আর্কাইভ  সোমবার ● ৩০ জানুয়ারী ২০২৩ ● ১৭ মাঘ ১৪২৯
আর্কাইভ   সোমবার ● ৩০ জানুয়ারী ২০২৩
 width=
 width=
শিরোনাম: নীলফামারী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেনীর ২৬ জন ছাত্রীর মানববন্ধন       নীলফামারী আইনজীবী সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি মমতাজুল ও সাধারণ সম্পাদক অক্ষয়       অপচয় বন্ধে করতে গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করেছি: ডা. দীপু মনি       এসএসসি-সমমানের পরীক্ষা শুরু ৩০ এপ্রিল       জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০২১ পাচ্ছেন যারা      
 width=

এসএসসি পরীক্ষার্থীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, আটক ৫

বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, দুপুর ১২:৩১

নাটোর: নাটোর শহরের হাফরাস্তা এলাকায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সাড়ে চার ঘণ্টার মধ্যে সাড়াশি অভিযান চালিয়ে তিন ধর্ষক এবং দুই সহযোগীকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে শহরের হাফরাস্তা এলাকায় জনৈক সাগর মিয়ার ভাড়া বাসায় চাঞ্চল্যকর এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।  

আটকরা হলো-শহরের কানাইখালী মহল্লার আফজাল হোসেনের ছেলে কুখ্যাত সন্ত্রাসী রনি মিয়া (৩৬), মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে রকি (২৭) এবং আব্দুল মজিদের ছেলে সোহান (৩২)। এছাড়া এ ধর্ষণের ঘটনায় সহযোতিতার অভিযোগে মৃদুল হোসেন (৩৫) ও তার স্ত্রী মিথিলা পারভীনকে (২৬) আটক করা হয়েছে।

নাটোর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. জামাল উদ্দীন এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার বিকেলে রাজশাহীর বিনোদপুর থেকে আবির (২১) নামে এক দোকান কর্মচারী তার এসএসসি পরীক্ষার্থী প্রেমিকাকে নিয়ে নাটোর আসেন। পরে স্থানীয় হরিশপুর এলাকার মঈন উদ্দিন নামে এক বন্ধু তাদের বিয়ে দেওয়ার কথা বলে শহরের হাফরাস্তা এলাকায় মৃদুল ও মিথিলা দম্পতির বাসায় নিয়ে যান।

পরে ওই দম্পতি ধর্ষক রনি, রকি ও সোহানকে ডেকে নেন। এ সময় তারা দলবদ্ধভাবে ওই ছাত্রীকে গলায় চাকু ধরে ধর্ষণ করে এবং সে ঘটনার ভিডিও ধারণ করে। পরবর্তীতে তাদের টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেবে বলে ভয় দেখায়।

ঘটনার পর তারা ছাড়া পেয়ে রাত আনুমানিক ১১টার সময় নাটোর সদর থানায় গিয়ে অভিযোগ করে। সঙ্গে সঙ্গে সক্রিয় হয় নাটোর থানা পুলিশ। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে অভিযান চালিয়ে সদর উপজেলার তেলকুপি নুরানীপাড়া থেকে তিন ধর্ষককে আটক করে। এর আগে রাতেই মিথিলা ও মৃদুলকে শহরের হাফরাস্তা থেকে আটক করা হয়।  

মন্তব্য করুন


Link copied