আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ২০ জুন ২০২৪ ● ৬ আষাঢ় ১৪৩১
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ২০ জুন ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: রংপুরের প্রধান নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি; নিম্নাঞ্চল প্লাবিত       তিস্তা ও দুধকুমারের পানি বিপৎসীমার ওপরে, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত       দিনাজপুরের বীরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মা ও ছেলে নিহত       গ্রীষ্মের ছুটি কাটছাঁটের গুঞ্জন, ফিরতে পারে শনিবারের ছুটি       যেভাবে দেশ চলছে তাতে জনগণের প্রত্যাশা পূরণ হবে না : রংপুরে জিএম কাদের      

 width=
 

কালীগঞ্জে আপন চাচাকে হারিয়ে ভাতিজা চেয়ারম্যান নির্বাচিত

বুধবার, ২২ মে ২০২৪, সকাল ০৮:১৯

লালমনিরহাট প্রতিনিধি: কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান চাচা মাহবুবুজ্জামান আহমেদকে হারিয়ে বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন সাবেক মন্ত্রী পুত্র রাকিবুজ্জামান আহমেদ। আনারস প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ২৪ হাজার ৩০৩ ভোট। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আপন চাচা দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ পেয়েছেন ১৯ হাজার ৩৫০ ভোট।

মঙ্গলবার (২১ মে) অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলা নির্বাচন কমিশন কন্ট্রোল রুম সুত্রে এ ঘোষিত ফলাফল নিশ্চিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী ও কালীগঞ্জ এ দুটি উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা দুইটির মধ্যে আদিতমারীতে অনেকটা শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হলেও প্রচারণার শুরু থেকে কালীগঞ্জে সাবেক সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের ছেলে রাকিবুজ্জামান আহমেদ ও তার ভাই মাহবুবুজ্জামানের মধ্যে চাচা-ভাতিজার লড়াই নিয়ে তুমুল আলোচনা হয়ে আসছিল। এর মধ্যে চাচা মাহবুবুজ্জামান আহমেদ ভাতিজার কর্মীকে চর-থাপ্পর মারায় আলোচনায় এসেছিলেন এই উপজেলা নির্বাচন নিয়ে। তবে চাচা-ভাতিজার এ লড়াইয়ে অপর প্রার্থী তরিকুল ইসলাম তুষার মাত্র ৩৩৭ ভোট পান। যিনি শুরু থেকেই লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন।

এদিকে আদিতমারী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস ফারুক (মোটরসাইকেল) প্রতীকে নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ৩৩ হাজার ১৩৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম পেয়েছেন ২৯ হাজার ১৮ ভোট।

এর আগে উপজেলা দুটির বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘুরে দেখা গেছে, সকাল থেকেই কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি ছিল খুবই কম। মাঝে মধ্যে ২/৩ জন করে ভোটার কেন্দ্রে আসছেন। এরপর আআার ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা। কেন্দ্রের বাইরে ভিড় থাকলেও ভেতরে ভোটার সংখ্যা খুবই নগন্য। তবে দীর্ঘ লাইন কোন কেন্দ্রেই চোখে পড়ে নাই। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কিছু কিছু কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা বেড়েছে।

দুই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৫ জন পুরুষ, ভাইস চেয়ারম্যানপদে ১১জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জনসহ মোট ২১জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এ দুই উপজেলায় মোট ভোটার ৪ লাখ ৮ হাজার ৫২৮ জন।

কালীগঞ্জ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে মোঃ আবির হোসেন চৌধুরী টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে ১২ হাজার ৮০০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। আর ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে শিউলী রানী রায় হাঁস প্রতীক নিয়ে ১৮ হাজার ৬৪৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন।

মন্তব্য করুন


 

Link copied