দ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

মন্তব্য করুন


Link copied